প্রবীণ-নবীনের লড়াই

মঙ্গলবার, ১১ জুন ২০১৯

খেলা প্রতিবেদক : দ্বাদশ বিশ^কাপে বাংলাদেশ তাদের চতুর্থ ম্যাচে আজ শ্রীলঙ্কার মুখোমুখি হবে। লঙ্কানদের বিপক্ষে বাংলাদেশের বিশ^কাপের স্মৃতি খুব বেশি সুখকর নয়। বিশ^কাপে এ পর্যন্ত তিনবার মুখোমুখি হয়েছে বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা। তার মধ্যে তিনটিতেই জিতেছে লঙ্কানরা। কিন্তু এবারের শ্রীলঙ্কা দলটি আগের বিশ^কাপগুলোর তুলনায় কিছুটা দুর্বল। আজকের ম্যাচে দর্শকদের নজর থাকবে লঙ্কান পেসার লাসিথ মালিঙ্কা ও কাটারমাস্টার খ্যাত টাইগার বোলার মোস্তাফিজুর রহমানের দিকে। ৩৫ বছর মালিঙ্গার ক্যারিয়ারের চতুর্থ বিশ^কাপ এটি, আর ২৩ বছর বয়সী মোস্তাফিজের প্রথম। সে হিসেবে মালিঙ্গা-মোস্তাফিজ দ্বৈরথকে নবীন-প্রবীণের লড়াই হিসেবেও অ্যাখ্যা দেয়া যায়।

এটি মালিঙ্গার ক্যারিয়ারের শেষ বিশ^কাপ। দ্বাদশ বিশ^কাপে ইতোমধ্যে বল হাতে ঝলক দেখিয়েছেন তিনি। আফগানিস্তানের বিপক্ষে ৩৯ রানে ৩ উইকেট নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখেন দলের জয়ে। অন্যদিকে ২০১৫ সালে ভারতের বিপক্ষে অভিষেক হয় কাটারমাস্টার খ্যাত মোস্তাফিজুর রহমানের। অভিষেক ম্যাচেই ৫ উইকেট নিয়ে ক্রিকেট বিশ^কে চমকে দিয়েছিলেন তিনি। মোস্তাফিজ এবার প্রথমবারের মতো বিশ^কাপে খেলছেন। বিশ^কাপে এখনো তিনি তার আশানুরূপ ফল পাননি। ৩ ম্যাচ খেলে নিয়েছেন ৪ উইকেট। এর মধ্যে সবকটি উইকেটই এসেছে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ম্যাচে। তবে তার জ্বলে ওঠতে আবার বেশি সময়ও লাগে না। তিনি জ্বলে ওঠলে সে দিনটি পুরোপুরি বাংলাদেশের হয়ে যায়।

মজার ব্যাপার হলো মালিঙ্গা যখন পুরোদমে ক্রিকেট বিশ্ব দাপিয়ে বেড়াচ্ছিলেন তখন মোস্তাফিজ ছিলেন স্কুল বালক। মাত্র ক্রিকেট খেলা শুরু করেছিলেন। সেই স্কুল বালক মোস্তাফিজই এখন খেলবেন লাসিথ মালিঙ্গার বিপক্ষে। তাই বাংলাদেশ শ্রীলঙ্কার লড়াইটাকে বলা যায় নবীন-প্রবীণের লড়াই।

২০০৭ সালের বিশ^কাপে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে হ্যাটট্রিকসহ চার বলে ৪ উইকেট নেন মালিঙ্গা। তার সেই কীর্তি এখন পর্যন্ত দ্বিতীয়বার করে দেখাতে পারেনি কেউ। সেই ম্যাচের পর বিশ^কাপে চিরস্মরণীয় হয়ে গেছেন এই লঙ্কান গতি দানব। মালিঙ্গাই বিশে^র একমাত্র বোলার যিনি তিনটি হ্যাটট্রিক করেছেন। এখন পর্যন্ত ক্যারিয়ারে ২২০টি ওয়ানডে ম্যাচ খেলে ৩২৫টি উইকেট শিকার করেছেন মালিঙ্গা। বোলিংয়ে তার ইকোনোমি রেট ৫.৩৫। বিশ^কাপে এখন পর্যন্ত ২২ ম্যাচে তার উইকেট ৪৬টি।

অন্যদিকে মোস্তাফিজ এখন পর্যন্ত ৪৯টি ম্যাচ খেলে ৮৭টি উইকেট নিয়েছেন। বোলিংয়ে ৫.০৩ ইকোনোমি রেটে মালিঙ্গার প্রায় কাছাকাছিই রয়েছেন। পরিসংখ্যান অনুযায়ী সবকিছু ঠিকঠাকই রয়েছে। তবে এখন দেখার মূল বিষয় হলো মোস্তাফিজ শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে জ্বলে ওঠতে পারেন কিনা। তিনি যদি কিছু করেন তাহলে বাংলাদেশ বিশ^কাপ সেমির দিকে আরেক ধাপ এগিয়ে যাবে।

পরিসংখ্যানে বাংলাদেশ শ্রীলঙ্কা ওয়ানডে

ম্যাচ বাংলাদেশ শ্রীলঙ্কা পরি:

৪৫ ৭ ৩৬ ২

দলীয় সর্বোচ্চ

বাংলাদেশ

৩২৪/৫ ডাম্বুলা, ২০১৭

শ্রীলঙ্কা

৩৫৭/৯, লাহোর, ২০০৮

দলীয় সর্বনি¤œ

বাংলাদেশ

৭৬ রান অলআউট, কলম্বো, ২০০২

শ্রীলঙ্কা

১২৪ রান অলআউট, দুবাই, ২০১৮

ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ রান

বাংলাদেশ

তামিম ২১ ম্যাচ ৬৪৫ রান

শ্রীলঙ্কা

সাঙ্গাকারা ৩১ ম্যাচ ১২০৬ রান

সেরা ইনিংস

বাংলাদেশ

মুশফিকুর রহিম – ১৪৪

শ্রীলঙ্কা

তিলকারতেœ দিলশান – ১৬১*

সর্বোচ্চ উইকেট

বাংলাদেশ

মাশরাফি ২২ ম্যাচ ২৬ উইকেট

শ্রীলঙ্কা

মুরালিধরন ১৭ ম্যাচ ৩১ উইকেট

খেলা-ধূলা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj