রোডসের আনুষ্ঠানিক বিদায়

শুক্রবার, ১২ জুলাই ২০১৯

খেলা প্রতিবেদক : অন্তত সেমিফাইনালে খেলার প্রত্যাশা নিয়ে দ্বাদশ বিশ^কাপে অংশ নিতে যায় মাশরাফি বিন মুর্তজার নেতৃত্বাধীন বাংলাদেশ দল। কিন্তু সে প্রত্যাশা পূরণ হয়নি। পয়েন্ট টেবিলের অষ্টম স্থানে থেকে লিগ পর্ব শেষ করতে হয়েছে টাইগারদের। ব্যর্থতার দায় নিজের কাঁধে নিয়েছেন অধিনায়ক মাশরাফি। তবুও সমালোচনা তার পিছু ছাড়ছে না। বিশ^কাপের একটি ম্যাচেও নিজেকে ঠিকভাবে মেলে ধরতে পারেননি ক্যাপ্টেন ম্যাশ। মাশরাফি যে ভালো করতে পারবেন না তা আগে থেকেই বুঝতে পেরেছিলেন বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। এ সময় কাগজে-কলমে স্টিভ রোডসই এখনো টাইগারদের কোচ বলে জানিয়েছেন তিনি। ইংল্যান্ডে চলমান ইন্টার পার্লামেন্টারি বিশ^কাপের ম্যাচ চলাকালে সাংবাদিকদের কাছে এসব কথা জানান পাপন। তবে পাপন এ কথা বললেও গতকাল আনুষ্ঠানিকভাবে স্টিভ রোডসের বিদায়ের বিষয়টি নিশ্চিত করেছে বিসিবি। বিদায়কালে অবশ্য কিছুই বলেননি রোডস। তার এই নীরবে চলে যাওয়ার ঘটনায় তৈরি হয়েছে নানান রহস্য।

দ্বাদশ বিশ^কাপে ৮ ম্যাচে মাত্র ১টি উইকেট পেয়েছেন মাশরাফি। এ ছাড়া ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচ ব্যতীত আর কোনো ম্যাচেই নড়াইল এক্সপ্রেস হিসেবে খ্যাত এই পেসার নিজের ১০ ওভারের কোটা পূর্ণ করতে পারেননি। এমন হতাশাজনক পারফরমেন্সের কারণে ম্যাশের সমালোচনায় মেতে উঠেছেন অনেকে। এ বিষয়ে নাজমুল হাসান পাপনের অভিমত, আমরা কিন্তু আগে থেকেই জানতাম যে মাশরাফি বিশ^কাপে প্রত্যাশা অনুযায়ী পারফর্ম করতে পারবে না। আর না পারারই কথা। এ ধরনের কন্ডিশন ও পিচে সে ভালো বল করবে এটা আমরা আশাও করিনি। সে ইনজুরিতে ছিল। আয়ারল্যান্ডে অনুষ্ঠিত হওয়া ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনাল ম্যাচ থেকেই তার সঙ্গী গ্রেড টু টিয়ার।

এ সময় ইনজুরি সমস্যার কারণে মাশরাফিকে শেষ দুই ম্যাচে না খেলানোর কথাও ভেবেছিলেন বলে জানিয়েছেন পাপন। তার ভাষায়, আমি মাশরাফিকে বিশ্রাম নিতে বলেছিলাম। এ বিষয়টি নিয়ে তার সঙ্গে আমার কয়েকবার কথাও হয়েছিল। কিন্তু সে লড়াকু। তার মনে হয়েছে, আমি সারা জীবন দেশের জন্য লড়াই করেছি। আর এখন বিশ^কাপের শেষ দুই ম্যাচে বিশ্রাম নেব তা হতে পারে না। আমি তো সবসময় ইনজুরি নিয়েই খেলি।

আগের দিন সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপের এক পর্যায়ে কোচ স্টিভ রোডসের বিদায়ের বিষয়ে পাপন বলেছিলেন, তাকে বাদ দেয়া হয়নি। তার সঙ্গে আমাদের অনেক কিছু নিয়ে কথা হয়েছে। আমরা আমাদের চিন্তা-ভাবনা তাকে জানিয়েছি। তিনি আমাদের ভাবনার সঙ্গে একমত হননি। তাই আমরা ধরে নিয়েছি যে রোডস আর থাকবেন না। এখন সিদ্ধান্তটা রোডসের ওপর নির্ভর করছে। আমি তার সিদ্ধান্ত শোনার অপেক্ষায় আছি। গতকাল বিসিবি ভবনে এসেছিলেন স্টিভ রোডস। এ সময় সাংবাদিকদের সঙ্গে কোনো কথা না বলে সরাসরি চলে যান বিসিবির প্রধান নির্বাহীর কক্ষে। কিছুক্ষণ পর বিসিবি ভবন ত্যাগ করেন তিনি। যাওয়ার সময়ও রোডস কোনো কথা বলেননি। এরপর বিসিবির পক্ষ থেকে জানানো হয় যে, পারস্পরিক সমঝোতার মাধ্যমেই এই বিচ্ছেদ। এ সময় রোডস কেন কোনো কথা বলেননি এ বিষয়ে বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দিন চৌধুরী জানান, এটি তার ব্যক্তিগত ব্যাপার। একটি সম্পর্কের যখন ইতি ঘটে তখন স্বাভাবিকভাবেই বিভিন্ন ধরনের ব্যাখ্যা উঠে আসে। তিনি হয়তো এসব বিষয় এড়াতে চেয়েছেন। এ সময় রোডসের বিসিবি ভবনে আসা প্রসঙ্গে নিজামউদ্দিন চৌধুরী বলেন, এটা কেবল আনুষ্ঠানিকতা ছিল। কিছু আনুষঙ্গিক বিষয় ছিল, অভ্যন্তরীণ প্রক্রিয়া। সেগুলো আমরা শেষ করলাম।

এদিকে এই মাসের শেষদিকেই শ্রীলঙ্কা সফর। হাতে মাত্র ২ সপ্তাহের মতো সময় বাকি। এরই মধ্যে কি রোডসের জায়গায় নতুন কোচ নিয়োগ দেয়া হবে? নাকি তাকে আনুষ্ঠানিকভাবে বিদায় করে দিয়ে অন্তর্বর্তীকালীন কোচের অধীনেই শ্রীলঙ্কা সফরে যাবে মাশরাফির দল- তা নিয়ে এখন বাংলাদেশের ক্রিকেট পাড়ায় চলছে আলোচনা। এ ছাড়া সাবেক কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহকে আবার ফিরিয়ে আনার চেষ্টা চালাচ্ছে বিসিবি এমন কথাও শোনা যাচ্ছে।

খেলা-ধূলা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj