বিশ^কাপে দুর্নীতি দমন কর্মকর্তা

বুধবার, ১৫ মে ২০১৯

খেলা ডেস্ক : দরজায় কড়া নাড়ছে ওয়ানডে বিশ^কাপ টুনামেন্ট। আর ১৫ দিন পরে ক্রিকেটের জন্মভূমিতে বিশ^কাপ আসরের পর্দা উঠবে। এবার বিশ^কাপ টুনামেন্টে সব ধরনের দুর্নীতি এড়াতে আইসিসি বেশ সতর্ক অবস্থানে রয়েছে। বিশে^র ক্রিকেট অবিভাবক সংস্থাটি জানিয়েছে, আসন্ন বিশ^কাপে ইংল্যান্ডে পা রাখার পরপরই প্রতিটি দলের সঙ্গে জুড়ে দেয়া হবে একজন অ্যান্টি করাপশন অফিসার বা দুর্নীতি দমন কর্মকর্তা। আর তিনি সার্বক্ষণিক দলের সঙ্গে থেকে নিশ্চিত করবেন দুর্নীতিমুক্ত বিশ^কাপ। ম্যাচ গড়াপেটার মতো বড় ধরনের অপরাধের সম্ভাবনা বিশ^কাপ এলে বেড়েই যায়। আসন্ন এই বৈশি^ক আসরকে কেন্দ্র করে নড়েচড়ে বসে বাজিকররা। তাদের দৌরাত্ম্য বৃদ্ধি পাওয়ার পাশাপাশি ক্রিকেটাররাও অনেক সময় প্ররোচিত হন স্পট ফিক্সিয়ে। ক্রিকেটারদের কেউ যেন ম্যাচ গড়াপেটায় সংযুক্ত হতে না পারে এ জন্য ইংল্যান্ড বিশ^কাপে বেশ সজাগ দৃষ্টি রেখেছে আইসিসি।

এর আগে আইসিসির অধীনে দুর্নীতি দমন কর্মকর্তারা কাজ করতেন কেবল ম্যাচ চলাকালে। ফলে একেক সময় একেক কর্মকর্তার সঙ্গে কাজ করতে অসুবিধা হতো দলগুলোর। তা ছাড়া ম্যাচ চলাকালে বাইরে শৃঙ্খলা থাকছে কিনা সেই প্রশ্ন তো ছিলই। তাই সবকিছু বিবেচনা করেই বিশ^কাপে ১০টি দলের সঙ্গে সব সময় একজন করে মোট ১০ জন দুর্নীতি দমন কর্মকর্তা রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে আইসিসি। দুর্নীতি দমন কর্মকর্তারা দলের সঙ্গে থাকবেন সব সময়।

টেলিগ্রাফের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, এখন একজন অফিসার পুরো টুর্নামেন্টে একটি দল নিয়ে কাজ করবে। প্রস্তুতি ম্যাচ থেকে শুরু করে পুরো টুর্নামেন্ট পর্যন্ত। তারা দলের সঙ্গে একই হোটেলে থাকবে, একসঙ্গে ভ্রমণ করবে এমনকি যে কোনো অনুষ্ঠানে যাবে।

খেলা-ধূলা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj