ম্যানচেস্টার সিটি ঝুঁকিতে

শনিবার, ১৮ মে ২০১৯

খেলা ডেস্ক : মাত্র ৫ দিন আগে প্রিমিয়ার লিগের শিরোপা জিতেছে ম্যানচেস্টার সিটি। তাদের থেকে মাত্র ১ পয়েন্ট কম নিয়ে রানার্সআপ হয়েছে লিভারপুল। কতটা হাড্ডাহাড্ডি হয়েছে এবারের শিরোপার লড়াই তা এই দুই দলের পয়েন্ট দেখলেই বোঝা যায়। মাত্র ১ পয়েন্টের ব্যবধানে শিরোপা জয়, তাও টানা দ্বিতীয়বার- তাই শিরোপা জয়ের উল্লাসটা অন্য সময়ের চেয়ে আলাদা। উল্লাসের রেশ যেন কাটতেই চায় না। তবে ম্যানচেস্টারের এই উল্লাসে যেন এবার ভাটা পড়তে যাচ্ছে। ভাটা পড়ার কারণটা যেন তেন নয়। চ্যাম্পিয়ন্স লিগে না খেলার শঙ্কায় পড়েছে তারা। অবিশ^াস্য হলেও সত্য আগামী মৌসুমে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে নাও দেখা যেতে পারে প্রিমিয়ার লিগ চ্যাম্পিয়নদের। কারণ অবৈধ আর্থিক লেনদেনের অভিযোগ উঠেছিল কদিন আগে তাদের বিরুদ্ধে। জার্মানির এক পত্রিকা তাদের অবৈধ আর্থিক লেনদেনের গোপন খবর কদিন আগে প্রকাশ করে। এরপরই নড়েচড়ে বসে ইউরোপীয় ফুটবলের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা উয়েফা। তারা এই অভিযোগ তদন্ত করে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করার আশ^াস দেয় এবং ক্লাব ফিন্যান্সিয়াল কন্ট্রোল বডির তত্ত্বাবধানে মার্চের প্রথম সপ্তাহে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করে। এবার সেই অভিযোগের তদন্ত শেষ হয়েছে। বিভিন্ন সূত্র থেকে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী তদন্তে ম্যানচেস্টার সিটির বিপক্ষে হওয়া অভিযোগের সত্যতা পেয়েছে তদন্ত কমিটি। তদন্ত কমিটিতে আছেন ৮ জন, আর এই তদন্ত কমিটির প্রধান দায়িত্বে রয়েছেন সাবেক বেলজিয়ান প্রধানমন্ত্রী ইউভেস লেতারমে। নিউইয়র্ক টাইমসের সূত্রমতে, সুইজারল্যান্ডে তদন্ত কমিটির সবাই একত্রে মিলিত হন এবং ম্যানচেস্টার সিটিকে তাদের নীতিমালা ভঙ্গের দায়ে আগামী এক মৌসুমের জন্য চ্যাম্পিয়ন্স লিগে খেলার ওপর নিষেধাজ্ঞা দেয়ার ব্যাপারে একমত হন।

তবে ম্যানচেস্টার সিটি ক্লাব কর্তৃপক্ষ তাদের বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ অস্বীকার করেছে। নিউইয়র্ক টাইমসের খবরের প্রতিক্রিয়ায় এক টুইট বার্তায় তারা জানায় তাদের বিরুদ্ধে আনা অবৈধ আর্থিক লেনদেনের অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা। যাবতীয় নীতিমালা মেনেই সব লেনদেন হয়েছে। সুষ্ঠু তদন্ত হলে তারা নির্দোষ হিসেবেই প্রমাণিত হবে।

খেলা-ধূলা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj