পড়া মনে থাকবে সহজে

বৃহস্পতিবার, ৪ জুলাই ২০১৯

বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের ক্ষেত্রে দেখা যায়, তারা পরীক্ষার আগের রাতেই পড়তে বসেন। এর আগে চলে শর্টকাট সাজেশনের খোঁজ। সারা রাত ধরে পড়াশোনা করে সকালে একরাশ স্ট্রেস নিয়ে পরীক্ষার হলে যাওয়ার ঘটনা নতুন কিছু নয়। এতে গড়ে একটা ভালো ফলাফল ঠিকই করা যায়। কিন্তু একটা নির্দিষ্ট ধারাবাহিকতা ও নিয়ম মেনে পড়াশোনা করলে স্ট্রেস কমে এবং ভালো ফলাফলও করা সম্ভব হয়। অনেকেই পড়া মনে রাখতে পারেন না। এর অন্যতম কারণ হতে পারে একটানা দীর্ঘক্ষণ পড়া। একটানা দীর্ঘক্ষণ অনেক টপিক পড়লে পড়া মনে নাও থাকতে পারে। এজন্য একটা তালিকা করে নিন, কোন বিষয় কতক্ষণ ও কতগুলো অনুশীলনী পড়বেন। কঠিন বিষয়গুলোর সঙ্গে একটা সহজ বিষয় বা আপনার পছন্দের বিষয় মিলিয়ে পড়ুন। পড়া মনে রাখার কৌশল নিয়ে চিন্তা করুন। দিনের কোন সময়টায় পড়বেন, সেটা নির্বাচন করা খুবই জরুরি।

বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়ারা বেশির ভাগই মধ্যরাতে পড়ে অভ্যস্ত। এটা যদি আপনার পড়ার জন্য উপযুক্ত সময় মনে হয়, তাহলে সে সময়ই পড়াশোনা করুন। তবে শরীরের শক্তি ও ফুরফুরেভাব পড়াশোনায় একটা গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। তবে সাধারণত দিনের শুরুতে অর্থাৎ ভোরবেলায় আমাদের শরীরে শক্তি বেশি থাকে। সেক্ষেত্রে পড়াটাও হয় দ্রুত। মোটকথা, আপনি যেভাবে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেন, সেভাবেই সাজান আপনার পড়ার রুটিন। একটানা পড়াশোনা না করে, মাঝে মধ্যে গ্যাপ দিন। একটানা আধঘণ্টার বেশি পড়ার দরকার নেই। এতে মনোযোগ বিক্ষিপ্ত হয়ে পড়ে। প্রতি ঘণ্টায় ৭-১০ মিনিটের একটা বিরতি নিন।

এ ফাঁকে একটু চা খেতে পারেন, বারান্দায় গিয়ে দাঁড়ান বা একটা গান শুনে ফেলতে পারেন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সময় না কাটানোই ভালো। অনেকে সবকিছুই মুখস্থ করতে শুরু করেন। অথচ এখানেই ঘটে বিপত্তি। কিন্তু দীর্ঘসময় ব্যয় করে পড়া মুখস্থ করলেও দেখা যায় অনেক সময় পরীক্ষায় লেখার সময় মনে থাকে না। তাই কিছু পড়া মুখস্থ এবং কিছু আত্মস্থ করতে হবে। তাছাড়া পড়াশোনায় ভালো করতে এবং পড়া মনে রাখতে কমাতে হবে মানসিক স্ট্রেস। নিজেকে মানসিকভাবে ভালোও রাখতে হবে। আর মস্তিষ্ক শান্ত করতে মেডিটেশন ভীষণ উপযোগী। মেডিটেশন মস্তিষ্ককে সতেজ ও চিন্তামুক্ত করে তোলে এবং এর কাজ করার ক্ষমতাকে হাজার গুণ বাড়িয়ে দেয়। তাছাড়া স্মৃতিশক্তি বাড়িয়ে তুলতে মেডিটেশন করে নিতে পারেন। কিছু কিছু টপিক বা প্রশ্ন ও উত্তর রয়েছে, যেগুলো একটু শক্ত ধাঁচের। এমন হলে সেগুলো বারবার পড়ার অভ্যাস গড়ে তুলতে হবে।

:: ক্যাম্পাস ডেস্ক

ক্যাম্পাস'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj