সাপাহারে শিক্ষক নিয়োগে অনিয়মের অভিযোগ

রবিবার, ১১ আগস্ট ২০১৯

নওগাঁ প্রতিনিধি : জেলার সাপাহার উপজেলার একটি বেসরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার স্থান রহস্যজনকভাবে পরিবর্তন করে নিয়োগ দেয়ার অভিযোগ উঠেছে। এতে করে নির্দিষ্ট স্থানে পরীক্ষা দিতে গিয়েও ফিরে এসেছেন ছয় প্রার্থী।

বিদ্যালয়ের সভাপতি পছন্দের শিক্ষককে নিয়োগ দিতেই গোপনে পরীক্ষার কেন্দ্র পরিবর্তন করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে। পরীক্ষা দিতে না পারা শিক্ষকদের অভিযোগের ভিত্তিতে জানা গেছে, উপজেলার আই হাই উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের পদ শূন্য হওয়ায় বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে ওই পদটি পূরণে শিক্ষক নেয়ার ঘোষণা দেয়া হয়। এর পরিপ্রেক্ষিতে বিভিন্ন বিদ্যালয় থেকে বেশ কিছু যোগ্য শিক্ষক ওই স্কুলের প্রধান শিক্ষক পদে তাদের আবেদনপত্র জমা দেন।

তাদের আবেদনপত্রগুলো যাচাই-বাছাইয়ের পর মোট ১৩ শিক্ষককে ওই পদে পরীক্ষার জন্য চূড়ান্ত করা হয়। এর পর প্রত্যেককে বিদ্যালয়ের সভাপতির স্বাক্ষরিত পরীক্ষার কেন্দ্রে প্রবেশের জন্য একটি করে প্রবেশপত্র দেয়া হয়। ওই প্রবেশপত্রে সাক্ষাৎকার পরীক্ষা ৭ আগস্ট বুধবার সকাল ১০টায় আই হাই উচ্চ বিদ্যালয়ে হওয়ার কথা বলা হয়। ফলে প্রার্থী মোহাম্মদ এবাদুর রহমান, জালাল উদ্দীন, তাজমুল হকসহ ছয়জন যথা সময়ে ওই বিদ্যালয়ে উপস্থিত হন। এর পর সেখানে কাউকে উপস্থিত না পেয়ে তারা হতবাক হয়ে ফিরে যান। পরে তারা জানতে পারেন, বিদ্যালয়ের সভাপতি তার পছন্দের মনোনীত প্রার্থীকে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নিয়োগ দেয়ার উদ্দেশ্যে কৌশল অবলম্বন করে পরীক্ষার স্থান পরিবর্তন করে সাপাহার উপজেলা সদরে সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় নির্ধারণ করেছেন। তড়িঘড়ি করে পরীক্ষার কাজ সমাপ্ত করে সভাপতির মনোনীত শিক্ষককে নিয়োগ প্রদান করেন। তবে পরীক্ষার স্থান পরিবর্তনের ব্যাপারে ওই ছয় প্রার্থীকে জানানো হয়নি।

এ বিষয়ে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা জানান, সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় সাতজন পরীক্ষার্থী উপস্থিত হয়। বিদ্যালয়ের সভাপতি আমাকে সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে বলে জানিয়েছেন। অন্য কোথাও পরীক্ষা হওয়ার কথা ছিল কিনা তা আমি জানি না। এ বিষয়ে ওই বিদ্যালয়ের সভাপতির মুঠোফোনে যোগাযোগ করতে বাববার ফোন দিলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

সারাদেশ'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj