বিআইডব্লিউটিএর অভিযান : সদরঘাটে ২৫টি দোকান উচ্ছেদ

বুধবার, ২২ মে ২০১৯

কাগজ প্রতিবেদক : সদরঘাট লঞ্চ টার্মিনালের ভেতরে থাকা ২৫টি দোকানঘর শেষপর্যন্ত উচ্ছেদ করেছে বিআইডব্লিউটিএ। দীর্ঘদিন ধরে চলা আইনি বাধা কেটে যাওয়ায় গতকাল মঙ্গলবার দোকানগুলো উচ্ছেদ করা হয়েছে। ২০০৩ সালে বিআইডব্লিউটিএ নিজেই এসব দোকানপাট তৈরি করে ইজারা দিয়েছিল।

বিআইডব্লিউটিএর বন্দর পরিচালক শফিকুল ইসলামের নেতৃত্বে সকালে দোকানগুলো ভাঙার কাজ শুরু হয়। এ সময় কিছু দোকানদার আপত্তি জানিয়ে ঈদ পর্যন্ত থাকার সুযোগ চান। তবে কর্মকর্তারা তাতে রাজি না হওয়ায় দ্রুত মালামাল সরিয়ে নিতে শুরু করেন তারা।

সংশ্লিষ্টরা জানান, ২০০৩ সালে বিআইডব্লিউটিএ নিজেই এসব দোকানপাট বানিয়ে ইজারা দেয়। কিন্তু পরবর্তী সময় সেগুলো নিয়ে আপত্তি তোলেন পরিবেশবাদীরা। নদীর জায়গায় অবৈধভাবে এসব দোকানপাট নির্মাণের অভিযোগ তোলেন তারা। একপর্যায়ে ২০১২ সালে দোকানগুলোর ইজারা বাতিল করে কর্তৃপক্ষ। কিন্তু দোকানদাররা এর বিরুদ্ধে আদালতের দ্বারস্থ হন। দীর্ঘদিন মামলা মোকাদ্দমা চলার পর গত ১৯ মে আপিল বিভাগ এসব উচ্ছেদের পক্ষে রায় দেন। ফলে গতকালই উচ্ছেদ অভিযান চালানো হয়। উচ্ছেদের সময় দোকানের দরজা ও অন্যান্য মালামাল নিলামে তোলা হয়। এ জন্য ২ লাখ ৪০০ টাকা দর পাওয়া যায়।

এদিকে নারায়ণগঞ্জের বৈদ্যেরবাজার এলাকায় গতকাল শীতলক্ষ্যার তীরে অবৈধ দখলদারদের বিরুদ্ধে উচ্ছেদ অভিযান চালায় বিআইডব্লিউটিএ। বিআইডব্লিউটিএর যুগ্ম পরিচালক গোলজার আলী ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোস্তাফিজুর অভিযান পরিচালনা করেন।

বিআইডব্লিউটিএর উপপরিচালক মো. শহীদ উল্লাহ জানান, গতকাল ইউনিক গ্রুপসহ কয়েকটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের নদী দখল করা অবৈধ স্থাপনা ভেঙে দেয়া হয়েছে। এর মধ্যে ১টি ৪ তলা, ২টি দুই তলা ভবন ও ১০/১৫টি ছোট দোকানঘর ভেঙে দেয়া হয়। এ ছাড়া বালু ব্যবসায়ীদের ১টি গদিঘর ও লম্বা দেয়াল উচ্ছেদ করা হয়।

দ্বিতীয় সংস্করন'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj