কেমন কাটবে ঈদের দিন

শনিবার, ১ জুন ২০১৯

সাধারণ মানুষের পাশাপাশি তারকাদের ঈদ আয়োজনেও থাকে উৎসবের আমেজ। সারা বছরের ব্যস্ততার মাঝে ঈদের দিনটিতে তারা খুঁজে নেন প্রিয়জনের সান্নিধ্য। পরিবার, বন্ধু-বান্ধব, কাছের মানুষদের সঙ্গে সময় কাটিয়ে ভুলে যান সব ধরনের ক্লান্তি। এবারের ঈদের পরিকল্পনা নিয়ে ‘মেলা’র মুখোমুখি হয়েছেন কয়েকজন তারকা

দর্শকদের সঙ্গে হলে হলে দিন কাটাবো

ববি

এবারের ঈদ নোলকময়

এবারের ঈদ সবার জন্য স্পেশাল কারণ ‘নোলক’ মুক্তি পেয়েছে। আর আমার জন্য ঈদ মানে আনন্দ, ঈদ মানে ‘নোলক’।

এ ছাড়া ভালো লাগছে এবারের ঈদ ভক্তদের সঙ্গে কাটাতে পারব। দর্শকদের সঙ্গে আমিও হলে গিয়ে ছবিটি দেখব। ঢাকা ও ঢাকার বাইরে সারাদেশের বিভিন্ন সিনেমা হলে ঘুরে বেড়াব।

‘নোলক’ নিয়ে উত্তেজনা

কাজ করছে

আমাদের ঢাকাই সিনেমার দুর্দিনে ‘নোলক’ হয়তো আলো দেখাবে, এমনটাই ভাবছি। কী নেই নোলকে! অ্যাকশন, রোমান্স, পারিবারিক গল্প সবই রয়েছে। অনেকদিন পর বিগ বাজেটের ভালো ছবি আসছে। ‘নোলক’ নিয়ে উত্তেজনা কাজ করছে। সবাইকে হলে গিয়ে নোলক দেখার আমন্ত্রণ।

আনন্দ-বেদনার মিশ্র অনুভূতি

এত আনন্দের মাঝেও মনে পড়ছে বাবার কথা। বাবাকে ছাড়া এটা আমার প্রথম ঈদ। তাই এবারের ঈদ আমার জন্য আনন্দ-বেদনার মিশ্র অনুভূতি। যদিও ‘নোলক’ নিয়েই ব্যস্ত থাকব বেশি তবু বাবাকে ভীষণ মিস করব।

ঈদের দিন সারাদিন ঘুমাবো

শবনম ফারিয়া

অনেক নাটকে কাজ করেছি

রমজান মাস শুরুর পর থেকে শুটিং নিয়ে ব্যস্ততা বেড়ে গেছে। এবার ঈদে অনেক নাটকে কাজ করেছি। টানা কাজের পর ঈদের দিন অবসর থাকায় ভাবছি সারাদিন ঘুমাবো। ঈদের পর নুহাশ পল্লী অথবা গাজীপুরে ঘুরতে যাব।

চাঁদরাতে কেনাকাটা করব

ঈদের কেনাকাটা এখনো শুরু করিনি, চাঁদরাতে কেনাকাটা করব। পরিবারের সবার জন্য কম-বেশি কেনাকাটা করব। আমি সাধারণত কামিজ পরতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করি, তাই এবার লাইট কালারের কামিজ নিবো ভাবছি।

সবাই একসঙ্গে ঈদ করতাম

ছোটসময় চিটাগংয়ে ঈদ করতাম। ঈদে সাজগোছের একটা ব্যাপার থাকত। মেহেদী দিয়ে দুই হাত ভরে ফেলতাম। বড়দের কাছ থেকে সালামি নিতাম। তখন সবকিছু ঈদ ঈদ লাগত। দাদুর বাড়িতে পরিবারের সবাই একসঙ্গে ঈদ করতাম। চাচাতো ভাই-বোন সবাই মিলে ঈদের আনন্দে মেতে থাকতাম।

‘জন উইক’ দেখতে যাব

এ ছাড়া ঈদে মুভি দেখতে যাই। গতবার ঈদে ‘পোড়ামন ২’ দেখেছিলাম। এবার ঈদে ক্যাড স্টেহলস্কির ‘জন উইক’ চ্যাপ্টার থ্রি দেখতে যাব।

কনসার্ট নিয়ে ব্যস্ত থাকব

ঐশী

ঈদের ছুটি

আমরা যারা গান-বাজনা, মিডিয়ার সঙ্গে যুক্ত ঈদ আসলে তাদের ব্যস্ততা অনেকগুণ বেড়ে যায়। ছোটবেলা থেকেই ঈদের দিন প্রোগ্রাম থাকে, এবারো ঈদের দিন প্রোগ্রাম রয়েছে। ঈদের দিন রাত ১১টা ৩০ মিনিটে থাকব একুশে টেলিভিশনে। এ ছাড়া ঈদের পরদিন থেকে বিভিন্ন জায়গায় লাইভ কনসার্ট রয়েছে, সেগুলো নিয়ে ব্যস্ত থাকব।

ঈদের সকাল

প্রত্যেক ঈদে আলাদা একটা আমেজ কাজ করে। ঈদের দিন সকাল-সকাল ঘুম থেকে উঠে যাই। কিছু সময় টিভিতে বিভিন্ন অনুষ্ঠান দেখে সময় কাটাই। মাঝে-মাঝে আম্মুকে তার কাজে সাহায্য করি। এভাবে দুপুর পর্যন্ত কেটে যায়। কোনো কাজ না থাকলে মাঝে-মধ্যে ঘুরতে বের হই। কিন্তু প্রোগ্রাম থাকলে অন্য কোথাও যাওয়া হয় না। প্রস্তুতির একটা ব্যাপার থাকে, সেজন্য হাতে কিছু সময় রাখি।

মন পড়ে থাকে নেয়াখালী

একসময় ঈদ করতাম নোয়াখালীতে। আব্বু-আম্মুসহ সপরিবারে ঢাকায় চলে আসার পর থেকে ঈদ ঢাকাতে করা হয়। তবে ঈদের আগে সময়-সুযোগ হলে এক ফাঁকে গ্রাম থেকে ঘুরে আসি। এবারো তাই করেছি; কিছুদিন হলো নোয়াখালী থেকে ঘুরে এসেছি। ছোটবেলায় ঈদ করেছি সেখানে, আত্মীয়স্বজন সবাই একসঙ্গে।

একমাত্র ঈদের দিনই ফ্রি থাকি

মিশু সাব্বির

শুটিং করেই কেটে গেছে

গত এক মাস খুবই ব্যস্ত ছিলাম। পুরো একটা মাস শুটিংয়ের ওপরই পার হয়ে গেছে। সব সময়ের মতো এবার ঈদেও অনেক নাটকে কাজ করেছি। দর্শককে সেগুলো দেখার আমন্ত্রণ।

একমাত্র ঈদের দিনই ফ্রি

ঈদের দিনই একমাত্র ফ্রি! কিছুটা অবসর সময় পাই, সকালে নামাজ পড়ে এসে ঘুমাই। তেমন কোথাও যাওয়া হয় না। টানা কাজ করার পর ঈদের দিন কোথাও যেতে ইচ্ছে করে না। বাসায় বসে বসে বিভিন্ন চ্যানেলে প্রচারিত নাটকগুলো দেখি। অন্যদের অভিনয় দেখি। নিজের কাজগুলোতে মাঝে-মধ্যে চোখ বোলাই।

ঈদের সেই দিনগুলো

ছোটবেলায় রোজা আসলে দিন গোনা শুরু করে দিতাম, কবে ঈদ আসবে! রোজার প্রথম দিকেই ঈদের কাপড়-চোপড়, যাবতীয় কেনাকাটা সেরে ফেলতাম। এখনতো সারা বছর কেনাকাটার ওপর থাকি। ঈদের শপিংয়ে তাই আগ্রহ কমে গেছে। তবে পরিবারের সকলে যেদিন শপিংয়ে যায়, সেদিন আমিও যাই। এবার এখনো যাওয়া হয়নি, তবে যাবো। সবাই মিলে শপিং করার একটা আনন্দ আছে।

:: রাব্বানী রাব্বি

মেলা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj