ন্যায্যমূল্য দাবি : রংপুরে রাস্তায় ধান ফেলে কৃষকের বিক্ষোভ

শুক্রবার, ১৭ মে ২০১৯

কাগজ প্রতিবেদক, রংপুর : দ্রুত সময়ে ধানের ন্যায্যমূল্য নিশ্চিত করা না হলে আগামী বছর থেকে ধান চাষ না করার শপথ নিয়েছেন রংপুরের কৃষকরা। ধানের মূল্য বিপর্যয়ের প্রতিবাদে গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে নগরীর সাতমাথা আর কে রোডে ধান ফেলে বিক্ষোভ প্রদর্শন শেষে এ শপথ নেন তারা।

কৃষক সংগ্রাম পরিষদের ব্যানারে কর্মসূচিতে কৃষকরা সরকারি ব্যবস্থাপনায় হাটে হাটে ক্রয় কেন্দ্র খোলার দাবি জানান। তারা বলেন, হাটে ক্রয় কেন্দ্র খুলে সরাসরি কৃষকের কাছ থেকে ধান কেনার ব্যবস্থা সরকারকেই করতে হবে। সরকার প্রতি মণ ধান ১ হাজার ৪০ টাকা ঘোষণা করার পরও খোলা বাজারে কেন মূল্য-বিপর্যয় তা সরকারকেই খুঁজে বের করতে হবে। তা না হলে কৃষকরা বাঁচবে না। কৃষকরা জানান, একজন শ্রমিকের মজুরির চেয়ে এক মণ ধানের দাম এখন কম। উৎপাদন ব্যয়ের অর্ধেক তুলতে না পেরে কৃষকের অস্তিত্ব বিলীন হতে চলেছে।

বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, কৃষক সংগ্রাম পরিষদের উপদেষ্টা পলাশ কান্তি নাগ, আহ্বায়ক আব্দুস সাত্তার বাবলু, সদস্য সাত্তার প্রামাণিক, কৃষক আবু তালেব, আতোয়ার মিয়া বাবু, নিপীড়নবিরোধী নারী মঞ্চের আহ্বায়ক নন্দিনী দাস, সদস্য সানজিদা আকতার প্রমুখ।

এদিকে একই সময়ে রংপুর প্রেসক্লাব চত্বরে বাসদ (মাকর্সবাদী) জেলা শাখার নেতারা কৃষকদের বাঁচানোর দাবি জানিয়ে মানববন্ধন ও সমাবেশ করেন। এ সময় খোলা বাজারে ধানের মূল্য বিপর্যয়ের প্রতিবাদ জানিয়ে সেখানে ধানে আগুন দেন ক্ষুদ্ধ কৃষকরা। জেলা বাসদ সমন্বয়ক ও কৃষক ফ্রন্ট জেলা আহ্বায়ক আনোয়ার হোসেন বাবলুর সভাপতিত্বে বিক্ষোভ সমাবেশ বক্তব্য রাখেন পার্টির জেলা সদস্য আহসানুল আরেফিন তিতু, কৃষক প্রতিনিধি এমদাদুল হক বাবু, আবুল কাশেম প্রমুখ।

এই জনপদ'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj