ভালোবাসা জেনো পৃথিবী!

শনিবার, ৬ জুলাই ২০১৯

মো. বোরহান উদ্দিন

যাপিত জীবনে আহ্নিক ঘুরেফিরে পূর্ণ করে বছরের পারা। মাঝে মাঝে ভাবনায় হানা দেয় তবে কী এটা বুড়িয়ে যাওয়ার বার্তা! তার বিপরীতে দাঁড়িয়ে ভাবী আশার সলতেটা বরং পাকাই হোক।

এই তো জীবন।

এভাবেই চলছি।

অন্যান্য বছরের মতো এবারো চেয়েছিলাম জন্মদিনটা শুধু নিজেকে নিজের ভাবনায় রেখে কাটিয়ে দেব। তা আর হলো কই!

এই অন্তর্জাল আমার সে ভাবনায় ছেদ ঘটিয়েছে। বান্ধব স্বজনরা তা হতে দেয়নি। আয়োজনের বাড়বাড়ন্ত দিয়ে ভরিয়ে দিয়েছে বিশেষায়িত দিনটিকে। তাই কৃতজ্ঞতা সবাইকে। ব্যস্ত জীবনের সামান্য ফুরসতে প্রিয় পাঠক ফোরামের ঈদ পুনর্মিলনী আয়োজন ছিল ২৮ জুন (দিনটি আমার জন্মদিনও বটে)। অনেক কষ্টেও লুকিয়ে রাখা যায়নি জন্মতিথির ঘোষণা। অগত্যা ওখানেই আমাকে সাজতে হয়েছে ‘বার্থডে বয়’। এর পেছনে কলকাঠি নাড়ানো তাহমিনা নূর বহ্নি তোমার প্রতি অনুযোগ যেটুকু ছিল মনে মনে; তা প্রত্যাহার করে নিলাম। দিনশেষে আমি যে হৃদ্যতায় সিক্ত বন্ধুত্বের বরিষণে! ওমর ফারুক দোলা ভাই আপনার ফুলেলে শুভেচ্ছা থাকল মনের মণিকোঠায়। শেখ শামীমা নাসরীন পলি-রেজাউর রহমান সবুজ আপনাদের স্মারকটা মাথার তাজ হলো- এই ভাইটির প্রতি ভালোবাসা প্রকাশের আকুলিবিকুলিতে। মুফতে ‘পোস্টমর্টেম’-এর কপি পাওয়া বিরল সৌভাগ্যবান হওয়া হলো মেসবাহ য়াযাদ ভাইয়ের বদন্যতায়। চুপিসারে কেক সজানো দন্ত্যস সফিক, কাজী সেলিম উদ্দিন ভাই তোমাদের (কিংবা বলতে পারি আপনাদের) প্রীতি অগ্রাহ্য করার স্পর্ধা করার কোনো ফুরসত থাকতে পারে না কিছুতেই। আর এদেরই আন্তরিক আয়োজনে শ্রদ্ধাভাজন শ্যামল দা’র হাতে জন্মদিনের কেক উদ্বোধন, প্রণম্য ভোলা নাথ পোদ্দার, মুকুল শাহরিয়ার, গিয়াস আহমেদ- আপনাদের আতিথ্য স্মৃতিঘরে নতুন শোপিস হলো। মমিনুল ইসলাম লিটন, ঈশান মাহমুদ আপনারাও কম ঋদ্ধ করেননি এই আয়োজন। মোর্জিনা মতিন কবিতা, জাহান পন্না কিমি আপনাদের প্রোজ্জ্বল উপস্থিতিতে মুগ্ধ না হয়ে পারি না। প্রাণের স্বজনদের প্রতি এই মুগ্ধতা জানান দিয়ে রাখলাম। সতীর্থ হাবিব আপনিও তার বাইরে নন। অঞ্জন দা ভালোলাগা আর ভালোবাসার যে অনুরণন জাগানিয়া ব্যাখ্যায় জন্মতিথির শুভেচ্ছাবার্তা দিলেন, তা মনে থাকবে বাকি জীবন। সুব্রত শেখর ভক্ত, সজীব কালাম ভাই, নাদিম আহমেদ-শাহরিয়া তামান্না কী অসাধারণ মুগ্ধতার আবেশ ছড়ালেন সে দিন! সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা। আমাদের অঙ্গনে নবীন ইমরান হোসেন, মো. রুবেল, কামরুল ইসলাম, মো. আব্দুস সালাম শাওন, জাহেদুল করিমসহ এক ঝাঁক তরুণের প্রতিও থাকল মুগ্ধতা।

আর দিনটিকে ঘিরে আমার স্বজন, বান্ধব, সহপাঠী, সতীর্থ, সহকর্মী যারা ভালোবাসা জানিয়েছেন, প্রীতিমুগ্ধ করেছেন; সবাইকে শুভেচ্ছা। পাপন বড়–য়া শাকিল আগের রাতেই ফোন করে বুঝিয়ে দিলি কতটা নৈকট্য আমাদের।

আমার টাইমলাইনে এসে লিখেছেন আমার কিছু আত্মীয়-পরিজন (যারা আমার ফেসবুক ফ্রেন্ডলিস্টে নেই), আমার সহপাঠীরা (স্কুল, কলেজ, ভার্সিটির বন্ধুরা; যাদের সঙ্গে কাটিয়েছি শৈশব, কৈশোর আর তারুণ্যের সোনালুরঙা দিন)। আমার প্রাণের পাঠক ফোরামের সতীর্থরা দেশের বিভিন্ন প্রান্ত ছাড়িয়ে পরবাস থেকেও জানিয়েছে ভালোবাসার প্রকাশ। তাদের কাছে আমার যত মনন ঋণ। লিখেছেন, শুভেচ্ছা জানিয়েছেন কিছু প্রিয় মিডিয়া কর্মী। পারলে সবার নাম ধরে ধরে লিখতাম, সব্বার দুয়ারে করাঘাত করে ভালোবাসার বচন জানাতাম।

আর আমার পরিবার, আত্মার কাছের যারা রয়েছেন (এরা কখনোই আমার লেখালেখির ক্ষেত্রে কিংবা ভার্চুয়াল জগতের বান্ধব হননি); তাদের জন্য প্রেমসিক্ততা থাকল মনে মনে।

ভালোবাসা জেনো পৃথিবী!

:: পাফোস-১০৫০০, সদর মা দিঘী মীরসরাই, চট্টগ্রাম।

পাঠক ফোরাম'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj