সূচনা কলাম

মঙ্গলবার, ১১ জুন ২০১৯

সাকিবকে নিয়ে লঙ্কানদের পরিকল্পনা

খেলা প্রতিবেদক : দ্বাদশ বিশ^কাপে বোলারদের কাছে এক আতঙ্কে পরিণত হয়েছেন বাংলাদেশের সাকিব আল হাসান। হওয়ার কারণটাও খুব পরিষ্কার। এ পর্যন্ত খেলা তিন ম্যাচে দুইটিতে হাফ সেঞ্চুরি এবং একটিতে করেছেন সেঞ্চুরি। প্রথম ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে করেন ৭৫ রান, দ্বিতীয় ম্যাচে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ৬৪ রান ও তৃতীয় ম্যাচে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে করেন ১২১ রান। চার বিশ^কাপ খেলা সাকিব এবারই প্রথমবারের মতো বৈশি^ক এই আসরটিতে সেঞ্চুরির দেখা পেয়েছেন তাও সেটি র‌্যাংকিংয়ে এক নম্বরে থাকা দলের বিপক্ষে। আজ তাই স্বাভাবিকভাবেই বাংলাদেশের বিপক্ষে নামার আগে শ্রীলঙ্কার খেলোয়াড়রা সাকিবকে নিয়ে আলাদা পরিকল্পনা কষছেন। কিভাবে সাকিবকে থামানো যায়, কিভাবে থামানো যায় তার রানের রথ। তার দুর্বল জায়গা কোথায় তা নিয়েই চিন্তা-দুশ্চিন্তায় ব্যস্ত লঙ্কান বোলাররা। লঙ্কানদের সাম্প্রতিক পারফরমেন্স যদিও খুব বেশি ভালো যাচ্ছে না। তবে আবার একদম খারাপও নয়। আফগানিস্তানকে ১৮৬ রানের সহজ টার্গেট দিয়েও মাত্র ১৫২ রানে আটকে ফেলেন মালিঙ্গা-পেরেরারা। মালিঙ্গা-পেরেরা ছাড়াও দলে আছেন নুয়ান প্রদীপ ও সুরাঙ্গা লাকমালের মতো তুখোড় পেসার। তাছাড়া স্পিনার হিসেবে আছেন জীবন মেন্ডিস ও জেফরে ভানদারসে। তাদের সব বোলারেরই লক্ষ্য থাকবে কিভাবে কম রানে সাকিবকে প্যাভিলিয়নের পথে হাঁটানো যায়। তবে সাকিবের ক্ষেত্রে ব্যাপারটি সম্পূর্ণ আলাদা। আইসিসির র‌্যাংকিংয়ে নাম্বার ওয়ান অলরাউন্ডার তিনি। নামের প্রতি সুবিচার করে নিয়মিত রান করে যাচ্ছেন।

বেল বিতর্ক

খেলা ডেস্ক : দ্বাদশ বিশ^কাপ আসর ঘিরে আলোচনা-সমালোচনা ও বিতর্ক যেন পিছুই ছাড়ছে না। প্রথমে ধোনির গøাভস এবং এরপর বাজে আম্পায়ারিং বিতর্ক। এবার নতুন করে উঠে এসেছে বেল বিতর্ক। কারণ স্টাম্পে বল লাগলেও পড়ছে না বেল। বারবার এরকম দেখে হতবাকই হয়ে গেছেন বোলাররা। তাই এ বিষয়ে সমালোচনা করেছেন ভারতের দলপতি বিরাট কোহলি ও অজি অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চ। গত রবিবার ভারত-অস্ট্রেলিয়া ম্যাচের প্রথম ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারে জাসপ্রিত বুমরাহর একটি ডেলিভারি অজি ব্যাটসম্যান ডেভিড ওয়ার্নার খেলতে না পারায় স্টাম্পে লাগে। কিন্তু পড়েনি বেল। আর এই কারণে হতাশ হয়েই বোলিং রানআপে ফিরতে হয় ভারতের পেসার বুমরাহকে। ফলে ম্যাচ শেষে সমালোচনা করে ভারতের অধিনায়ক কোহলি বলেন, আন্তর্জাতিক পর্যায়ে এমন ভুল কোনভাবেই আশা করা যায় না। আমি মনে করি প্রযুক্তির ব্যবহার দারুণ। স্টাম্পের সঙ্গে আপনি যদি কিছু করে থাকেন তাহলে নিমিষেই বাতি জ্বলে উঠবে। কিন্তু সেটার জন্য আপনাকে জোরে আঘাত করতে হবে। আমি জানি না স্টাম্পে ভুল কী আছে। আমি কখনোই এরকম ঘটনা বারবার ঘটতে দেখিনি। এটা কোনো দলই স্বাভাবিকভাবে নিতে পারবে না। এমন নয় যে বোলাররা কম গতিতে বল করছেন।

কোহলির আচরণে…

খেলা ডেস্ক : ক্রিকেটের মাঠে ভারতের অধিনায়ক বিরাট কোহলির আচরণ নিয়ে আলোচনা-সমালোচনার শেষ নেই। গত পরশু লন্ডনের কেনিংটন ওভালে অজিদের বিপক্ষে মাঠে নামে কোহলিরা। এ ম্যাচে স্টিভ স্মিথকে ভারতের সমর্থকরা গ্যালারি থেকে অনবরত দুয়ো দিয়েছিল। তবে ব্যাপারটি নজর এড়ায়নি ভারতের দলপতির। খেলা থামিয়ে গ্যালারির দিকে এগিয়ে গিয়ে তিনি দর্শকদের অনুরোধ করেন স্মিথের খেলোয়াড়ি শ্রেষ্ঠত্বকে সম্মান দেয়ার। কোহলির এই আচরণে মুগ্ধ হয়েছেন স্মিথ নিজেও। ম্যাচের মধ্যেই কোহলিকে ধন্যবাদ দিতে স্মিথ চলে আসেন, দুজন করমর্দন করেন। গত রবিবার অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টস জিতে প্রথমে ব্যাটিং করে ৩৫২ রান স্কোরবোর্ডে তোলে ভারত। এমনকি অ্যারন ফিঞ্চদের ৩৬ রানে হারিয়ে বিশ^কাপে টানা দ্বিতীয় জয়টি তুলে নিয়েছে রবি শাস্ত্রির শিষ্যরা। তবে ওদিন ভারতের ইনিংস চলাকালে বাউন্ডারি লাইনে দাঁড়িয়ে ফিল্ডিং করছিলেন অজি তারকা স্টিভেন স্মিথ। তখন তাকে গ্যালারি থেকে ভারতের দর্শক ও সমর্থকরা নানা কট‚ কথা বলে উত্ত্যক্ত করার চেষ্টা করছিল। ক্রিজে তখন ব্যাট করছিলেন অধিনায়ক বিরাট কোহলি। কিন্তু ওই সময় হঠাৎ স্মিথের পক্ষে দাঁড়ান বিরাট কোহলি। ক্রিজ ছেড়ে বেরিয়ে এসে হাত দিয়ে ইশারা করে ভারতীয় সমর্থকদের নিষেধ করেন স্মিথদের দুয়ো দিতে। কোহলির আহ্বানে সমর্থকরা দুয়ো ধ্বনি দেয়া বন্ধ করে দেন। এ বিষয়ে ম্যাচ শেষে জয়ী দলের অধিনায়ক হিসেবে সংবাদ সম্মেলনে এসে বিরাট কোহলি ভারতীয় সমর্থকদের পক্ষ থেকে স্টিভেন স্মিথের নিকট ক্ষমা প্রার্থনা করেছেন।

খেলা-ধূলা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj