আমতলীতে অবৈধ ইটভাটায় ভ্রাম্যমাণ আদালত

বুধবার, ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

হারুন অর রশিদ, আমতলী (বরগুনা) থেকে : বরগুনার আমতলীতে দুটি অবৈধ ইটভাটা ভাঙচুর করে ২ লাখ ৪০ হাজার টাকা জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। গত রবিবার সন্ধ্যায় উপজেলা ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সহকারী কমিশনার (ভূমি) কমলেশ মজুমদার ইটভাটায় অভিযান চালিয়ে জরিমানা করেন।

জানা গেছে, আমতলী উপজেলায় ৭টি ইউনিয়নে ২৫টি ইটভাটা রয়েছে। এর মধ্যে ১১টি ড্রাম চিমনি ইটভাটা। আমতলীর চাওড়া ইউনিয়নের কাউনিয়ায় জেবিবি, চন্দ্রায় এইচএসবি, পাতাকাটায় এইচবিএম, তালুকদার বাজারে এইচআরটি, কুকুয়া ইউনিয়নের রায়বালায় বিবিসিকো, হাজার টাকার বাঁধে এনবিএল, কৃষ্ণনগরে এএমবি ও আমতলী সদর ইউনিয়নের নাচনাপাড়ায় এমসিকে, মহিষডাঙ্গা ও হলদিয়া ইউনিয়নের গুরুদল গ্রামে দুটি ইটভাটা। ইটভাটার মালিকরা পরিবেশ নিয়ন্ত্রণ আইন অমান্য করে করাতকল বসিয়ে গ্রাম ও বনাঞ্চলের বিভিন্ন প্রজাতির গাছ এনে করাতকলে কেটে ইটভাটায় পোড়াচ্ছে। এতে বিলীন হয়ে যাচ্ছে গ্রাম ও বনাঞ্চলের বিভিন্ন প্রজাতির গাছ। ইটভাটার কালো ধোঁয়ায় পরিবেশ দূষিত হয়ে গাছপালা মরে যাচ্ছে। বসবাসের অনুপোযোগী হয়ে পড়েছে ইটভাটা সংলগ্ন গ্রাম।

রবিবার আমতলী ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট কমলেশ মজুমদার অবৈধভাবে করাতকল স্থাপনের অপরাধে চাওড়া চন্দ্রার এইচএসবি ভাটায় ১ লাখ ৬০ হাজার ও কাউনিয়ার জেবিবি ভাটায় ৮০ হাজার টাকা জরিমানা করেন। ওই ভাটা দুটির চিমনি ভেঙে পানি দিয়ে ডুবিয়ে দেয়া হয় এবং করাতকলের যন্ত্রাংশ খুলে থানা-পুলিশের হেফাজতে রাখা হয়।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট কমলেশ মজুমদার বলেন, অবৈধভাবে ইট প্রস্তুত ও ভাটা স্থাপন করা ও করাতকল স্থাপন করায় দুটি ভাটায় ২ লাখ ৪০ হাজার টাকা জরিমানা ও ইটভাটা ধ্বংস করা হয়েছে। তিনি আরো বলেন, অবৈধ করাতকলের যন্ত্রাংশ খুলে এনে পুলিশের হেফাজতে রাখা হয়েছে।

এই জনপদ'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj