চাকরিতে উচ্চপদে

রবিবার, ৭ জুলাই ২০১৯

স্বপ্নের চাকরি একবারে পাওয়া যায় না। তার জন্য যথেষ্ট কাঠ খড় পোড়াতে হয়। বুদ্ধিমান চাকরিপ্রার্থীরা স্বপ্নের চাকরি পাওয়ার আগ পর্যন্ত চুপচাপ ঘরে বসে থাকেন না। যে কোনো পদে সুযোগ পেলেই ঢুকে যান। তারপর ক্রমশ নিজেকে আরও প্রস্তুত করে এবং স্বপ্নের চাকরির জন্য চেষ্টা করেন। এমন চাকরি প্রার্থীর সংখ্যা আমাদের চারপাশে অনেক আছে, যারা সুযোগ পেলে বর্তমান চাকরি ছেড়ে আরো উচ্চপদে নিজেকে আসিন করতে চায়।

জীবনবৃত্তান্ত হালনাগাদ

নতুন চাকরি বা আরো উচ্চপদে চাকরি প্রাপ্তির জন্য সর্বপ্রথম আপনার জীবনবৃত্তান্ত হালনাগাদ করুন। উচ্চপদে চাকরি পাওয়ার জন্য বলা যায়, এটি সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ। এমনকি আপনি যদি নতুন চাকরি পাওয়ার ব্যাপারে মরিয়া নাও হয়ে থাকেন, তবুও আপনার জীবনবৃত্তান্ত হালনাগাদ করুন এবং সব সময় আপডেট রাখুন।

নিখুঁত নির্বাচন

আপনি নিশ্চয়ই এরপর আরো উচ্চপদে চাকরি করতে চান। সুতরাং বর্তমান চাকরির চেয়ে উচ্চ মর্যাদাসম্পন্ন চাকরি খুঁজে পেতে নিখুঁত নির্বাচনকারী হোন। বাজারে যখনই নতুন কোনো চাকরির বিজ্ঞাপন প্রচার করা হয়, তখন ভালোভাবে পর্যবেক্ষণ করুন এবং নিজের বর্তমান চাকরির সঙ্গে তুলনা করে দেখুন এখানে আবেদন করা আপনার জন্য যৌক্তিক কিনা।

নতুন কোম্পানির কর্মীর সঙ্গে আলাপ

নতুন কোম্পানির চাকরি আপনার কাছে লোভনীয় হতে পারে। কিন্তু কোনভাবেই অন্ধ বিশ্বাস এবং আবেগপ্রবণ হয়ে চাকরির আবেদন করবেন না। নতুন কোম্পানির কাজের পরিবেশ, এবং অভ্যন্তরীণ অবস্থা বোঝার জন্য উক্ত কোম্পানীর কোনো একজন কর্মীর সাথে কথা বলার চেষ্টা করুন।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম হালনাগাদ

নতুন চাকরিতে আবেদন করার পূর্বে আপনার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের অ্যাকাউন্টগুলো হালনাগাদ করুন। হয়তো বর্তমান কোম্পানিতে অল্প কিছুদিন চাকরি করছেন এবং এখানে থাকাকালীন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের অ্যাকাউন্ট নিয়ে বিশেষ কিছু ভাবেননি। তাই বলে নতুন চাকরির নিয়োগকারীরা যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম পর্যবেক্ষণ করবে না এটা নিশ্চিত করে বলা যায় না। সাধারণত গুরুত্বপূর্ণ পদে নিয়োগের ক্ষেত্রে আবেদনকারীর সব তথ্য পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে মূল্যায়ন করা হয়।

সাক্ষাৎকারের কৌশল অনুশীলন

সর্বশেষ চাকরির সাক্ষাৎকার দেয়ার পর হয়তো অনেকগুলো বছর পার হয়েছে। বর্তমান ক্ষেত্রে ৪/৫ বছর কাজ করছেন। সুতরাং এই সময়ের মধ্যে নতুন কোথাও চাকরির সাক্ষাৎকার দেয়ার প্রয়োজন হয়নি। কিন্তু এই সময়ের মধ্যে পারিপার্শ্বিক অনেক কিছুর পরিবর্তন হয়েছে।

চাকরির সাক্ষাৎকারেও এসেছে অভিনবত্ব। সুতরাং নিজেকে সেরা আবেদনকারী প্রমাণ করতে চাকরির সাক্ষাৎকারের কৌশল নতুন করে অনুশীলন করুন। সা¤প্রতিক সময়ে চাকরির সাক্ষাৎকার দিতে গেলে কেমন প্রশ্ন জিজ্ঞেস করা হতে পারে সে ব্যাপারে গবেষণা করুন।

ফ্যাশন (ট্যাবলয়েড)'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj