পাবনায় চাচা-ভাতিজাসহ ৫ জেলায় নিহত ৬

বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০১৯

সড়ক দুর্ঘটনাকাগজ ডেস্ক : পাবনায় মোটরসাইকেল ও অটোবাইকের মুখোমুখি সংঘর্ষে চাচা-ভাতিজাসহ ৫ জেলায় ৬ জন নিহত হয়েছেন। এ ছাড়া কুষ্টিয়ায় যাত্রীবাহী বাস খাদে পড়ে নৌবাহিনী কর্মচারী, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবায় বাসের ধাক্কায় মোটরসাইকেল আরোহী, ভোলায় ট্যাঙ্ক লরির ধাক্কায় মোটরসাইকেল আরোহী এবং চুয়াডাঙ্গায় ট্রাক্টরের চাকায় পিষ্ট হয়ে ৮ মাসের শিশুর মৃত্যু হয়। গতকাল বুধবার বিভিন্ন সময় এসব দুর্ঘটনা ঘটে। নিচে এ সম্পর্কে আমাদের প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর-

পাবনা : জেলার চাঁদমারী মোড়ে গতকাল বুধবার সকালে মোটরসাইকেল ও অটোবাইকের মুখোমুখি সংঘর্ষে হাফেজ ওয়ালিদ হোসেন (২২) ও তার ভাতিজা প্রান্ত (১২) নিহত হয়েছেন। নিহত হাফেজ ওয়ালিদ সদর থানার বলরামপুর গ্রামের আমিন উদ্দিন প্রামাণিকের এবং প্রান্ত শফিক প্রামাণিকের ছেলে।

পাবনা সদর থানার ওসি ওবাইদুল হক ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, সকালে এক আত্মীয়ের জানাজা শেষে দোকানের ভুসিমাল আনার জন্য ওয়ালিদ ও তার ভাতিজা প্রান্ত মোটরসাইকেলযোগে পাবনার শিল্পনগরী এলাকায় (বিসিক) যাচ্ছিলেন। তারা শহরের চাঁদমারী মোড়ে পৌঁছলে বিপরীত দিক থেকে আসা একটি ব্যাটারিচালিত অটোবাইকের সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এ সময় মোটরসাইকেল আরোহী চাচা ও ভাতিজা অটোবাইকের নিচে চাপা পড়ে ঘটনাস্থলেই মারা যান।

কুষ্টিয়া : জেলার খোকসায় যাত্রীবাহী বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে খাদে উল্টে পড়ে একজন নিহত এবং ২৫ যাত্রী আহত হয়েছেন। দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে কুষ্টিয়া-রাজবাড়ী সড়কের খোকসার শিমুলিয়া-কুঠিবাড়ী এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত যাত্রীর নাম মুসাদ্দেক আলী শেখ (৩৬)। তিনি খোকসা উপজেলার কমলাপুর এলাকার মকছেদ শেখের ছেলে এবং নৌবাহিনীর বেসামরিক বিভাগে কর্মরত ছিলেন। ছুটি শেষে তিনি কর্মস্থলে ফিরছিলেন।

কসবা (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) : উপজেলার কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়কের সৈয়দাবাদ এলাকায় দুপুরে বাসের ধাক্কায় শরীফ মিয়া (১৬) নামে এক মোটরসাইকেল আরোহী নিহত এবং রিফাত (১৫) নামে অপর আরোহী আহত হয়েছেন। নিহত শরীফ উপজেলার বাদৈর গ্রামের আওলাদ মিয়ার ছেলে। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালে মর্গে পাঠানো হয়েছে। ঘাতক বাসটিকে আটক করেছেন স্থানীয়রা।

আহত রিফাত মিয়া জানান, দুপুরে মোটরসাইকেলযোগে কসবার মনকসাইর এলাকা থেকে তিনলাখপীর যাওয়ার পথে সৈয়দাবাদ এলাকায় বিপরীত দিক থেকে আসা একটি দিগন্ত বাস ধাক্কা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই শরীফ প্রাণ হারান।

ভোলা : জেলার বোরহানউদ্দিন উপজেলায় ট্যাঙ্ক লরির ধাক্কায় শাফিজল ফরাজি নামে মোটরসাইকেল আরোহী নিহত হয়েছেন। বিকেলে উপজেলার ভোলা-চরফ্যাশন সড়কের উদপুর এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত শাফিজল পক্ষিয়া গ্রামের আনিছল হকের ছেলে। পুলিশ জানায়, মোটরসাইকেল আরোহী শাফিজন ভোলার দিকে যাচ্ছিলেন। এ সময় বিপরীত থেকে আসা একটি ট্যাঙ্ক লরির মোটরসাইকেলটিকে ধাক্কা দিলে শাফিজল গুরুতর আহত হন। স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে বোরহানউদ্দিন হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক মৃত বলে ঘোষণা করেন।

চুয়াডাঙ্গা : জেলার আলমডাঙ্গা উপজেলায় ট্রাক্টরের চাকায় পিষ্ট হয়ে জুনাইদ হোসেন নামে ৮ মাসের এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। এ দুর্ঘটনায় নিহত শিশুটির বাবা-মা আহত হয়েছেন। দুপুরে উপজেলার হারদি এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত শিশু জুনাইদ কুষ্টিয়া জেলার মালিহাদের মিন্টু মিয়ার ছেলে।

জানা যায়, মিন্টু মিয়া ও তার স্ত্রী মৌসুমি খাতুন তাদের শিশু সন্তানকে নিয়ে মোটরসাইকেলে করে বাড়ির উদ্দেশে যাচ্ছিলেন। হারদী এলাকায় পৌঁছলে বিপরীত দিক থেকে আসা একটি ট্রাক্টর মোটরসাইকেলটিকে ধাক্কা দেয়। এতে শিশু জুনাইদ মায়ের কোল থেকে ছিটকে ট্রাক্টরের নিচে পড়ে যায়। এ সময় ওই ট্রাক্টরের চাকায় পিষ্ট হয়ে ঘটনাস্থলেই প্রাণ হারায় শিশুটি।

এ ঘটনায় আহত মিন্টু ও তার স্ত্রী মৌসুমিকে উদ্ধার করে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এই জনপদ'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj