রোমান সানা তীর ধনুকে সেরা

মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০১৯

বাংলাদেশের ক্রীড়াঙ্গনের আকাশে নতুন তারকা হিসেবে আবির্ভাব হয়েছে রোমান সানার। তীর-ধনুক হাতে বাংলাদেশকে অনন্য এক আনন্দে ভাসিয়েছেন তিনি। প্রথম আরচার হিসেবে নিজ যোগ্যতায় ২০২০ সালে টোকিও অলিম্পিকে জায়গা করে নিয়েছেন রোমান সানা। এমনকি নেদারল্যান্ডসে অনুষ্ঠিত বিশ্ব আরচার চ্যাম্পিয়নশিপের রিকার্ভ ইভেন্টে ব্রোঞ্জ জয় করেছেন দেশসেরা এই আর্চার। এটি কেবল একটি পদক জয়ের সাফল্য বললে ভুল হবে। কারণ বৈশ্বিক কোনো প্রতিযোগিতায় এটি বাংলাদেশের প্রথম পদক।

বাংলাদেশ থেকে সাধারণত বিশেষ বিবেচনায় ওয়াইল্ড কার্ড পেয়ে অলিম্পিক গেমসে অংশ নেন অ্যাথলেটরা। সেই বৃত্ত ভেঙে গতবার রিও অলিম্পিকে নাম লিখেছিলেন গলফার সিদ্দিকুর রহমান। এবার ২০২০ সালে টোকিওতে দ্বিতীয় বাংলাদেশি হিসেবে সরাসরি অলিম্পিকে খেলার যোগ্যতা লাভ করেছেন রোমান সানা।

মাঠের বাইরে একজন ক্রীড়াবিদ কেমন, তা হয়তো সফল হওয়ার আগ পর্যন্ত সাধারণ মানুষ পর্যন্ত পৌঁছানোর সুযোগ থাকে না। রোমানের নীরব পথচলার গল্পটাও তাই অনেকেরই অজানা।

দেশ সেরা এই আরচার ১৯৯৫ সালে ৮ জুন খুলনায় জন্মগ্রহণ করেন। রোমানের বাবা বেসরকারি মৎস্য প্রতিষ্ঠানে কাজ করতেন। মা বিউটি বেগম গৃহিণী। পরিবারে দুই ভাই ও এক বোনের মধ্যে রোমান সবার ছোট। তিনি তীর ধনুকের খেলায় যোগদান করেন ২০০৮ সালে। লক্ষ্যভেদের উদ্দেশ্যে তীর ছোড়ার জন্য সর্বদা যেন ধ্যানমগ্ন। ধীরস্থির থাকতে পারাও যে খেলার মাঠে অন্যতম বড় অস্ত্র হতে পারে, তা দেখিয়ে দিয়েছেন রোমান সানা।

নেদারল্যান্ডসে বিশ^ আরাচার চ্যাম্পিয়নশিপ প্রতিযোগিতার ষষ্ঠ বাছাইয়ে ইতালির মাওরো নেসপলিকে ৭-১ পয়েন্টে হারিয়ে ব্রোঞ্জ জয় করেছেন রোমান।

এ ছাড়া আন্তর্জাতিক পর্যায়ে তৃতীয় আইএসএসএফ ইন্টারন্যাশনাল সলিডারিটি ওয়ার্ল্ড র‌্যাংকিং আরচারি চ্যাম্পিয়নশিপে এক সিলভার জিতেছেন রোমান। এর আগে জাতীয় পর্যায়ে ২০১৮ সালে ব্রোঞ্জ জয় করেছেন এ আরচার।

:: কামরুজ্জামান ইমন

গ্যালারি'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj