ব্রাজিলের প্রতিপক্ষ বলিভিয়া

বুধবার, ১২ জুন ২০১৯

খেলা ডেস্ক : লাতিন আমেরিকার শ্রেষ্ঠত্বের লড়াই কোপা আমেরিকা শুরু হতে আর বেশি দেরি নেই। ১৪ জুন ফুটবলের দেশ ব্রাজিলে শুরু হতে যাচ্ছে মেসি-নেইমারদের লড়াই। এটি এ প্রতিযোগিতার ৪৬তম আসর। ব্রাজিল ও বলিভিয়ার ম্যাচের মধ্য দিয়ে আসরটির পর্দা ওঠবে এবং পর্দা নামবে ৭ জুলাই। ব্রাজিলের মোট পাঁচটি শহরে হবে ম্যাচগুলো। সর্বমোট ১২টি দলকে নিয়ে হবে এবারের প্রতিযোগিতা। যেখানে ১০টি দেশ অংশ নিচ্ছে দক্ষিণ আমেরিকা থেকে এবং বাকি দুইটি দেশ অংশ নিচ্ছে এশিয়া থেকে। এশিয়ার দেশগুলো হলো- জাপান ও কাতার। কিছুদিন আগে শেষ হওয়া এশিয়ান কাপের ফাইনালিস্ট তারা। দক্ষিণ আমেরিকার ফুটবলের নিয়ন্ত্রণ সংস্থা কনমেবলের আমন্ত্রণে দেশ দুটি এবারের আসরে অংশ নিচ্ছে। ১৯৯৯ সালে জাপান একবার অংশ নিলেও কাতার এবারই প্রথম অংশ নিচ্ছে প্রতিযোগিতাটিতে। মোট তিনটি গ্রুপে ভাগ হয়ে খেলবে ১২টি দল। ‘এ’ গ্রুপে লড়বে ব্রাজিল, বলিভিয়া, ভেনেজুয়েলা ও পেরু। ‘বি’ গ্রুপে লড়বে আর্জেন্টিনা, প্যারাগুয়ে, কলম্বিয়া ও কাতার। ‘সি’ গ্রুপে লড়বে উরুগুয়ে, ইকুয়েডর, জাপান ও বর্তমান চ্যাম্পিয়ন চিলি। প্রত্যেক গ্রুপ থেকে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন, রানার্সআপ ও তৃতীয় সেরা দল মিলিয়ে মোট আটটি দেশ কোয়ার্টার ফাইনালে খেলার যোগ্যতা অর্জন করবে। কোয়ার্টার ফাইনালের সবগুলো ম্যাচ হবে নক আউট পর্ব। মোট চারটি দল নিয়ে হবে সেমিফাইনাল। সেমিফাইনালের ম্যাচ দুটিও হবে নক আউট পর্ব।

এর আগে ২০১৮ সালে দক্ষিণ আমেরিকার ফুটবলের নিয়ন্ত্রণ সংস্থা কনমেবল পরিকল্পনা করেছিল ১৬টি দল নিয়ে এবারের আসরটি আয়োজন করতে। যেখানে লাতিন আমেরিকার ১০টি দেশ ছাড়াও এশিয়ান কাপ থেকে থাকবে তিনটি দেশ ও কনকা কাপ থেকে থাকবে তিনটি দেশ। কিন্তু শেষমেষ তা আর সম্ভব না হওয়ায় ১৯৯৩ সাল থেকে শুরু হওয়া ফর্মেটেই ১২টি দেশ নিয়ে তারা আসরটির আয়োজন করছে। ১৯৯৩ সালের পর এবারই প্রথমবারের মতো প্রতিযোগিতায় অংশ নিচ্ছে না মেক্সিকো।

কোপা আমেরিকার ইতিহাসে এখন পর্যন্ত সবচেয়ে সফল দেশ উরুগুয়ে। দেশটি এখন পর্যন্ত ১৫ বার শিরোপা জিতেছে। দ্বিতীয় সফল দল লিওনেল মেসির আর্জেন্টিনা। তারা জিতেছে ১৪ বার। ২০১৫ ও ২০১৬ সালে ফাইনাল খেললেও দুবারই চিলির বিপক্ষে হেরে রানার্সআপের ট্রফি নিয়ে মেসিদের ঘরে ফিরতে হয়। কোপার এবারের আসরেও শিরোপার অন্যতম দাবিদার আকাশি নীল জার্সিধারীরা। অন্যদিকে ৮ বার শিরোপা জিতে তৃতীয় স্থানে রয়েছে স্বাগতিক ব্রাজিল।

তারাও এবারের অন্যতম ফেভারিট দল। মাত্র দুইদিন আগে হন্ডুরাসকে ৭-০ গোলের বিশাল ব্যবধানে হারিয়ে তাদের শক্তির ব্যাপারে সবাইকে জানান দিয়ে দিয়েছে। কিন্তু দুঃখের বিষয় তাদের সেরা খেলোয়াড় নেইমার পায়ের ইনজুরির কারণে এবারের আসর থেকে ছিটকে গেছেন। তবে সবকিছুর পরও ফুটবলপ্রেমীরা আগামী কিছু দিন দুর্দান্ত ফুটবল উপভোগ করবে তা নিশ্চিতভাবেই বলা যায়।

খেলা-ধূলা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj