চাকরি পেতে চাইলে কয়েকটি কৌশল

রবিবার, ৫ মে ২০১৯

চাকরি যেন সোনার হরিণ। দিনের পর দিন চাকরিপ্রার্থী বাড়ছে কিন্তু সে তুলনায় চাকরির ক্ষেত্র তৈরি হচ্ছে না। তবে চাকরি পেতে হলে কিছু কৌশল অবলম্বন করতে হবে। চাকরি উপযোগী করে প্রস্তুত করতে হবে নিজেকে। তাহলেই চাকরি নামক সোনার হরিণের দেখা মিলবে।

সিভি তৈরি : সিভি তৈরির সময় মনে রাখবেন নিজেকে যত আকর্ষণীয় করতে পারবেন ততই আপনার ডাক পড়ার সম্ভাবনা বেশি। তাই সিভি যেন-তেনভাবে তৈরি না করে এর প্রতি যথেষ্ট মনোযোগ দিন। সিভিতে ভুল করা যাবে না। সিভি ভুলের কারণেও অনেক মৌখিক পরীক্ষার জন্য ডাকা হয় না। আর সিভির ভুলকে অনেক প্রতিষ্ঠান তার সম্পর্কে নেতিবাচক ধারণা করে ফেলেন। তাই যেন-তেনভাবে সিভি তৈরি না করে মনোযোগ দিয়ে সিভি তৈরি করুন। আরেকটি বিষয় যে বিষয়ে ক্যারিয়ার গড়তে চান সেই বিষয়ে সিভি তৈরি করুন তাহলে আপনার চাকরি পেতে সহজ হবে।

জনসংযোগ বা যোগাযোগ : চাকরির খবরের জন্যে স্রেফ পত্রিকার বিজ্ঞাপনের ওপর নির্ভর না করে পরিচিতদের মাধ্যমেও খোঁজ নিন। এ খবর নেয়া শুরু করুন পড়াশোনা চলাকালীন থেকেই। সব সময় মনে রাখবেন পরিচিতদের রেফারেন্সে কাজ পাওয়া মানেই মামা-চাচার জোর নয়। বরং আজকের বিশ্বে দক্ষ জনসংযোগ হলো অন্যতম গুণ। আপনি ভালো যোগাযোগ করতে পারেন তাহলে আপনার চাকরি পাওয়াটা সহজ হয়ে যাবে। তাই বলা যায়, ভালো যোগাযোগ করতে পারলে ভালো চাকরি পাওয়াটা আপনার জন্য সহজ হবে।

ইন্টারভিউ বা সাক্ষাৎকার : বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই এটা হলো শেষ ধাপ। অতএব আগের সবগুলো বাছাইয়ে নির্বাচিত হওয়ার পরও এই ধাপে বাদ পড়ে গেলে পুরো চেষ্টাটাই মাটি! তাই এ ব্যাপারে সতর্ক হোন। তবে চাকরিপ্রার্থীকে সাক্ষাৎকারের সময় কিছু বিষয় খেয়াল রাখতে হবে। যেমন তার পোশাক-কথাবার্তা ইত্যাদি। আপনি ভালো করে গুছিয়ে কথা বলতে পারলে সাক্ষাৎকারদাতা আপনার প্রতি খুশি হয়ে চাকরিও দিতে পারেন। এর বাইরেও কিছু কৌশল জানা থাকা দরকার। চাকরিপ্রার্থীকে বাংলা ও ইংলিশে আবেদনপত্র লেখা জানতে হবে। অনেক উদ্যোক্তাই অভিযোগ করেন, অনেক চাকরিপ্রার্থী ভালো করে একটা আবেদনপত্র লিখতে পারে না। তাদের কিভাবে চাকরি দেই। তাই যে কোনো সময় বাংলা এবং ইংলিশে আবেদন লেখার যোগ্যতা থাকতে হবে। তাহলে চাকরি পাওয়াটা সহজ হতে পারে।

ফ্যাশন (ট্যাবলয়েড)'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj