সূচনা কলাম

বুধবার, ১২ জুন ২০১৯

শ্রীলঙ্কায় ফিরে যাচ্ছেন মালিঙ্গা

খেলা ডেস্ক : এবার বিশ^কাপ আসরে লঙ্কান দলের গুরুত্বপূর্ণ বোলার লাসিথ মালিঙ্গা। তবে গতকাল একটি দুঃসংবাদ পেয়েছেন দলটির এ দুর্দান্ত পেসার। সদ্যই গত হয়েছেন তার শাশুড়ি। তাই স্ত্রীর জন্মদাত্রীর শেষকৃত্য অনুষ্ঠান সম্পন্ন করার জন্যই মালিঙ্গাকে বিশ^কাপের মাঝপথে যেতে হচ্ছে শ্রীলঙ্কায়। মালিঙ্গার শ্রীলঙ্কা যাওয়ার ব্যাপারে দেশটির ক্রিকেট নিয়ন্ত্রক সংস্থা শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট (এসএলসি) জানিয়েছে, শাশুড়ি মারা যাওয়ায় বাংলাদেশের বিপক্ষে শ্রীলঙ্কার ম্যাচটি শেষ করেই মালিঙ্গা দল ছাড়বেন। ৩৫ বছর বয়সী এই তারকা পেসারের শাশুড়ি কান্থি পেরেরার শেষকৃত্য সম্পন্ন হবে আগামীকাল বৃহস্পতিবার। শেষকৃত্য সম্পন্ন করে মালিঙ্গাকে আবার দ্রুতই ধরতে হবে ইংল্যান্ডের বিমান। কারণ শনিবার (১৫ জুন) অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে আরেক গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে মাঠে নামতে হবে শ্রীলঙ্কাকে। এবারের বিশ^কাপে সুযোগ পেয়েই নিজেকে প্রমাণ করেছেন শ্রীলঙ্কান তারকা পেসার লাসিথ মালিঙ্গা। দ্বাদশ বিশ^কাপ আসরে আফগানিস্তানের বিপক্ষে শেষ ম্যাচে ৬.৪ ওভার বল করে নিয়েছেন তিন উইকেট। বোঝাই যাচ্ছে, শেষ বিশ^কাপের জন্য নিজেকে ভালোমতোই প্রস্তুত করেছেন লাসিথ মালিঙ্গা।

অবসর নিলেন যুবরাজ

খেলা ডেস্ক : ভারতের হয়ে একসময় মাঠ দাপিয়ে বেড়াতেন অলরাউন্ডার যুবরাজ সিং। ভারতের ২০১১ বিশ^কাপ জয়ের পেছনে বল-ব্যাট হাতে দুর্দান্ত ভূমিকা রাখেন এ ক্রিকেটার। তাই দেশের হয়ে এবার ২০১৯ বিশ^কাপে শেষবারের মতো প্রতিদ্ব›িদ্বতা করতে চেয়েছিলেন। তবে বয়সের ভারে পারফরমেন্সের ধার কমে যাওয়ায় তা আর পারেননি। তাই ক্রিকেটের তিন ফরমেট থেকে অবসর নিলেন যুবরাজ সিং। তিনি মুম্বাইয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে অবসরের সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছেন। ক্রিকেট মাঠে দাপুটে খেলে বেড়ানো এই মানুষটি জীবনযুদ্ধেও জয়ী হয়েছেন। দুই ফুসফুসের মধ্যবর্তী স্থানে টিউমার আক্রমণ করে জীবন সংশয়ে ফেলে দিয়েছিল যুবরাজের। তবে সৃষ্টিকর্তার অশেষ রহমতে ও সঠিক চিকিৎসায় সুস্থ হয়ে আবারো ক্রিকেট মাঠে ফিরেছিলেন তিনি। ভারতের হয়ে ২০১৭ সালের জুনে সর্বশেষ মাঠে নেমেছিলেন এই অলরাউন্ডার। এর আগে খেলোয়াড়ি জীবনে দেশের হয়ে যুবরাজের অর্জন কম নয়। ২০০০ সালে জাতীয় দলে অভিষেক হওয়া যুবরাজ ক্যারিয়ারে অসংখ্য রেকর্ড গড়েছেন। যার মধ্যে সর্বোচ্চ উচ্চারিত ছয় বলে ছয়টি ছক্কা। ২০০৭ সালে টি-টোয়েন্টি বিশ^কাপে ইংলিশ পেসার স্টুয়ার্ড ব্রডকে উড়িয়ে ১ ওভারের ৬টি বলই মাঠের বাইরে পাঠিয়ে গড়েছিলেন রেকর্ড। সেবার বিশ^ টি-টোয়েন্টির চ্যাম্পিয়ন হয় ভারত। এমনকি ম্যান অব দ্য টুর্নামেন্ট হন যুবরাজ সিং। ২০১১ সালের আইসিসি ক্রিকেট বিশ^কাপে ভারতের ২য় শিরোপা জয়ের অন্যতম ক্যারিগর ছিলেন যুবরাজ। ব্যাট হাতে ৪ অর্ধশতক ও ১ শতকে ৩৬২ রান এবং বল হাতে ১৫টি উইকেট তুলে নিয়ে টুর্নামেন্টের সেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত হয়েছিলেন যুবরাজ। এ ছাড়াও ব্যাটিং, বোলিং ও ফিল্ডিং- ৩ বিভাগেই দারুণ দক্ষতা সম্পূর্ণ এক ক্রিকেটার যুবরাজ। ভারতের হয়ে ৪০টি টেস্ট, ৩০৪টি একদিনের ম্যাচ ও ৫৮টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেছেন এই অলরাউন্ডার। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ব্যাট হাতে তুলেছেন ১১ হাজার ৭৭৮ রান। বল হাতে শিকার করেছেন ১৪৮ উইকেট। ভারতীয় ক্রিকেটারদের মধ্যে ৭ম সর্বোচ্চ ওডিআই রানের মালিক তিনি। একদিনের ক্রিকেটে তার সংগ্রহ ৮ হাজার ৭০১ রান। বিশ^ ক্রিকেটে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকের তালিকায় তার অবস্থান ২২তম। এছাড়া একদিনের ক্রিকেটে ১১১টি উইকেটও আছে তার ঝুলিতে। টেস্ট ক্রিকেটে তার সংগ্রহ ১ হাজার ৯০০ রান ও টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে করেছেন ১ হাজার ১৭৭ রান। বল হাতে নিয়েছেন ২৮ উইকেট।

রূপালী ব্যাংক রানার্সআপ

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড কর্তৃক আয়োজিত ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন উইমেন্স ক্রিকেট লিগ ২০১৮-১৯ মৌসুমের খেলায় রূপালী ব্যাংক উইমেন্স ক্রিকেট টিম রানার্সআপ হয়েছে। ইতোপূর্বে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড কর্তৃক আয়োজিত প্রথম বিভাগ উইমেন্স ক্রিকেট লিগ ২০১৪-১৫ মৌসুমে রূপালী ব্যাংক উইমেন্স ক্রিকেট টিম চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি অর্জন করে। পরবর্তী সময় প্রিমিয়ার ডিভিশন উইমেন্স ক্রিকেট লিগ ২০১৫-১৬ মৌসুমেও রূপালী ব্যাংক উইমেন্স ক্রিকেট টিম চ্যাম্পিয়ন ট্রফি অর্জন করে। এ মৌসুমে রূপালী ব্যাংক রানার্সআপ হওয়ার পথে শক্তিশালী আবাহনী, মোহামেডান ও শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্রকে পরাজিত করে। -বিজ্ঞপ্তি

খেলা-ধূলা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj