একজন আঁকিয়ের গল্প…

রবিবার, ৩০ জুন ২০১৯

এলিগ্যান্ট মেহেদি আর্ট একটি ফেসবুক পেইজ। ২০১৬-তে ঘরোয়া অনুপ্রেরণায় ফেসবুকে পেইজটি চালু হলেও গ্রাহক রেটিং ৫-এ ৪.৯! নকশার নতুনত্ব এবং তরুণীদের পছন্দের কারণে এর উদ্যোক্তা এবং আঁকিয়ে সাইয়েদা তাইয়েবা স্বপ্ন দেখেন মেহেদি স্টুডিও গড়ে কাজের পরিধি আরো বাড়ানোর!

গেল বছরেই সাইয়েদা একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বিবিএ শেষ করেছেন মার্কেটিংয়ে। তবে মেহেদি শিল্পী হিসেবে সাইয়েদার ব্যস্ততা রয়েছে ভালোই। বললেন, মেহেদি শিল্পীদের অনেকেই পশ্চিমা ধাঁচের নকশা করেন। তবে তিনি অঁাঁকেন ভারত, পাকিস্তান ও বাংলাদেশের ঐতিহ্যবাহী নকশা। মূলত ট্র্যাডিশনাল, অ্যারাবিক ডিজাইন এবং নিজের নিজস্ব চিন্তা থেকে তৈরি ডিজাইনের চাহিদা বেশি।

মেহেদি আঁকা নিয়ে শুরুর গল্পটাও চমকপ্রদ। বললেন, ফেসবুকে পেইজ খোলার আগে বান্ধবীদের আর বোনদের নানা উৎসব পার্বণে হাতে মেহেদি দিয়ে দিতাম। অনুপ্রেরণা তখন থেকেই। এরপর আমি আমার কাজগুলোর ছবি আপলোড করি ফেসবুক পেইজে। পরিচিতদের মাধ্যমে বাড়তে থাকে আগ্রহীদের সংখ্যা। আমাকে পেইজের ইনবক্সে বার্তা দিয়ে ব্রাইডরা যোগাযোগ করতে শুরু করেন। বিয়ের কনেদের ক্ষেত্রে অগ্রিম বুকিংয়ের ভিত্তিতে বাড়িতে গিয়ে মেহেদি পরিয়ে দিয়ে আসি। তবে কেউ কেউ শখেও মেহেদি পরতে যোগাযোগ করেন। মূলত মেহেদি শিল্পটাকে একটা নতুন পরিচয় দিতে চাই, গতানুগতিক চিন্তাধারা থেকে বের হয়ে নিজের এই প্রতিভাকে সফলভাবে পেশা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে চাই। নিজের একটি মেহেদি স্টুডিও দিয়ে হতে চাই শুধুই একজন মেহেদি শিল্পী। মূলত ব্রাইডাল মেহেদিভিত্তিক কাজ আমার বেশি করা হয়ে থাকে। নকশার ধরন অনুযায়ী সার্ভিস চার্জ হলেও সাধারণত ২ হাজার ৫০০ থেকে ৫ হাজার ৫০০ টাকায় মিলবে নানা ধরনের নকশার প্যাকেজ সুবিধা। ফেসবুক পেইজের ঠিকানা ভধপবনড়ড়শ/ংধুধফধংধৎঃ

ফ্যাশন (ট্যাবলয়েড)'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj