থানার অস্ত্র ও গুলি চুরির ক‚লকিনারা হয়নি ১১ দিনেও

বৃহস্পতিবার, ১৬ মে ২০১৯

কাগজ প্রতিবেদক : রাজধানীর শাহবাগ থানার বিশ্রামাগার থেকে এক সহকারী উপ-পরিদর্শকের (এএসআই) সার্ভিস পিস্তল ও ১৬ রাউন্ড গুলি চুরি রহস্যের ক‚লকিনারা হয়নি দীর্ঘ ১১ দিনেও। ঘটনার পর থানার সিসি ক্যামেরার ফুটেজ পর্যালোচনা করেও অস্ত্র চোরকে শনাক্ত করতে পারেনি পুলিশ। নিরাপত্তাবেষ্টিত থানার বিশ্রামাগারে ঢুকে কীভাবে অস্ত্র ও গুলি চুরির ঘটনা ঘটেছে তা এখনো রহস্যাবৃত্ত। ওই ঘটনায় থানায় একটি মামলা হলেও তদন্ত এখনো অন্তসারশূন্য।

অস্ত্র ও গুলি চুরি যাওয়ার পর এক অনুষ্ঠানে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেছিলেন, থানা থেকে অস্ত্র ও গুলি চুরির ঘটনায় জড়িত ব্যক্তিকে কঠিন শাস্তির মুখোমুখি হতে হবে। বিষয়টি নিয়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী তদন্ত করছে। এতে যদি কারো কর্তব্যে অবহেলা থেকে থাকে তাহলে তাকে শাস্তি পেতেই হবে।

অস্ত্র ও গুলি চুরির মামলার তদন্তের অগ্রগতি সম্পর্কে শাহবাগ থানার ওসি আবুল হাসান গতকাল ভোরের কাগজকে বলেন, এ ঘটনায় তদন্ত চলছে। আমরা এখনো চোরকে শনাক্ত করতে পারিনি। তবে তদন্তে কিছু অগ্রগতি আছে, সেটা তদন্তের স্বার্থে বলা যাবে না।

গত ৫ মে শাহবাগ থানার বিশ্রামকক্ষ থেকে এক সহকারী উপপরিদর্শকের (এএসআই) সার্ভিস পিস্তল ও ১৬ রাউন্ড গুলি খোয়া যায়। ঘটনার পর দায়িত্বে গাফিলতির অভিযোগে হিমাংশু সাহা নামের ওই এএসআইকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়। অস্ত্র ও গুলি চুরি যাওয়ার ঘটনায় একটি থানায় মামলা দায়ের করা হয়।

দ্বিতীয় সংস্করন'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj