সৈয়দপুরে মাছ-মাংসের দাম নাগালের বাইরে

শনিবার, ১৮ মে ২০১৯

সৈয়দপুর (নীলফামারী) প্রতিনিধি : রমজানকে সামনে রেখে সৈয়দপুরে বাজারে মাছ, মাংস ও মুরগির দাম ক্রেতাদের নাগালের বাইরে চলে গেছে। মাংস ব্যবসায়ীদের সিন্ডিকেট এবং অসাধু ব্যবসায়ীরা কৌশলে দাম বাড়িয়ে নিয়েছে।

জানা গেছে, রমজানকে টার্গেট করে ২/৩ মাস আগে মাংস ব্যবসায়ীরা সিন্ডিকেট করে দফায় দফায় গরুর মাংসের দাম বৃদ্ধি করে। একইভাবে মুরগি ও মাছ ব্যবসায়ীরা হাতছাড়া করেননি দাম বৃদ্ধির সুযোগ। এতে সাধারণ ও সীমিত আয়ের মানুষের পক্ষে রমজানে মাছ-মাংস ও মুরগি খাওয়া দুরূহ হয়ে পড়েছে। অথচ দাম নিয়ন্ত্রণে ক্রেতাদের জন্য স্থানীয় বাজার কমিটি কোনো সুখবর দিতে পারেনি। কমিটির সদস্যরা দাম বৃদ্ধির ব্যাপারে নিশ্চুপ ভূমিকা পালন করছেন। বাজারে কেবল লোক দেখানো তৎপরতা দেখা যাচ্ছে বলে অভিযোগ সাধারণ ক্রেতাদের।

এদিকে, সৈয়দপুর বাজার মনিটরিং কমিটির সভায় গরুর মাংসের ৪৮০ টাকা দরে বিক্রির সিদ্ধান্ত হয়েছে। কিন্তু গরুর মাংস ব্যবসায়ীরা ওই দর মানলেও ৫০০ টাকা দর হাঁকা হচ্ছে। অথচ রমজানের আগের দিনও তারা ৪৬০ টাকা দরে মাংস বিক্রি করেছে। ক্রেতাদের অভিযোগ, গরুর মাংস ব্যবসায়ীরা প্রশাসনের সভায় দাম বৃদ্ধির খোঁড়া যুক্তি দিয়ে ৪৮০ দরের স্বীকৃতি আদায় করে নিয়েছে। তবে, ছাগলের মাংসের দাম আলোচনায় নেই। ছাগলের মাংসের দামও গরুর মাংসের মতো বৃদ্ধি করা হয়েছে। বাজারে প্রতি কেজি ছাগলের মাংস (খাসি) ৬৫০ টাকা নির্ধারণ করা হলেও ৭০০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। অথচ হাটবাজারে গরু-ছাগলের দাম বাড়েনি, বরং কমে বিক্রি হচ্ছে। ক্রেতাদের অভিযোগ, মাংস ব্যবসায়ীরা ৪৮০ টাকা দর ঠিক করে নেয়ায় বাজারে গরুর মাংসের দাম আর কমবে না। রমজানের পর এই অজুহাতে ৪৮০ টাকা দরই বহাল রাখবে তারা। তবে, মাংস ব্যবসায়ীদের নেতা নাদিম কোরায়শী ছোটু বলেন, আমরা প্রশাসনের সিদ্ধান্তে মাংস বিক্রি করছি। তবে, কেউ কেউ সিদ্ধান্তের ব্যত্যয় করায় আমরাও বিব্রত বলে তিনি মন্তব্য করেন।

এদিকে, গরুর মাংসের দামের সঙ্গে মুরগি ব্যবসায়ীরা কেজিপ্রতি মুরগি ও ব্রয়লারের দাম ৩০ থেকে ১৫০ টাকা বাড়িয়ে দিয়েছে। বাজার ঘুরে দেখা যায়, ৩০০ টাকা কেজি দেশি মুরগি ৪৩০ টাকা থেকে ৪৪০ টাকায়, সোনালি মুরগি ২২০ টাকার স্থলে ২৪০ থেকে ২৫০ টাকায় এবং ব্রয়লার ১২০ টাকার স্থলে ১৫০ থেকে ১৬০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

সৈয়দপুর পৌর সবজি বাজারের মুরগি ব্যবসায়ী মানিকুল ইসলাম জানান, আমদানি কম হওয়ায় মুরগির দাম বেড়ে গেছে। বিশেষ করে রমজান উপলক্ষে ঢাকা-চট্টগ্রামসহ বাইরের ফাড়িয়ারা মাঠে নেমেছে। তারা ট্রাকে ট্রাকে মুরগি কেনায় বাজারে মুরগির টান পড়েছে। এ জন্য সব জাতের মুরগির দাম ঊর্ধ্বমুখী হয়েছে।

একইভাবে মাছের বাজারে দামের আঁচ ক্রেতাদের বেসামাল করে ফেলেছে। প্রতিটি মাছের দাম কেজিতে ৫০ টাকা থেকে ১০০ টাকা বেড়েছে। বিশেষ করে দেশি মাছের দাম সর্বোচ্চ পর্যায়ে হাঁকা হচ্ছে।

এই জনপদ'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj