রুমীন ফারহানাকে কাদের : সংসদ অবৈধ হলে এমপি হওয়ার জন্য সিরিয়াস হলেন কেন

মঙ্গলবার, ১১ জুন ২০১৯

কাগজ প্রতিবেদক : জাতীয় সংসদ যদি অবৈধ হয়, অবৈধ সে সংসদের সদস্য হওয়ার জন্য তিনি এত সিরিয়াস হলেন কেন? জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত আসনের সদস্য বিএনপির ব্যারিস্টার রুমীন ফারহানার উদ্দেশে এ প্রশ্ন ছুড়ে দিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, সংসদ অবৈধ হলে তিনি কি বৈধ? তাহলে কোন বৈধতার সূত্রে তিনি কথা বলবেন?

জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত আসনের সদস্য হিসেবে শপথ নিয়ে ব্যারিস্টার রুমীন ফারহানার সংসদের বৈধতা নিয়ে কথার জবাবেই গতকাল সোমবার সচিবালয়ে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে সমসাময়িক বিভিন্ন বিষয়ে সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন তিনি। সংসদ সদস্য হিসেবে গত রবিবার শপথ নেয়ার পর প্রতিক্রিয়ায় রুমীন ফারহানা বলেছিলেন, এই সংসদটি জনগণের ভোটে নির্বাচিত নয়। খুব খুশি হবো, আমার সাংসদ হওয়ার মেয়াদ একদিনের বেশি না হলে। আমি চাই অতি দ্রুত একটি অংশগ্রহণমূলক নির্বাচনের মধ্য দিয়ে জনপ্রতিনিধিত্বশীল সরকার গঠিত হোক।

ওবায়দুল কাদের বলেন, সংসদ নিয়ে বিএনপির স্ববিরোধিতা পরিষ্কার। পার্টির মহাসচিব নির্বাচিত হয়েও শপথ নিলেন না, তার জায়গায় আবার বিএনপির জেলা সভাপতি নির্বাচন করছেন। এই নীতি নিয়ে যারা চলেন তারা আন্দোলনে অতীতেও ব্যর্থ হয়েছেন, আগামীতে ব্যর্থ হবেন।

মালিক ও শ্রমিকদের অসন্তোষে সড়ক ও পরিবহন আইন বাস্তবায়ন করা হচ্ছে না জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, পরিবহন মালিক ও শ্রমিকদের আন্দোলন রাতারাতি বন্ধ করা যায় না। এ খাতের সঙ্গে আরও অনেক কিছু সংশ্লিষ্ট রয়েছে। প্রাথমিকভাবে যুক্তিতর্ক দিয়ে সমাধান করতে দেরি হয়ে গেছে। এটা হয়েছে আমার দীর্ঘদিন অনুপস্থিতির কারণে।

মন্ত্রী বলেন, এবারের ঈদে সড়কে দুর্ঘটনার হার ছিল কম; কিন্তু মৃত্যুর হার বেশি ছিল। মূলত ইজিবাইক-সিএনজিচালিত অটোরিকশার কারণেই দুর্ঘটনা বেশি হয়। রাস্তার পাশে যানবাহন রাখায় দুর্ঘটনা ও দুর্ভোগ হয়।

পরিবহন খাতে শৃঙ্খলার অভাব রয়েছে জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, সড়কে শৃঙ্খলার সংকট রয়েছে। বেপরোয়া গাড়িচালক ও বেপরোয়া যাত্রীর জন্য বিশৃঙ্খলার সৃষ্টি হয়।

রাইড শেয়ারিং বিষয়ে তিনি বলেন, আগামী এক মাসের মধ্যে এ ক্ষেত্রে নীতিমালা করা হবে।

দ্বিতীয় সংস্করন'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj