সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ : পুলিশ সদস্যের অত্যাচারে অতিষ্ঠ ৭ গ্রামের মানুষ

বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০১৯

কসবা (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি : কসবা উপজেলার কুটি ইউনিয়নের মাইজখার গ্রামে পুলিশের এক সদস্যের বিরুদ্ধে ফুঁসে উঠেছে গ্রামবাসী। ওই গ্রামের অধিবাসী আল মামুন ওরফে মিন্টু দারোগার বিরুদ্ধে ভূমিদস্যু বৃত্তি, জালিয়াতি, সাধারণ মানুষের মধ্যে বিভেদ সৃষ্টি করে টাকাপয়সা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগে এলাকাবাসী গত মঙ্গলবার কাঠেরপুল এলাকায় সংবাদ সম্মেলন ও মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছেন। এতে কুটি ইউনিয়নের সাত গ্রামের মানুষ অংশ নেয়। সংবাদ সম্মেলনে ওই গ্রামের জুলহাস সওদাগর জানান, কাঠেরপুল নামক জায়গায় তিনি ৩২ শতক নাল ভূমি ক্রয় করেন প্রায় ৩০ বছর আগে। প্রায় ১০ লাখ টাকা খরচ করে মাটি দিয়ে ভরাট করেন। পরে প্রায় কোটি টাকা খরচ করে মার্কেট তৈরি করেন। সেই মার্কেটে দুই বছর আগে দোকান ভাড়া নেয় দারোগা আল মামুন ওরফে মিন্টু। পরে ওই সাবেক ২৯ দাগে ১০ শতক নাল ভূমির ভুয়া দলিল করে মালিকানা দাবি করছে মিন্টু ও তার ভাই কাইয়ুমের শাশুড়ি শিরিন আক্তার। বর্তমানে মিন্টু দারোগা দোকানের ভাড়াও দিচ্ছেন না। এ ব্যাপারে গ্রামে একাধিক বৈঠক হলেও তিনি বৈঠকে হাজির হননি। বিভিন্ন সময় সাজানো দেন-দরবার করে উভয়পক্ষের কাছ থেকে ঘুষ নেয় বলে হাজি কামাল, হাজি রশিদ, হানিফ ভূঁইয়া, হাজি মোকাদ্দেস মেম্বার, সিদ্দিক মেম্বার ও অনু মেম্বার সংবাদ সম্মেলনে জানান। এ বিষয়ে অভিযুক্ত আল মামুন মিন্টু দারোগা অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, আমি হাজি জুলহাসের কাছ থেকে দোকানটি ভাড়া নিয়েছি।

সারাদেশ'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj