সিলেটে পাফোসদের বৈশাখী মিলনমেলা

শনিবার, ২৭ এপ্রিল ২০১৯

মিহির মোহন

নবফাগুনের বাতাসে আন্দোলিত সিলেট পাফোসরা (পাঠক ফোরাম সদস্যরা) আয়োজন করল বৈশাখী মিলনমেলা। ছোট শিশুদের দিয়ে প্রদীপ প্রজ্বালনের মাধ্যমে শুরু হওয়া এ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বিশিষ্ট লেখিকা অমিতা বর্ধন। স্মৃতি রোমন্থন করে দীর্ঘ গঠনমূলক ব্যাখ্যা দেন কবি ও সংগঠক বিণয় ভূষণ তালুকদার। আলোচনায় অংশ নেন সাংবাদিক দেবব্রত রায় দিপন, ভোরের কাগজ গোয়াইনঘাট প্রতিনিধি ইলিয়াস আকরাম।

২.

এরপর ‘এসো হে বৈশাখ এসো এসো…’ গানের সঙ্গে ঐশ্বর্য প্রিয়ার নৃত্যে শুরু হয় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। অনুষ্ঠানে ফাঁকে ফাঁকে কবিতা আবৃত্তি করেন আব্দুর রহমান, মিজানুর রহমান, নুরুল আবেদীন, অজয় বৈদ্য অন্তর, আনন্দ তালুকদার, সুমনা রানী তালুকদার, রাজশ্রী তালুকদার। ১৯৪৭ থেকে মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে নিজের লেখা পুঁথি পাঠ করেন মহিউদ্দিন জয়। যা সবার হৃদয় স্পর্শ করে যায়।

৩.

ভোরের কাগজের উচ্ছল তারুণ্যে আর সোনালি দিনের ভালোবাসার অনুভূতি স্মৃতিচারণ করেন কবি ধ্রæব গৌতম, উদয়ন বড়–য়া, সজল ঘোষ। এ মিলনমেলাকে প্রাণবন্ত করে তুলতে আসেন পুরনো পাফো বন্ধু পলক, পিংকু, হীরা মোহন রায়, বাবুল প্রমুখ। সঙ্গীতে পাঠক ফোরাম পরিবারের সহধর্মিণীরা এগিয়ে। দিপালী তালুকদার (বিনয় বাবুর) আর ইমা দাসের (মিহির বাবুর) সুর মূর্ছনায় আরো গতি আনে বিপাশা, দীপ্ত, রনি, মনজুরের সুমিষ্ট কণ্ঠ।

৪.

যৌতুক মারাত্মক অপরাধ। এর কারণে এখনো অকালে কত প্রাণ যাচ্ছে ঝরে। এ বিষয়কে উপজীব্য করেই নাটক- গিট্টু ঘটক। মাত্র তিনদিনের রিহার্সালে প্রাণবন্ত অভিনয় করে দর্শকদের মন জয় করে নিয়েছে মিজান, গালিব, জয়, রহমান, নুরুল, আজাদ, ইমরান, শাহাদত, অমিত, মোশারফ, রাব্বী। এরা বেশিরভাগ মদনমোহন সরকারি কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্র।

৫.

ভোরের কাগজ ব্যুরো প্রধান ফারুক ভাই আর সিলেট প্রতিনিধি জাহিদ ভাইয়ের সৌজন্যে নববর্ষের মিষ্টি আর নিমকি খেয়ে ভাঙল মিলনমেলা। পুরো অনুষ্ঠান পরিকল্পনা আর নির্দেশনায় ছিলেন মিহির মোহন। সঞ্চালনা করেছেন কবি বিমান তালুকদার।

পাঠক ফোরাম'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj