উচ্চশিক্ষায় লাতভিয়া

বৃহস্পতিবার, ১১ জুলাই ২০১৯

শিক্ষার দিক দিয়েও লাতভিয়া বেশ উন্নতি করেছে। এ ছাড়াও, পড়াশোনা এবং জীবনযাত্রার খরচ ইউরোপের অন্য দেশের তুলনায় কম। এই কারণে বর্তমানে লাতভিয়া আন্তর্জাতিক শিক্ষার্থীদের কাছে বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় স্থানগুলোর মধ্যে একটি।

লাতভিয়ায় অনেক জনপ্রিয় বিশ্ববিদ্যালয় আছে। তার মধ্যে উল্লেখ্যযোগ্য কয়েকটি হলো- ইউনিভার্সিটি অব লাতভিয়া, রিগা টেকনিক্যাল ইউনিভার্সিটি, ট্রান্সপোর্ট অ্যান্ড টেলিকমিউনিকেশন ইন্সটিটিউট, ডাওগাভপিলস ইউনিভার্সিটি, লাতভিয়া ইউনিভার্সিটি অব এগ্রিকালচার।

যে সব বিষয় পড়ানো হয় : ইনফরমেশন অ্যান্ড টেকনোলোজি, হেলথ ম্যানেজমেন্ট, বিজনেস ম্যানেজমেন্ট, অ্যাভিয়েসন ট্রান্সপোর্ট, কম্পিউটার সিস্টেম, মেডিসিন, কেমিস্ট্রি, ইলেক্ট্রিক্যাল টেকনোলজি, টেলিকমিউনিকেশন, ফুড সায়েন্স, সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং, রিয়েল এস্টেট, কন্সট্রাকশন ম্যানেজমেন্ট, টেকনিক্যাল ট্রান্সলেশন, এগ্রিকালচারসহ আরো নানা বিষয়ে উচ্চশিক্ষা গ্রহণের সুযোগ রয়েছে। ইউরোপীয় অন্য দেশের মতো লাতভিয়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতেও অনার্স, মাস্টার্স এবং পিএইচডি পর্যায়ে বিভিন্ন কোর্স রয়েছে। সেখানে অনার্স কোর্সের মেয়াদ তিন থেকে চার বছর, মাস্টার্স কোর্স এক থেকে দুই বছর এবং পিএইচডি তিন থেকে চার বছর মেয়াদি হয়। লাতভিয়াতে ২০০ এর বেশি ইংরেজি কোর্স রয়েছে।

উন্নত শিক্ষা ব্যবস্থা : লাতভিয়া ইউরোপের সুন্দর দেশের মধ্যে একটি। এদেশের পড়াশোনার মানও ভালো। প্রায় সব বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর রয়েছে অনেক বড় ক্যাম্পাস। এখানকার সব শিক্ষার্থী পড়াশোনার প্রতি খুবই মনোযোগী। লাইব্রেরিতে সবসময় শিক্ষার্থীদের ভিড় লেগেই থাকে। লাতভিয়ার শিক্ষা ব্যবস্থা আমাদের দেশের মত মুখস্ত বিদ্যার উপর নির্ভরশীল নয়, এখানে সবকিছু হাতে কলমে শেখানো হয়। এ ছাড়াও, রয়েছে স্কলারশিপের সুবিধা।

কাজের সুযোগ : লাতভিয়াতে বিদেশি শিক্ষার্থীদের সপ্তাহে ২০ ঘণ্টা কাজের অনুমতি দেয়া হয়। গ্রীষ্মকালে তিনমাস বন্ধ থাকে, তখন চাইলে ফুল টাইম কাজ করতে পারবেন। বিদেশি শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন রেস্তোরা, ইলেকট্রনিক্সের দোকান ও শিল্প কারখানায় কাজ করতে পারেন। এ ছাড়াও, লাতভিয়ার বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় গ্রীষ্মকালে শিক্ষার্থীদের ইন্টার্নশিপের সুযোগ প্রদান করে থাকে। ইন্টার্নশিপের মাধ্যমেও বাড়তি কিছু টাকা আয় করতে পারেন।

আবাসন সুবিধা : লাতভিয়াতে উচ্চশিক্ষার জন্য যেতে চাইলে, আবাসন নিয়ে তেমন একটা মাথা ঘামাতে হবে না। কারণ অধিকাংশ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান থেকেই আবাসন সুবিধা দেয়া হয়। বেশিরভাগ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের থাকার জন্য হোস্টেল আছে। তবে যদি হোস্টেলে থাকতে না চান বা সিট না পান তাহলে অন্য কোনো হোস্টেল বেছে নিতে পারেন অথবা আলাদা বাসা ভাড়া নিতে পারেন।

পড়াশোনা ও জীবনযাত্রার খরচ কম : লাতভিয়ার জীবনযাত্রা ও পড়াশোনার খরচ কম ইউরোপের অন্য দেশের তুলনার কম। টিউশন ফি নির্ভর করে ইউনিভার্সিটি ও সাবজেক্টের উপর। বিজনেস স্টাডিজ অ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট সায়েন্সে টিউশন ফি প্রায় ২ হাজার থেকে ৬ হাজার ইউরো, ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড টেকনোলোজি এবং ম্যাথমেটিক এবং ইনফরমেশন কোর্সের টিউশন ফি প্রায় ২ হাজার থেকে ৪ হাজার ইউরো হতে পারে।

তবে মেডিকেল সায়েন্সে পড়াশোনা করলে টিউশন ফির পরিমান একটু বেশি হবে। মেডিকেল সায়েন্সের ক্ষেত্রে টিউশন ফি ৭ হাজার থেকে ১৫ হাজার ইউরো পর্যন্ত হয়। জীবনযাত্রার খরচ খুব বেশি না।

:: ক্যাম্পাস ডেস্ক

ক্যাম্পাস'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj