ফণীর ছোবলে পেছাল বিয়ে

শনিবার, ৪ মে ২০১৯

কাগজ ডেস্ক : বিয়ের সব আয়োজন চলছিল স্বাভাবিক নিয়মেই। বিয়ের আয়োজনের মধ্যেই ব্যাপক শোরগোল বাধিয়ে দিল ফণী। গতকাল শুক্রবার বিয়ের দিন ধার্য ছিল থেকেই। তবে হঠাৎ করেই বুধবার বিকেলে কনের বাবার কাছে ফোন এলো বরপক্ষের। বলা হলো বিয়ে পেছানোর কথা। কয়েক সেকেন্ড চুপ থাকার পরে শেষ পর্যন্ত বরপক্ষের কথাতেই বিয়ে স্থগিত রাখতে রাজি হয়ে যান তিনি। ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের পূর্ব মেদিনীপুরে। শুক্রবার বিয়ের দিন ধার্য ছিল গৌতম মণ্ডল ও অনিতা মাইতির। কিন্তু ঘূর্ণিঝড় ‘ফণী’ নিয়ে সতর্কবার্তায় বিয়ে স্থগিত রাখতে বাধ্য হয়েছে দুই পরিবারই। অনিতার বাবা নিমাই মাইতি বলেন, মেয়ের বিয়ে পিছিয়ে গেলে মানসিক অবস্থা কী হতে পারে, বুঝতেই পারছেন। কী করব, দুর্যোগের কাছে মানুষ তো নিছকই খেলনা! বরপক্ষ বলছে বিয়ের পরবর্তী দিনক্ষণ ঠিক হয়েছে আষাঢ়ে।

ফণীর ফণায় উড়ে গেল ছাদ

কাগজ ডেস্ক : ভারতের পূর্বাঞ্চলীয় প্রদেশ ওড়িশার পুরী, ভুবনেশ্বর, কটক, ভদ্রক, চাঁদিপুর, বালেশ্বর এলাকায় নারকীয় তাণ্ডব চালিয়ে ক্রমশ দুর্বল হয়ে পশ্চিমবঙ্গের দিকে অগ্রসর প্রবল ঘূর্ণিঝড় ফণী। রাজ্যের বিভিন্ন স্থানে উপড়ে পড়েছে গাছ-পালা, উড়ে গেছে বাড়ির ছাদ। আবার কোথাও সামুদ্রিক জলোচ্ছ¡াস বাঁধ ছাপিয়ে ঢুকে পড়ে জনপদে। এতে অনেক এলাকা তলিয়ে গেছে। এক সপ্তাহের বেশি সময় ধরে বঙ্গোপসাগরে শক্তি সঞ্চয় করছিল গ্রীষ্মমণ্ডলীয় অতি প্রবল ঘূর্ণিঝড় ফণী। গত কয়েকদিন ধরেই ঝড়ের আগাম পূর্বাভাষ দিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ ও ভারতের আবহাওয়া দপ্তর। শুক্রবার সকালে ঝড়ের নারকীয় তাণ্ডব থেকে রক্ষা পায়নি স্থায়ী অবকাঠামো, বাড়িঘর, গাছপালা।

দূরের জানালা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj