ছাত্রীকে ধর্ষণের মামলায় মাদ্রাসা শিক্ষক গ্রেপ্তার

বৃহস্পতিবার, ১৬ মে ২০১৯

চট্টগ্রাম অফিস : ১২ বছর বয়সী এক মাদ্রাসাছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে মো. ফয়জুল্লাহ (২০) নামে এক মাদ্রাসা শিক্ষককে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব। গত মঙ্গলবার ভোরে বাঁশখালীর চাম্বল ইউনিয়নের মনকির চরের মইন্যাপাড়া এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। ধর্ষক ফয়জুল্লাহ বাঁশখালীর শীলক‚প ইউনিয়নের মাওলানা আবুল কাশেমের ছেলে।

র‌্যাব জানায়, ধর্ষণের শিকার মেয়েটি বাঁশখালীর একটি মাদ্রাসার সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী এবং ফয়জুল্লাহ একই মাদ্রাসার শিক্ষক। গত ২৪ এপ্রিল রাত ৯টার দিকে প্রাইভেট পড়ানোর নাম করে ভয়ভীতি দেখিয়ে ওই ছাত্রীকে ধর্ষণ করেন ফয়জুল্লাহ। এই ঘটনায় মেয়েটির পরিবার মাদ্রাসা পরিচালনা কমিটির সভাপতি মাহমুদউল্লাহর কাছে নালিশ দেয়। কিন্তু ধর্ষক ফয়জুল্লাহর নিকটাত্মীয় মাহমুদউল্লাহ বিষয়টি সমাধান করার আশ্বাস দিয়ে সময়ক্ষেপণ করতে থাকেন। কয়েক দফা সালিশ বৈঠক হওয়ার পরও সমাধান না আসায় মেয়েটির পরিবার আদালতের আশ্রয় নেয়। আদালতের নির্দেশে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভিকটিমের ডাক্তারি পরীক্ষায় ধর্ষণের প্রমাণ মেলে। এরপর গত ১ মে ভিকটিমের মা বাদী হয়ে ধর্ষক মো. ফয়জুল্লাহর বিরুদ্ধে বাঁশখালী থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইন মামলা দায়ের করেন। এরপরই পালিয়ে যান ধর্ষক ফয়জুল্লাহ। র‌্যাব চট্টগ্রাম জোনের সহকারী পরিচালক এএসপি মো. মাশকুর রহমান জানান, র‌্যাব-৭ এই চাঞ্চল্যকর ঘটনার ছায়া তদন্ত শুরু করে এবং গোয়েন্দা নজরদারি অব্যাহত রাখে। গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে খবর পেয়ে ধর্ষক ফয়জুল্লাহকে গ্রেপ্তার করা হয়। তাকে বাঁশখালী থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

সারাদেশ'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj