বর্ষবরণের প্রস্তুতি

শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০১৯

হাসান আলী

বছরের সব জীর্ণতা ভুলে নতুন বছরকে স্বাগত জানাতে প্রস্তুতি নিচ্ছে বিশ^ব্যাপী ছড়িয়ে থাকা ২৮ কোটি বাঙালি। বাংলাদেশেও নানা আয়োজনে বর্ষবরণের প্রস্তুতি চলছে। বর্ষবরণের প্রস্তুতি নিচ্ছেন দেশের শোবিজ তারকারাও। সঙ্গীতশিল্পীরা গাইবেন বিভিন্ন অনুষ্ঠানে। থাকছে মঞ্চনাটকের প্রদর্শনী। কোনো কোনো তারকা নিজের বাড়িতেই জমাবেন বর্ষবরণের আনন্দ আসর। এবারের পহেলা বৈশাখ অভিনেত্রী শবনম ফারিয়ার জন্য একটু অন্যরকম আনন্দের। বিয়ের পর প্রথম বৈশাখ উদযাপন করতে যাচ্ছেন তিনি। গত ১ ফেব্রুয়ারি হারুনুর রশীদ অপুর সঙ্গে বিয়ের পিঁড়িতে বসেন ফারিয়া। বিয়ের পর ঘর গোছানোতেই ব্যস্ত। এর মধ্যে প্রথম বৈশাখ উদযাপন। ফারিয়া জানান, প্রতিবারের মতোই এবারের বৈশাখ উদযাপন করবেন। সকালটা কাটাবেন পরিবারের সঙ্গে। দুপুরের পর থেকে টেলিভিশন মিডিয়ার সহকর্মী-বন্ধুদের সঙ্গে কাটাবেন বিকেলটা। এ ছাড়া স্বামীকে

নিয়ে হাজির হবেন টেলিভিশন অনুষ্ঠানে। এদিকে চৈত্রসংক্রান্তি ও বর্ষবরণকে ঘিরে তিন দিনব্যাপী অনুষ্ঠান সাজিয়েছে আব্দুল্লাহ আল-মামুন থিয়েটার স্কুল। এই আয়োজনে আজ শনিবার চৈত্রসংক্রান্তিতে মঞ্চায়িত হচ্ছে থিয়েটার (নাটক সরণী) প্রযোজিত নাটক ‘মুক্তি’। এই নাটকে অভিনয় করছেন অভিনেত্রী তানভীন সুইটি। এ ছাড়া সুইটি থিয়েটার স্কুলের প্রাক্তন শিক্ষার্থী। ফলে এই উৎসবে থাকবেন তিনি। আর পারিবারিকভাবে বৈশাখের ব্যস্ততা তো আছেই। অন্যদিকে ব্যক্তিজীবনের টানাপড়েন থাকলেও এবারের বৈশাখে নতুন গান নিয়ে আসছেন সঙ্গীতশিল্পী সালমা। ফোক ধাঁচের কথা ও সুরে ‘দিলো না’ শিরোনামের গান গেয়েছেন তিনি। গানটির কথা ও সুর করেছেন শাহ আলম সরকার। গানটির ভিডিও নির্মাণ করেছেন সৈকত নাসির। এতে মডেল হিসেবে আছেন আশফিয়া ওহী ও জুয়েল। নতুন গান প্রসঙ্গে সালমা বলেন, ‘শাহ আলম সরকারকে আমি গুরু মানি। গুরুর গান শিষ্য গেয়েছে এটা আনন্দের। গানটার মধ্যে আলাদা একটা দরদ আছে। আমিও গানটি গাওয়ার সময় শতভাগ দরদ দিয়ে গাওয়ার চেষ্টা করেছি।’ অভিনেত্রী জাকিয়া বারী মম চৈত্রসংক্রান্তি পর্যন্ত শুটিংয়ে ব্যস্ত থাকবেন। যার জন্য এবারের বৈশাখে কেনাকাটা করার সময় পাননি। তবে প্রিয়জনদের কাছ থেকে উপহার পেয়েছেন। মম বলেন, ‘বৈশাখের দিনটা কাটবে পরিবারের সঙ্গে। দুপুরের দিকে যাবো মায়ের বাসায়। এরপর বিকেলে শোবিজ অঙ্গনের বন্ধুদের নিয়ে বৈশাখের আনন্দ করবো।’ লাক্স সুপারস্টার মিম মানতাসা জাহাঙ্গীরনগর বিশ^বিদ্যালয়ের চারুকলার শিক্ষার্থী। ফলে তার কাছে বৈশাখ মানেই অন্যরকম। মিম বলেন, ‘আমাদের পরিবারে বৈশাখে ভীষণ মজা হয়। পারিবারিকভাবেই আমরা বৈশাখ উদযাপন করি। আর জাহাঙ্গীরনগরে ভর্তির পর তো বৈশাখে আলপনা আঁকাসহ নানাভাবে আনন্দ করে উদযাপন করছি। এবারের বৈশাখও মজা করেই কাটবে।’ নায়ক সাইমন সাদিক বলেন, ‘গ্রামের বৈশাখীমেলা ছিল অন্যরকম আনন্দের। নাগরদোলা, বাঁশি আরো কত কি! এখন সেগুলো হারিয়ে যাচ্ছে। এখন আনন্দের ধরনও বদলে গেছে।’

মেলা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj