বন্দুকযুদ্ধে টেকনাফে মাদক ব্যবসায়ী নিহত

শুক্রবার, ১২ জুলাই ২০১৯

শাহীন শাহ, টেকনাফ (কক্সবাজার) থেকে : টেকনাফে পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে মাদক ব্যবসায়ী আব্দুল মালেক (৩৮) নিহত হয়েছেন। তিনি সদর ইউনিয়নের পুরাতন পল্লনপাড়া এলাকার মৃত মকবুল আহমদের ছেলে।

গত বুধবার রাতে টেকনাফ সদর ইউনিয়নের উত্তর লেঙ্গুরবিল মালির মাঠছড়া পাহাড়ের পাদদেশে এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। ঘটনাস্থল থেকে দুটি এলজি, ১৩ রাউন্ড তাজা কার্তুজ, ২১ রাউন্ড কার্তুজের খোসা এবং পাঁচ হাজার ইয়াবা উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় পুলিশের তিন সদস্য আহত হন।

টেকনাফ থানার ওসি প্রদীপ কুমার দাস জানান, বুধবার রাত ১০টার দিকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে থানায় দায়িত্বরত এসআই স্বপন চন্দ্র দাসের নেতৃত্বে একদল পুলিশ বাস টার্মিনালের সম্মুখে প্রধান সড়ক থেকে আব্দুল মালেককে গ্রেপ্তার করে। আটককৃত মালেককে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, লেঙ্গুরবিল পাহাড়ের পাদদেশে ইয়াবার একটি বড় চালান মজুদ রয়েছে। রাত ১২টার দিকে তাৎক্ষণিকভাবে পুলিশের একটি দল ওই ইয়াবার বড় চালানটি উদ্ধারে বর্ণিত স্থানে পৌঁছে। এ সময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে আব্দুল মালেকের সহযোগী ও অস্ত্রধারী ইয়াবা ব্যবসায়ীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছুড়তে থাকে। এতে এএসআই রামধন চন্দ্র দাস, কনস্টেবল আব্দুল শুক্কুর ও রাজু মজুমদার আহত হন। নিজেদের জীবন ও সরকারি সম্পদ রক্ষার্থে পুলিশও পাল্টা গুলি ছোড়ে। পুলিশের পক্ষ থেকে ৫০ রাউন্ড গুলি চালানো হয়। একপর্যায়ে আটককৃত ওই যুবক গুলিবিদ্ধ হয়। গুলিবিনিময়ের কিছুক্ষণ পর অস্ত্রধারীরা পিছু হটে যায়। ঘটনাস্থলে ব্যাপক তল্লাশি চালিয়ে অস্ত্র ও ইয়াবা উদ্ধার করা হয়। গুলিবিদ্ধ যুবককে টেকনাফ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে দায়িত্বরত চিকিৎসক তাকে দ্রুত কক্সবাজার সদর হাসপাতালে রেফার করেন। এসআই কামরুজ্জামান সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। তার বিরুদ্ধে অস্ত্র ও মাদকের ৬টি মামলা রয়েছে বলে জানান ওসি। তিনি আরো জানান, আহত তিন পুলিশ সদস্য টেকনাফ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন। এ ঘটনায় মামলার প্রক্রিয়া চলছে।

স্থানীয়ভাবে জানা যায়, আব্দুল মালেক পেশায় রাজমিস্ত্রির আড়ালে মাদকের ব্যবসায় জড়িয়ে পড়েছিলেন।

শেষ পাতা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj