ট্রেন্ড : ভ্রু’র মানানসই উপস্থাপনা…

রবিবার, ২৮ এপ্রিল ২০১৯

মুখের সৌন্দর্যে ভ্রু’র মানানসই উপস্থাপনা জরুরি। কেননা, যত সুন্দর ও সঠিকভাবে মেকআপ করা হোক না কেন, ভ্রæর আকৃতি যদি মুখের সঙ্গে মানানসই না হয়, তাহলে চেহারার পুরা লুকটাই নষ্ট হয়ে যেতে পারে। শুধু চেহারার নয়, চোখের সৌন্দর্যের অনেকটাই নির্ভর করে চোখের ওপর বসে থাকা ভ্রæ জোড়ার ওপর। বলা যায়, অনলাইনের বদৌলতে ফ্যাশনে থেমে নেই ভ্রæ বা আইব্রাও বদলের ধারা!

ন্যাচারাল ব্রাও/ ভ্রæ

চক্রাকারে ট্রেন্ডে ফেরত এসেছে এলোমেলো ধাঁচের ন্যাচারাল ব্রাও। চিকন কিংবা মোটা- যেমনই হোক না কেন, ব্রাশ করা যাবে না একে। আইপেন্সিলে আঁকা যাবে না আলাদা কোনো লাইন কিংবা ভরাট করা যাবে না ফাঁকা অংশ। খুব বেশি প্লাক না করে প্রাকৃতিকভাবে বাড়তে দিতে হবে ভ্রæ। তবে, যারা একটু অন্যভাবে সাজতে পছন্দ করেন, তারা এই ভ্রæর সঙ্গে চোখে এঁকে নিচ্ছেন গ্রাফিক আইলাইনার। আউট অব দ্য বক্স কিছু ট্রাই করতে চাইলে ব্লিচড আইব্রাওয়ের সঙ্গে গথিক ব্লু্যাক লিপ আর ড্রামাটিক আইশ্যাডোর কম্বিনেশনও ট্রাই করা যেতে পারে। এ ক্ষেত্রে বেশি ড্রামাটিক কিছু না চাইলে স্মোকি আইলুকও খারাপ দেখাবে না সাজে। ইনভিজি ব্রাওয়ের সঙ্গে বোল্ড লিপও চমৎকার দেখায়।

মাইক্রোবেøডিং

স্বাভাবিক সুন্দর এবং ভরাট ভ্রæর জন্য মাইক্রোবেøডিং চমৎকার বিকল্প। একসময় স্থায়ী আইব্রাওয়ের প্রচলন থাকলেও এখন ফ্যাশন-সচেতনরা এতেই ঝুঁকছেন। কসমেটিকস প্রফেশনালদের থেকে নিয়ে তারকাদের মধ্যেও যা জনপ্রিয়। একদম ন্যাচারাল লুক দেয় কসমেটিকস ট্যাটুইংয়ের আধুনিক এই ভার্সন। পুরোনো প্রক্রিয়ার মতো এতে ইঙ্ক ব্লুক ব্যবহার করা হয় না। কোনো ধরনের ধারালো কিংবা জটিল যন্ত্রেরও দরকার নেই এতে। পুরোপুরি ম্যানুয়াল এ প্রক্রিয়ায় সার্টিফাইড স্পেশালিস্টরা নন-ভাইব্রেটিং, ছোট সূ² যন্ত্র দিয়ে পিগমেন্ট পুরে দেন ত্বকের নিচে; যা আইব্রাওয়ের আলাদা চুলের মতো রূপ নেয় পরবর্তী সময়ে।

চিক টু ফ্লিক

কারা ডেলেভিঞ্জে, আরিয়ানা গ্র্যান্ড থেকে কিম কার্দাশিয়ানের মতো তারকাদের আনুকূল্যে ট্রেন্ডে ফিরে এসেছে ফ্লিক ব্রাও। সুন্দর এবং সঠিকভাবে গ্রুম করে নেয়া এক জোড়া ভ্রæই এর মূল বৈশিষ্ট্য। অর্থাৎ সঠিক শেপের ভরাট করা ভ্রæ একদম ব্রাও অন পয়েন্ট। উল্লেখ্য, গোসলের সময় ভ্রæতে কন্ডিশনার লাগিয়ে ম্যাসাজ করুন। এটি করলে ভ্রæর রক্তসঞ্চালন বৃদ্ধি পায় এবং নতুন লোম গজায়।

বয়িশ ব্রাও

ড্রামাটিক স্কয়ারড অব আইব্রাও এখন ইন ট্রেন্ড। ন্যাচারালি গ্রুমড সটান সোজা এই ভ্রæ চেহারায় দেয় তারুণ্য। টুইজার, পেন্সিল কিংবা পাউডার নয়- টিন্টেড জেলের ব্যবহারে সহজেই ফুটিয়ে তোলা যায় বয়িশ ব্রাও। এতে ফেদারিং টেকনিক ব্যবহার করা হয়, যা ব্রাশড বয় ব্রাওকে অনেকটা সময় পর্যন্ত ধরে রাখে। সেই সঙ্গে হালকাভাবে ভ্রæর ফাঁকা অংশ ভরাট করে দেয়া হয় বলে একদম ন্যাচারাল দেখায়।

ফ্যাশন (ট্যাবলয়েড)'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj