টানা পাঁচ দিন পতন পুঁজিবাজারে

শুক্রবার, ১২ জুলাই ২০১৯

কাগজ প্রতিবেদক : আরো তলানিতে দেশের পুঁজিবাজার। গতকাল বৃহস্পতিবারও পতনে শেষ হয়েছে পুঁজিবাজারের লেনদেন। এ নিয়ে টানা ৫ কার্যদিবস পতন হয়েছে পুঁজিবাজারে।

গতকাল বৃহস্পতিবার উভয় পুঁজিবাজারের সব সূচক কমেছে। একই সঙ্গে কমেছে লেনদেনে অংশ নেয়া বেশির ভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট দর এবং টাকার পরিমাণে লেনদেনও। ঢাকা ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই ও সিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

জানা গেছে, গতকাল ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ৮ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ৫ হাজার ২২২ পয়েন্টে। অপর দুই সূচকের মধ্যে শরিয়াহ সূচক ৪ পয়েন্ট ও ডিএসই-৩০ সূচক ৩ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে যথাক্রমে ১১৯৪ ও ১৮৫৭ পয়েন্টে।

ডিএসইতে গতকাল ৩৫১ কোটি ৮ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। আগের দিন লেনদেন হয়েছিল ৪০৮ কোটি টাকার। অর্থাৎ ডিএসইতে লেনদেন ৫৭ কোটি টাকা কম হয়েছে।

ডিএসইতে গতকাল ৩৫৩টি প্রতিষ্ঠান শেয়ার ও ইউনিট লেনদেনে অংশ নিয়েছে। এসব প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ১০৮টির বা ৩০ শতাংশের শেয়ার ও ইউনিট দর বেড়েছে। দর কমেছে ২১৯টির বা ৬২ শতাংশের এবং ২৬টি বা ৭ শতাংশ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট দর অপরিবর্তিত রয়েছে।

টাকার অঙ্কে ডিএসইতে সবচেয়ে বেশি লেনদেন হয়েছে ন্যাশনাল লাইফ ইন্স্যুরেন্সের। এ দিন কোম্পানিটির ১৮ কোটি ৮৯ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। লেনদেনে দ্বিতীয় স্থানে উঠে আসা ফেডারেল ইন্স্যুরেন্সের ১০ কোটি ৬৪ লাখ টাকার এবং ৮ কোটি ৮০ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেনের মাধ্যমে তৃতীয় স্থানে উঠে আসে গ্রামীণ ফোন।

ডিএসইর টপটেন লেনদেনে উঠে আসা অন্য কোম্পানিগুলোর মধ্যে রয়েছে : রূপালী ইন্স্যুরেন্স, মুন্নু সিরামিক, ইউনাইটেড পাওয়ার, এশিয়ান টাইগার সন্ধানী লাইফ গ্রোথ ফান্ড, রানার অটোমোবাইলস, সিনোবাংলা এবং ন্যাশনাল টিউবস।

অপর পুঁজিবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক সূচক সিএএসপিআই এ দিন ৫৩ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ১৫ হাজার ৯৭৬ পয়েন্টে। এ দিন সিএসইতে হাতবদল হওয়া ২৬৩টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে শেয়ার দর বেড়েছে ৬৬টির, কমেছে ১৭৩টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ২৪টির দর। আজ ১২ কোটি ২১ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে।

অর্থ-শিল্প-বাণিজ্য'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj