নদী দখল রোধে হটলাইন চালু : বুড়িগঙ্গা অভিযানে ৩ একর জমি উদ্ধার, ১১৮ স্থাপনা উচ্ছেদ

বুধবার, ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

কাগজ প্রতিবেদক : বুড়িগঙ্গার আদি চ্যানেল উদ্ধারে ঢাকা জেলা প্রশাসনের সহায়তায় গতকাল মঙ্গলবার ব্যাপক অভিযান চালিয়েছে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ)। কামরাঙ্গীরচরের লোহারপুলের পার্শ্ববর্তী শহীদনগর, বালুঘাট ও ব্যাটারিঘাট এলাকায় এ অভিযান চালানো হয়। এ সময় ১১৮টি পাকা ও আধাপাকা স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়। উদ্ধার করা হয় প্রায় ৩ একর এলাকা।

এদিকে বুড়িগঙ্গার তীর ঘেঁষা বেড়িবাঁধ এলাকা ধরে একই দিনে অভিযান চালায় পানি উন্নয়ন বোর্ড। ইসলামবাগ, কেল্লারমোড় ও নবাবগঞ্জে চালানো এ অভিযানে শতাধিক স্থাপনা ভেঙে দেয়া হয়। ২০০৮ সালে বাঁধের জন্য অধিগ্রহণ করা জমিতে স্থাপনা নির্মাণ করায় সেগুলো ভাঙ্গা হয় বলে জানান সংশ্লিষ্টরা। পর্যায়ক্রমে গাবতলী পর্যন্ত বেড়িবাঁধের দুই পাশের সব অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হবে বলে জানান তারা। তবে অভিযানের আগেই অনেককে নিজ উদ্যোগে ভবনের অবৈধ অংশ ভেঙে ফেলতে দেখা গেছে।

বিআইডব্লিউটিএর অভিযানে ম্যাজিস্ট্রেট মো. মোস্তাফিজুর রহমান, যুগ্ম পরিচালক কে এম আরিফ উদ্দিন, উপপরিচালক মো. মিজানুর রহমান, সহকারী উপপরিচালক মো. নুর হোসেনসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা অংশ নেন।

গতকাল উচ্ছেদ করা স্থাপনার মধ্যে ৩টি দোতলা ভবন, আধাপাকা ঘর ৩৮টি, টিনের ঘর ৩৫টি ও ৪২টি টংঘর রয়েছে। গত ২৯ জানুয়ারি থেকে শুরু হওয়া এ অভিযানের প্রথম ও দ্বিতীয় পর্যায়ে মোট ১ হাজার ১৯৯টি অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়। তৃতীয় পর্যায়ের অভিযান শুরু হয় গতকাল থেকে। আজ বুধবার কামরাঙ্গীর চরের নবাবচর এলাকা থেকে বসিলা পর্যন্ত বুড়িগঙ্গার তীর ভূমিতে উচ্ছেদ অভিযান চালানো হবে।

যাত্রী হয়রানি ও নদী দখল রোধে হটলাইন : যাত্রী হয়রানি ও নদীর দখল-দূষণ রোধে হটলাইন চালু করেছে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ)। গতকাল নৌপরিবহন মন্ত্রণালয় থেকে পাঠানো বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, হটলাইন দুটো ২৪ ঘণ্টা চালু থাকবে। যে কেউ এ লাইনে কল করে ঢাকা নদীবন্দরে কুলি হয়রানিসহ বুড়িগঙ্গা, তুরাগ ও বালু নদ দখল-দূষণ সম্পর্কে অভিযোগ জানাতে পারবেন। নম্বর দুটি হলো ০১৩০৪০০৪০০৩ ও ০১৩০৪০০৪০০৬।

দ্বিতীয় সংস্করন'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj