ইতিহাস গড়ল আবাহনী

মঙ্গলবার, ২ জুলাই ২০১৯

আন্তর্জাতিক কিংবা ঘরোয়া ফুটবল প্রতিষ্ঠার পর থেকে কত ম্যাচই না জিতেছে ঢাকা আবাহনী। ঐতিহ্যবাহী ফুটবল ক্লাবটির শো-কেসে শোভা পাচ্ছে অসংখ্য ট্রফি। সেই আবাহনী অধীর আগ্রহে তাকিয়ে ছিল একটি ম্যাচের দিকে। ম্যাচটি ছিল এএফসি কাপের। গত ২৬ জুন গৌহাটির ইন্দিরা গান্ধী স্টেডিয়ামে ভারতের মিনারভা পাঞ্জাবকে ১-০ গোলে হারিয়েছে বাংলাদেশের ক্লাব ঢাকা আবাহনী। আকাশি-নীল জার্সিধারীদের হয়ে জয়সূচক একমাত্র গোলটি করেন মাসিহ সাইঘানি। এই জয়ে প্রথমবারের মতো এএফসি কাপের দ্বিতীয় রাউন্ডের টিকেট পেয়েছে বাংলাদেশের ঐতিহ্যবাহী ক্লাবটি এবং সেইসঙ্গে গড়েছে নতুন ইতিহাস। এবারই প্রথম এএফসি কাপের দ্বিতীয় রাউন্ডে খেলার যোগ্যতা অর্জন করেছে আবাহনী। এর আগে এএফসি কাপ এবং এএফসি প্রেসিডেন্ট কাপ মিলিয়ে সাতবারের ব্যর্থ চেষ্টার পর এই কাক্সিক্ষত সাফল্য পেল কোচ মারিও লেমোসের শিষ্যরা। এই জয় বাংলাদেশের ফুটবলের জন্য দারুণ এক সুখবর। এমনকি বাংলাদেশের ফুটবলারদের জন্য এটা নতুন প্রেরণা। এএফসি কাপের এই জয়ে ৬ ম্যাচে ১৩ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপসেরা হয়ে দ্বিতীয় রাউন্ডের টিকেট পেল আবাহনী। দলটি ৪ ম্যাচে হেরেছে এবং ড্র করেছে একটি ম্যাচ। এ ছাড়া একটি ম্যাচে হেরেছে আকাশি-নীল জার্সিধারীরা। ৬ ম্যাচে ১১ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপ রানার্সআপ হয়েছে ভারতের চেন্নাই এফসি। ৫ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের তৃতীয় স্থানে আছে মিনারভা পাঞ্জাব। এ ছাড়া ৩ পয়েন্ট নিয়ে একেবারে তলানিতে আছে মানাং মার্সিয়াংদি। ‘ই’ গ্রুপের পয়েন্ট টেবিলে সবার উপরে থাকায় প্রথমবারের মতো এএফসি কাপের দ্বিতীয় রাউন্ডে খেলার সুযোগ পেল বাংলাদেশের ক্লাব ঢাকা।

গত বুধবার মিনারভার বিপক্ষে ম্যাচের শুরু থেকেই একের পর এক আক্রমণ করতে থাকে আকাশি-নীল জার্সিধারীরা। তবে কিছুতেই কাক্সিক্ষত গোলের দেখা পাচ্ছিল না তারা। ম্যাচের প্রথমার্ধ শেষ হয় গোলশূন্যভাবে। দ্বিতীয়ার্ধের খেলাও গোলশূন্য সমাপ্তির পথেই এগোচ্ছিল। তবে ভাগ্য বাংলাদেশের ক্লাবটির পক্ষেই ছিল। রেফারি যখন শেষ বাঁশি বাজানোর প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন ঠিক তখনই কাক্সিক্ষত গোলের দেখা পায় আবাহনী।

:: কামরুজ্জামান ইমন

গ্যালারি'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj