জাতিসংঘ : আতঙ্কে রেখে ক্ষমতায় থাকতে চান মাদুরো

শনিবার, ৬ জুলাই ২০১৯

কাগজ ডেস্ক : ভেনেজুয়েলার সরকার জনমনে আতঙ্ক তৈরি করে এবং বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ডের মাধ্যমে ক্ষমতায় টিকে থাকতে চায় বলে জানিয়েছে জাতিসংঘ। ভেনেজুয়েলাকে অর্থনৈতিক, সামাজিক, নাগরিক, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক অধিকার লঙ্ঘনের এই পরিস্থিতি থামানোর আহ্বান জানায় সংস্থাটি। ২০১৫ সাল থেকে খাবার ও চিকিৎসার অভাবে সৃষ্ট মানবিক সংকট থেকে বাঁচতে ৪০ লাখ ভেনেজুয়েলান দেশত্যাগে বাধ্য হয়েছে। নির্বাচনী কারচুপির অভিযোগ আর অর্থনৈতিক সংকটের বিরুদ্ধে এ বছরের শুরুতে ভেনেজুয়েলায় বিক্ষোভ শুরু হয়। বিক্ষোভের সুযোগে ২৩ জানুয়ারি নিজেকে অন্তর্বর্তীকালীন প্রেসিডেন্ট ঘোষণা করেন বিরোধীদলীয় নেতা হুয়ান গুইদো। প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরোর সরকারকে অবৈধ দাবি করে নিজেকে বৈধ অন্তর্বর্তী প্রেসিডেন্ট ঘোষণা করেন তিনি। এক ভিডিও বার্তায় আকস্মিক অভ্যুত্থানের ঘোষণা দেন গুইদো। ভিডিওতে তার সঙ্গে সামরিক বাহিনীর বেশ কয়েকজন সদস্যকেও দেখা যায়। এই অভ্যুত্থানে সমর্থন ঘোষণা করে যুক্তরাষ্ট্র। পরে কথিত ওই অভ্যুত্থান প্রচেষ্টা নস্যাতের ঘোষণা দেন প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরো। তিনি বলেন, ভেনেজুয়েলা কখনোই সাম্রাজ্যবাদী শক্তির কাছে মাথানত করবে না।

শুক্রবার জাতিসংঘ মানবাধিকার পরিষদের কাছে প্রকাশিত এই প্রতিবেদন তৈরির জন্য ৫৫৮টি সাক্ষাৎকার নেয়া হয়েছে। গত বছর বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ডের সংখ্যা ছিল ৫ হাজার ২৮৭ জন। আর চলতি বছর এখন পর্যন্ত এই সংখ্যা ১ হাজার ৫৬৯ জন। এক প্রতিবেদনে জাতিসংঘ জানায়, পুলিশ অপরাধীদের আটক করে গুলি করে এবং ঘটনা এমনভাবে উপস্থাপন করে যেন মনে হয় আসামি পুলিশের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ করেছিল। বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ডের সংখ্যা বিস্ময়কর।

জাতিসংঘ জানায়, তারা দেখেছে যে কীভাবে স্পেশাল অ্যাকশন ফোর্সেস অপরাধকে সাজায়। তারা নিজেরাই অস্ত্র রেখে দিয়ে গুলি চালায় এবং দাবি করে তাদের ওপর গুলি চালানো হয়েছিল। এ ছাড়া ওই প্রতিবেদনে সামাজিক ও অর্থনৈতিক অধিকারের কথাও তুলে ধরা হয়। সরকারের বিচারব্যবস্থা নিয়েও প্রশ্ন ওঠে। জাতিসংঘ জানায়, দেশটিতে খাবার ও স্বাস্থ্য অধিকারসহ সামাজিক ও অর্থনৈতিক অধিকার যে ক্ষুণœ হচ্ছে সেটা বিশ্বাস করার জন্য যথেষ্ট কারণ রয়েছে। এখনো এই প্রতিবেদনের কোনো জবাব দেননি নিকোলাস মাদুরো সরকার। তবে এর আগে মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগকে মিথ্যা বলে দাবি করেছিলেন তিনি।

দূরের জানালা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj