টুকি-টাকি

শনিবার, ২০ জুলাই ২০১৯

প্রেমিকের সঙ্গে স্ত্রীর বিয়ে দিলেন স্বামী

কাগজ ডেস্ক : দীর্ঘদিন ধরেই স্ত্রীর সঙ্গে অন্য এক যুবকের সম্পর্কের কথা জানতেন তার স্বামী। এ বিষয়টি নিয়ে প্রতিবেশীদের মধ্যেও গুঞ্জন ছিল। তিনি বাড়িতে না থাকলে পেশায় পুলিশকর্মী এক যুবক তার স্ত্রীর সঙ্গে দেখা করতেন। বৃহস্পতিবারও ওই পুলিশকর্মী তাদের বাড়ি গিয়েছিলেন। তা দেখতে পেয়ে এলাকার লোকজন ওই বাড়ির দরজা বাইরে থেকে আটকে দেয়। এরপরেই ওই নারীর স্বামীকে খবর দেয়া হয়। তিনি গিয়ে ওই পুলিশকর্মীর সঙ্গে নিজের স্ত্রীর বিয়ে দিয়ে দেন। ওই পুলিশকর্মী স্বামীর চোখের সামনেই তার স্ত্রীকে শাঁখা, সিঁদুর পরিয়ে দেন। এই ঘটনা ঘটেছে পশ্চিমবঙ্গের বংশীহারি এলাকায়। স্থানীয় সূত্র জানিয়েছে, দুই বছর আগে ফেসবুকে বংশীহারি থানার ডিটল এলাকার ওই গৃহবধূর সঙ্গে পরিচয় হয় স্থানীয় থানায় কর্মরত এক পুলিশকর্মীর। এরপর থেকেই তাদের ঘনিষ্ঠতা বাড়ে। তারপর ওই পুলিশকর্মী মাঝে মধ্যেই ওই নারীর স্বামীর অনুপস্থিতিতে তার বাড়িতে যেতেন। বৃহস্পতিবার দুপুরেও তিনি বাড়িতে ছিলেন না। ওই পুলিশকর্মী মোটরবাইক নিয়ে তাদের বাড়ি যান।

মাঝপথে ট্রেন থামিয়ে চালকের মূত্র ত্যাগ!

কাগজ ডেস্ক : বছর দুয়েক আগে সিগারেট কেনার জন্য ট্রেন থামিয়ে দিয়েছিলেন বাংলাদেশের এক চালক। মাঝপথে একটা দোকান দেখে হুট করে ট্রেন থামান তিনি। তারপর সিগারেট কিনে আবার উঠে আসেন। এ নিয়ে সমালোচনার ঝড় ওঠে সে সময়। এবার ঠিক এ রকম ঘটনায় ঘটল ভারতের মুম্বাইয়ে। ১৭ জুলাই বিকেলে ঠিকঠাকভাবেই চলছিল ট্রেন। ইঞ্জিন বা অন্য কোনো ঝামেলা ছিল না। কিন্তু হুট করেই মুম্বাইয়ের উলাসনগর ও ভিঠলবাড়ি স্টেশনের মাঝামাঝি একটা জায়গায় সেটি থেমে যায়। মাঝপথে এভাবে অকারণ ট্রেন থামতে দেখে যাত্রীরা অবাক হয়। ঠিক এ সময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন সোনু শিন্ডে নামের এক সাংবাদিক। তিনি ট্রেনের হঠাৎ দাঁড়িয়ে পড়া দেখে প্রথমে অবাক হয়েছিলেন। তারপর সামনে যেতেই বিষয়টি তার কাছে পরিষ্কার হয়। তিনি দেখেন, ট্রেন থামানোর পর নিচে নামেন চালক। তারপর ট্রেনের সামনে গিয়ে মূত্র ত্যাগ করে আবার উঠে আসেন। ট্রেন থামিয়ে ওই চালকের মূত্র ত্যাগের ভিডিও করেন সাংবাদিক সোনু শিন্ডে।

বিয়ের ২৪ ঘèার মধ্যে স্ত্রীকে তিন তালাক

কাগজ ডেস্ক : বিয়ের ২৪ ঘণ্টা যেতে না যেতেই স্ত্রীকে তিন তালাক দিয়ে দিলেন স্বামী। ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের উত্তরপ্রদেশের জাহাঙ্গীরাবাদে। গত ১৩ জুলাই রুকসানা বানো নামে ওই নারীকে বিয়ে করেছিলেন শাহে আলম। সেই বিয়েতে রুকসানার পরিবারের কাছে পণ হিসেবে মোটরবাইক চেয়েছিলেন তিনি। কিন্তু বিয়ের দিন তার সেই দাবি মেটাতে পারেনি রুকসানার পরিবার। সেজন্য আলম বিয়ের দিনই তার স্ত্রীকে তালাক দেন। তিন তালাক নিয়ে বিগত বছরগুলোতে আলোচনার ঝড় উঠে ভারতীয় রাজনীতিতে। ২০১৭তে এই প্রথাকে অসাংবিধানিক অ্যাখ্যাও দিয়েছিলেন দেশটির শীর্ষ আদালত।

যৌন হয়রানি করা শিক্ষককে বিবস্ত্র করে পিটুনি

কাগজ ডেস্ক : ছাত্রীদের যৌন হয়রানি এবং তাদের সঙ্গে অশালীন আচরণ করার অভিযোগে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের এক শিক্ষককে বিবস্ত্র করে পিটিয়েছে উত্তেজিত জনতা। তারপর ওই শিক্ষককে বিবস্ত্র অবস্থায় পুলিশের হাতে সোপর্দ করা হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের বাঁকুড়া জেলায়। কলকাতার বাংলা ভাষার গণমাধ্যমগুলোর প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, অভিযুক্ত শিক্ষকের নাম শেখ ফিরোজ খান। অনেক দিন ধরেই তিনি বিদ্যালয়টির শিক্ষার্থীদের যৌন হেনস্থা করে আসছেন। তার বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নিতেই অভিভাবকরা তাকে এমন শাস্তি দিয়েছেন। ইন্দাস বালিকা প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে অভিযোগ, তিনি দীর্ঘ ছয় মাস ধরে শিক্ষার্থীদের সঙ্গে এমনটা করছিলেন। অভিভাবকরা বিদ্যালয়টির প্রধান শিক্ষককে বিষয়টি অবহিত করলেও পরিস্থিতির কোনো পরিবর্তন আসেনি।

দূরের জানালা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj