জামালপুরে নৌকাডুবি : ৬ জনকে নিখোঁজ রেখেই উদ্ধার কাজ স্থগিত

শুক্রবার, ৯ আগস্ট ২০১৯

কাগজ প্রতিবেদক, জামালপুর : জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জে যমুনায় নৌকাডুবির ঘটনায় ৬ জনকে নিখোঁজ রেখেই উদ্ধার কাজ সাময়িকভাবে স্থগিত করেছে ফায়ার সার্ভিসের উদ্ধারকারী দল।

দেওয়ানগঞ্জের চুকাইবাড়ী থেকে ভিজিএফের চাল নিয়ে ৩০ নারী-পুরুষ বাড়ি ফেরার পথে যমুনা নদীর টিনারচর এলাকায় নৌকাডুবির ঘটনা ঘটে। ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল গত বুধবার রাত থেকে গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুর পর্যন্ত দুই দফায় উদ্ধার অভিযান পরিচালনা করে ২৪ জনকে জীবিত উদ্ধার করে। ৬ জন এখনো নিখোঁজ রয়েছেন। নিখোঁজরা হলেন- মৃত দিলদার শিকদারের ছেলে মো. শহীদ শিকদার (৪৫), মো. ফজল হকের স্ত্রী কাঞ্চনমালা (৪৫), মৃত মজিবর রহমানের স্ত্রী রেজিয়া (৪৫), নয়ন (৮), মো. তৈয়ব আলীর ছেলে দুলাল (৩০) ও মো. ছম্মান আলীর স্ত্রী মোছা. আঁকন বিবি (৬৫)। এদের বাড়ি দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার চুকাইবাড়ী ইউনিয়নের চরহালকাচর হাবড়াবাড়ী গ্রামে। তবে নিখোঁজদের ভাগ্যে কী ঘটেছে তা নিশ্চিত করে কেউ বলতে পারছেন না। তীব্র ¯্রােত ও প্রচণ্ড বাতাসের কারণে ৬ জনকে নিখোঁজ রেখেই উদ্ধার কাজ সাময়িকভাবে স্থগিত করেছে ফায়ার সার্ভিসের উদ্ধারকারী দল।

জামালপুর ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের সিনিয়র অফিসার মোহাম্মদ নূর উদ্দিন ওলি জানান, বুধবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে ৩০ জন যাত্রী নিয়ে নৌকাটি উপজেলার ফুটানী বাজার থেকে হলকারচরের হাওড়াবাড়ীর উদ্দেশে রওনা দেয়। প্রতিক‚ল আবহাওয়ার কারণে যমুনা নদীর চীনারচর এলাকায় নৌকাটি ডুবে যায়। এ সময় সাঁতরিয়ে ১১ যাত্রী তীরে উঠতে সক্ষম হলেও বাকিরা নিখোঁজ হন। রাতেই জামালপুর থেকে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল ঘটনাস্থলে গিয়ে ৬ এবং জামালপুর ও ময়মনসিংহ ফায়ার সার্ভিস বৃহস্পতিবার সকালে আরো ৭ জনকে উদ্ধার করলেও এখনো ৬ জন নিখোঁজ রয়েছেন। যমুনায় তীব্র ¯্রােত ও প্রচণ্ড বাতাসের কারণে উদ্ধার কাজ ব্যাহত হওয়ায় বৃহস্পতিবার দুপুর থেকে উদ্ধার অভিযান আপাতত স্থগিত রাখা হয় বলে জানান ফায়ার সার্ভিসের ওই কর্মকর্তা।

তবে দেওয়ানগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. গোলাম মোস্তফা জানান, পরিস্থিতি অনুক‚লে আসার সঙ্গে সঙ্গে স্থানীয় প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন, ফায়ার সার্ভিস ও স্থানীয় লোকজনকে সঙ্গে নিয়ে নিখোঁজদের জীবিত উদ্ধারে পুনরায় একযোগে উদ্ধার অভিযান চালানো হবে।

শেষ পাতা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj