ওষুধের মূল্য বৃদ্ধি প্রতিরোধ প্রসঙ্গে

বৃহস্পতিবার, ১৬ মে ২০১৯

মাহবুবউদ্দিন চৌধুরী

দেশে হু হু করে ওষুধের মূল্য বেড়ে যাচ্ছে, যা নিয়ন্ত্রণ করার মতো সরকারের কোনো প্রচেষ্টা চোখে পড়ে না। ওষুধ নিয়ে দেশে-বিদেশে মুনাফাবাজি, মজুদদারি আর অন্যবিধ নানা কলা-কৌশলের অন্ত নেই। এরপর রয়েছে ভেজাল ওষুধের দৌরাত্ম্য দেশের ওষুধ ফার্মেসিগুলোর রমরমা ব্যবসা। কোথায় যাবে রোগীরা। দেশে এখন ক্যান্সারের কেমো যা ব্যয়বহুল এটিও নকল বের হয়েছে। আবার এসব ওষুধ দেশের নামিদামি ফার্মেসিতে পাওয়া যাচ্ছে। কিছুদিন আগে র‌্যাব অভিযান চালিয়ে কেমোসহ বিপুল পরিমাণ ওষুধ, ইনজেকশন উদ্ধার করেন। এ ধরনের কেমো ক্যান্সার রোগীর জন্য মারাত্মক বিপজ্জনক। উন্নত দেশগুলোতে জনসচেতনতা ও সরকারি কড়াকড়ির ফলে মূল্য বৃদ্ধির এ ধরনের অপকৌশল থেকে ওষুধ প্রস্তুতকারী ও ব্যবসায়ীরা কিছুটা নিবৃত্ত থাকলেও তৃতীয় বিশ্বের দেশগুলোতে মানুষের অসহায়ত্বের সুযোগ পুরোপুরিই অসাধু ব্যবসায়ীরা গ্রহণ করে থাকে। এ ব্যাপারে শুধু নিজ নিজ দেশের ওষুধ ব্যবসায়ী ও লাইসেন্স ব্যবহারকারী ও প্রস্তুতকারীরাই যে তাদের সহযোগিতা করে থাকে তা শুধু নয়, প্রশাসনের একটি অংশও এ ব্যাপারে তাদের মুনাফাবাজির সহায়ক হিসেবে কাজ করে। জীবন রক্ষাকারী ওষুধগুলোর ব্যাপারে তো কথাই নেই, এমনকি অপ্রয়োজনীয় নানা সিরাপ, টনিক ও ট্যাবেলট জনপ্রিয় করে তুলে তা নিয়েও বাজারে অনেক কথা শোনা যায়। আজকাল অনেক ফার্মেসি বা ওষুধের দোকানে নেশা জাতীয় অবৈধ ইনজেকশন, ট্যাবলেট, সিরাপ, মাদক, ফেনসিডিল, ইয়াবা ইত্যাদি বিক্রি করে রাতারাতি বড়লোক হতে দেখা যায়। এটাও এক ধরনের অপরাধ। এতে যুবসমাজ ধ্বংস হতে বাধ্য। সমাজে অবক্ষয় দেখা দেয়। এটা প্রতিরোধে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরকে এগিয়ে আসতে হবে।

প্রয়োজনীয় ওষুধ দেশেই প্রস্তুত হোক এবং তা মানের দিক থেকে বিদেশি ওষুধের সমকক্ষ হয়ে উঠুক- এটা ওষুধ নীতির ঘোষণার পর থেকে সবাই আশা করেছিল। কিন্তু বর্তমান বাজারে আমাদের দেশের ওষুধ প্রস্তুতকারীরা সেই আশাটুকু আজো পূরণ করতে সক্ষম হয়নি। ঔষধ প্রশাসন দেশি ওষুধের মান উন্নয়নে লোকবলের অভাবে তেমন কোনো পদক্ষেপ নিতে পারেনি। ফলে এক শ্রেণির লোক বিদেশি ওষুধের শূন্যস্থান অত্যন্ত নিচুমানের ওষুধ দিয়ে পূরণ করে আসছে। এ ছাড়া দেশে ভারতীয় ওষুধের সয়লাব। দেশে যে হারে ভেজাল ও নকল ওষুধের আবির্ভাব দেখা দিয়েছে তা রোধ করার জন্য ঔষধ প্রশাসনকে পুরো মাসটি মাঠে থাকতে হবে। জীবন-মরণের ক্ষেত্রে এ ধরনের ভেজাল ওষুধ রোগবালাই দূরে যাক মৃত্যু দ্রুত আলিঙ্গন করার সম্ভবনা অধিক। এ অবস্থা কারো কাম্য নয়। তা ছাড়া দেশে ঘন ঘন ওষুধের মূল্য বৃদ্ধি এখনই রোধ করতে না পারলে বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলায় ঔষধ নীতির কার্যকারিতা মূল্যহীন হয়ে পড়বে। জনদুর্ভোগ দূর করার জন্য ওষুধের মূল্য বৃদ্ধি রোধ করতে সরকারকে সচেষ্ট হওয়ার অনুরোধ করছি।

:: গেণ্ডারিয়া, ঢাকা।

মুক্তচিন্তা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj