নেপথ্যে দুই অলরাউন্ডার

বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০১৯

খেলা প্রতিবেদক : আগামীকাল মাঠে নামছে দুইবারের বিশ^ চ্যাম্পিয়ন ভারত ও গত বারের ফাইনালিস্ট নিউজিল্যান্ড। চলমান বিশ^কাপে এখন পর্যন্ত সফল উভয় দল। ম্যান ইন ব্লুরা তাদের খেলা দুটি ম্যাচেই জয় পেয়েছে। হারিয়েছে শক্তিশালী দক্ষিণ আফ্রিকা ও অস্ট্রেলিয়াকে। অন্যদিকে ব্লুাক ক্যাপরা তিন ম্যাচ খেলে তিনটিতেই জয় পেয়েছে। হারিয়েছে বাংলাদেশ, শ্রীলঙ্কা ও আফগানিস্তানকে। বিশ^কাপের আগে থেকেই ধারাবাহিক পারফরমেন্স করছে দুদল। ধারাবাহিক এই পারফরমেন্সের পিছনে রয়েছে ভারতীয় কোচ রবি শাস্ত্রী ও নিউজিল্যান্ডের কোচ গ্যারি স্টিডের অবদান। মাঠের বাইরে থেকে দলের সাফল্যে কলকাঠি নাড়ছেন তারা। ভারতীয় অধিনায়ক কোহলির সঙ্গে বনিবনা না হওয়ায় তৎকালীন কোচ অনীল কুম্বলে দায়িত্ব থেকে সরে দাঁড়ান। এরপর তার উত্তরসূরি হিসেবে রবি শাস্ত্রী বাৎসরিক আট কোটি রুপিতে ২০১৭ সালের জুলাই মাসে কোচের দায়িত্ব পান। শচিন টেন্ডুলকার ও সৌরভ গাঙ্গুলী তাকে কোচ হিসেবে নেয়ার জন্য বিসিসিআইকে বলেন। কোচ শাস্ত্রী এর আগে ভারতের অধিনায়কের দায়িত্বও পালন করেছেন। দলের অন্যতম অলরাউন্ডার ছিলেন তিনি। ৮০টি টেস্ট ম্যাচ খেলে ৩ হাজার ৮৩০ রান করার পাশাপাশি ১৫১টি উইকেটও নিয়েছেন। একদিনের আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেছেন ১৫০টি। রান করেছেন ৩ হাজার ১০৮ ও উইকেট নিয়েছেন ১২৯টি। ১৯৮০ সাল থেকে শুরু করে ১৯৯২ সাল পর্যন্ত ভারতের হয়ে খেলে অবসর নেন। অবসরের পর নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেন একজন তুখোড় ধারাভাষ্যকার হিসেবে। আইপিএলসহ বিশ^কাপের অনেক ম্যাচে ধারাভাষ্য দিয়েছেন। ২০১৭ সালে তিনি কোচের দায়িত্ব নেয়ার পর শ্রীলঙ্কায় অনুষ্ঠিত ত্রিদেশীয় সিরিজ ও এশিয়া কাপ জিতেছে ভারত। তার অধীনে এখন পর্যন্ত ৫২টি একদিনের আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেছে কোহলিরা। সেখানে জয় রয়েছে ৩৮টি ম্যাচে, হার ১২টি ম্যাচে আর ড্র দুটিতে।

অন্যদিকে নিউজিল্যান্ড কোচ গ্যারি স্টিড দেশের হয়ে খেলেছেন ১৯৯৮ থেকে ১৯৯৯ সাল পর্যন্ত। দেশের হয়ে বেশিদিন খেলতে পারেননি তিনি। পাঁচ টেস্ট খেলে ২৭৮ রান করেন। তবে তার রয়েছে ঝলমলে ফার্স্ট ক্লাস ক্যারিয়ার। ফার্স্ট ক্লাস ক্রিকেটে মোট ১০১টি ম্যাচ খেলে করেছেন ৪৯৮৪ রান। উইকেট নিয়েছেন ৯টি। ২০১৮ সালের আগস্ট মাসে নিউজিল্যান্ডের জাতীয় দলের দায়িত্ব পান তিনি। জাতীয় দলের দায়িত্ব নেয়ার আগে নিউজিল্যান্ডের ঘরোয়া লিগের দল ক্যান্টারবারিকে ২০১৪, ২০১৫ ও ২০১৭ সালের শিরোপা জেতান। তার অধীনে নিউজিল্যান্ড এখন পর্যন্ত ১৬টি ম্যাচ খেলেছে। এর মধ্যে জয় পেয়েছে ১১টি ম্যাচে। হার মাত্র ৪টিতে। ফলাফল হয়নি একটি ম্যাচে। এই দুই কোচের খেলোয়াড়ি ক্যারিয়ার ও কোচিং ক্যারিয়ারের পরিসংখ্যান থেকে বলা যায় আজ হতে যাচ্ছে দুই অলরাউন্ডার কোচের লড়াই।

খেলা-ধূলা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj