চিরঘুমে অভিনেত্রী রুমা গুহঠাকুরতা

মঙ্গলবার, ৪ জুন ২০১৯

বিনোদন ডেস্ক : কলকাতায় নিজের বাড়িতে ঘুমের মধ্যেই প্রয়াত হলেন ক্যালকাটা ইয়ুথ কয়্যারের প্রতিষ্ঠাতা, অভিনেত্রী, কণ্ঠশিল্পী রুমা গুহঠাকুরতা। গতকাল ৩ জুন ভোর ৬টা ১৫ মিনিটে মারা যান বর্ষীয়ান এই অভিনেত্রী। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৮৪ বছর। ১৯৩৪ সালে কলকাতায় জন্ম হয় রুমার। বাবা সত্যেন ঘোষ এবং মা সতী ঘোষ সংস্কৃতি জগতের মানুষ ছিলেন। ১৯৫২ সালে জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী ও অভিনেতা কিশোর কুমারের সঙ্গে বিয়ে হয় রুমার। তাদের সন্তান অমিত কুমার। ১৯৫৮ সালে বিচ্ছেদ হয়ে যায় তাদের। কিশোরের সঙ্গে বিচ্ছেদের পর ১৯৬০ সালে রুমার সঙ্গে বিয়ে হয় অরূপ গুহঠাকুরতার। গায়িকা শ্রমণা চক্রবর্তী, অয়ন গুহঠাকুরতা তাদের সন্তান। অরূপ গুহঠাকুরতার ভাই সুদেব ভারতীয় গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন বড় কোনো অসুস্থতা ছিল না রুমার। বার্ধক্যজনিত কারণেই মারা গেছেন তিনি। গতকাল বিকেলে শেষকৃত্য সম্পন্ন হয় তার। অভিনেত্রী এবং গায়িকা হিসেবে সমাদৃত ছিলেন রুমা গুহঠাকুরতা। গান গেয়েছেন, ‘অমৃত কুম্ভের সন্ধানে’, ‘বাঘিনী’, ‘পলাতক’সহ আরো বেশ কিছু বিখ্যাত ছবিতে। অভিনেত্রী হিসেবে কাজ করেছেন সত্যজিৎ রায় থেকে শুরু করে বিখ্যাত সব পরিচালকের ছবিতেই। ‘গঙ্গা’, ‘শাখা-প্রশাখা’, ‘আরোগ্য নিকেতন’, ‘আশিতে আসিও না’, ‘অভিযান’, ‘পলাতক’, ‘বাঘিনী’, ‘নির্জন সৈকতে’, ‘বালিকা বধূ’, ‘পার্সোন্যাল অ্যাসিস্ট্যান্ট’, ‘দাদার কীর্তি’, ‘হংসমিথুন’, ‘ত্রয়ী’, ‘৩৬ চৌরঙ্গী লেন’সহ বহু বাংলা ছবিতে গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অভিনয় করেছেন রুমা। ‘জোয়ার ভাটা’, ‘মশাল’, ‘আফসর’, ‘রাগ রং’-এর মতো হিন্দি ছবিতেও অভিনয় করেছেন তিনি।

বিনোদন'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj