সাঙ্গাকারার প্রত্যাশা

রবিবার, ৫ মে ২০১৯

খেলা ডেস্ক : ইংল্যান্ড ও ওয়েলসে অনুষ্ঠিতব্য ক্রিকেট বিশ^কাপ নিয়ে ভীষণ রোমাঞ্চিত কুমার সাঙ্গাকারার অনেক প্রত্যাশা। উপভোগ্য বিশ^কাপের প্রত্যাশায় থাকা শ্রীলঙ্কান কিংবদন্তি এবারের আসরকে ইতিহাসের অন্যতম সেরা টুর্নামেন্ট হিসেবে দেখছেন।

সম্প্রতি মেরিলিবোন ক্রিকেট ক্লাবের (এমসিসি) সভাপতি হয়েছেন সাঙ্গাকারা। অক্টোবরে ক্রিকেটের আইন প্রণয়নকারী সংস্থাটির দায়িত্ব নিতে যাচ্ছেন ২২ গজের অন্যতম সেরা বাঁ-হাতি ব্যাটসম্যান।

ইতিহাসের প্রথম অ-ব্রিটিশ (ব্রিটেনের বাইরে) ব্যক্তি হিসেবে ঐতিহ্যবাহী এমসিসি সভাপতির দায়িত্ব পাওয়া সাঙ্গাকারা রীতিমতো মুখিয়ে আছেন মাঠের লড়াই দেখতে।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম ‘হিন্দুস্তান টাইমস’কে দেয়া সাক্ষাৎকারে তিনি বলেছেন, আমার মনে হচ্ছে, ইতিহাসের অন্যতম সেরা টুর্নামেন্ট হতে যাচ্ছে এবারের বিশ^কাপ। উপভোগ্য এক বিশ^কাপ হবে এবার। প্রতিদ্ব›িদ্বতাপূর্ণ লড়াই হবে, আর আমি নিশ্চিত আমরা দারুণ ক্রিকেট ম্যাচ দেখতে যাচ্ছি।

তিনি আরো জানান, ভক্তরা দারুণ উপভোগ করবেন এবারের বিশ^কাপ। ক্রীড়াঙ্গনের জন্য এটা গ্রেট একটি আসর, আমি নিজেও ভীষণ রোমাঞ্চিত।

পাশাপাশি ক্রিকেটের উন্নয়নে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিলের (আইসিসি) প্রশংসাও ঝরেছে সাঙ্গাকারার কণ্ঠে, আমার মতে এই খেলাটি ছড়িয়ে দিতে আইসিসি দারুণ কাজ করছে। নতুন দলকে সুযোগ দিয়ে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে তারা।

উল্লেখ্য, ১০ দেশ নিয়ে ৩০ মে শুরু হবে এবারের বিশ^কাপ। উত্তেজনাকর লড়াইয়ে উদ্বোধনী ম্যাচে স্বাগতিক ইংল্যান্ডের প্রতিপক্ষ দক্ষিণ আফ্রিকা।

শ্রীলঙ্কান কিংবদন্তি সাঙ্গাকারা ক্রিকেট ক্যারিয়ারে টেস্টে ব্যাট হাতে সংগ্রহ করেছেন ১২ হাজার ৪০০ রান। আর একদিনের ক্রিকেটে তার সংগ্রহ ১৪ হাজার ২৩৪ রান। ২০১২ সালে সাঙ্গাকারাকে এমসিসির আজীবন সদস্য পদ দেয়া হয়। তিনি দীর্ঘদিন ক্লাবের ওয়ার্ল্ড ক্রিকেট কমিটির সঙ্গে যুক্ত রয়েছেন। আর ২০১৭ সালের অক্টোবরে এমসিসির ক্রিকেট কমিটির সদস্য মনোনীত হন বাংলাদেশের সাকিব আল হাসান। ওই কমিটিতে ছিলেন কুমার সাঙ্গাকারা, স্টিভ ওয়াহ, সৌরভ গাঙ্গুলি ও রিকি পন্টিংয়ের মতো তারকারা।

আগামী ১ অক্টোবর এমসিসির সভাপতির দায়িত্ব নিতে যাওয়া সাঙ্গাকারার মেয়াদ শেষ হবে ২০২০ সালের সেপ্টেম্বরে। এর আগে কখনো যুক্তরাজ্যের বাইরের কোনো ব্যক্তিকে এমন পদে দেখা যায়নি। ১৭৮৭ সালে প্রতিষ্ঠিত হওয়া এমসিসির প্রধান কার্যালয় লর্ডসে। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের নীতিমালা প্রণয়নের কাজ করে এমসিসি। এমসিসির ক্রিকেটীয় নিয়মনীতির স্বীকৃতি দেয় আইসিসি।

খেলা-ধূলা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj