মামিকে হত্যা করে ভাগিনার আত্মহত্যা

বৃহস্পতিবার, ১৬ মে ২০১৯

শিবগঞ্জ (বগুড়া) প্রতিনিধি : শিবগঞ্জে মামি আলেয়াকে (৩৫) হত্যা করে ভাগিনা আপেল (২০) আত্মহত্যা করেছে। ঘটনাটি ঘটেছে গত মঙ্গলবার উপজেলার মোকামতলা ইউনিয়নের ভাগখোলা গ্রামে। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে লাশ ২টি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠিয়েছে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী জানায়, ওই গ্রামের কৃষক ছাইদুল ইসলামের বাড়িতে ছোটবেলা থেকে থাকত তার আপন ভাগিনা আপেল (২০)। সে কাঠমিস্ত্রির কাজ করত। মঙ্গলবার সকাল ৯টার দিকে মামির সঙ্গে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে আপেল তার হাতে থাকা কাঠ কাটা বাটাল দিয়ে মামি আলেয়া বেগমের (৩৫) ঘাড়ে ও গলায় আঘাত করলে তিনি ঘটনাস্থলেই মারা যান। মামিকে আঘাত করে আপেল বাড়ির পাশে কমিউনিটি হাসপাতালে গিয়ে বাটাল দিয়ে নিজের পেট কেটে আত্মহত্যা করে। স্থানীয় লোকজনের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, তাদের মধ্যে অবৈধ সম্পর্ক ছিল। এ নিয়ে ইতোপূর্বে অনেক দেনদরবারও হয়েছে।

নিহত আলেয়া বেগমের ছেলে আলম জানায়, আমার মায়ের সঙ্গে আপেলের অবৈধ সম্পর্ক ছিল। এ নিয়ে আব্বার সঙ্গে আম্মার ঝগড়া লেগে থাকত। এ ব্যাপারে শিবগঞ্জ থানার ওসি মিজানুর রহমান বলেন, পরকীয়া না অন্য কিছু তা পুলিশ খতিয়ে দেখছে।

সারাদেশ'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj