প্রবাসী ছেলেকে এগিয়ে আনতে গিয়ে সড়কে স্বামী-স্ত্রী নিহত

বুধবার, ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

মোহাম্মদ ইউসুফ, মিরসরাই (চট্টগ্রাম) থেকে : প্রবাসী ছেলেকে এগিয়ে আনতে বিমানবন্দর যাওয়ার পথে প্রাণ হারিয়েছেন বাবা-মা। চট্টগ্রাম বিমানবন্দরে যাওয়ার পথে তাদের বহনকারী মাইক্রোবাসে আগুন ধরে ৩ জন নিহত ও ৪ জন আহত হন। গতকাল মঙ্গলবার ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের মিরসরাইয়ের নিজামপুর কলেজ এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন- প্রবাসী স্বপনের বাবা আবদুর রহমান (৬৫), মা বিবি কুলছুম (৫৮) ও মাইক্রো বাসের চালক (নাম পরিচয় পাওয়া যায়নি)। আহতরা হলেন আবুল কালাম (৪২) মো. রাশেদ (১৩) মো. মালেক রনি (১০) মো. হাসান (১৯)।

জানা গেছে ৩ বছর পর ওমান ফেরত ছেলে স্বপনকে এগিয়ে আনতে ভোর রাতে মাইক্রোবাসযোগে চট্টগ্রাম বিমানবন্দরের পথে রওয়ান দেন বাবা আবদুর রহমান ও মা বিবি কুলছুম। সঙ্গে ছিলেন আরেক ছেলে আবুল কালাম, দুই নাতি (স্বপনের ছেলে) রাশেদ ও আবদুল মালেক রনি এবং স্বপনের স্ত্রীর ছোট ভাই হাসান। কিন্তু ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের মিরসরাইয়ের নিজামপুর কলেজ এলাকায় তাদের বহন করা মাইক্রোবাসে আগুন ধরে মুহূর্তের মধ্যে লাশ হয়ে যান আবদুর রহমান ও তার স্ত্রী বিবি কুলছুম।

আহত রনি ও রাশেদকে প্রথমে মিরসরাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়া হয়। পরে শারীরিক অবস্থার অবনতি দেখে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। আহত ও নিহতরা সবাই একই পরিবারের সদস্য। তাদের বাড়ি কুমিল্লা জেলার মনোহরগঞ্জ থানার হাসনাবাদ ইউনিয়নের কমলপুর গ্রামে।

নিহত আবদুর রহমানের ছেলে মো. রুবেল জানায়, ওমানে থাকা তার বড় ভাই স্বপনকে আনতে বাড়ি থেকে চট্টগ্রাম বিমানবন্দরে যাচ্ছিল মা-বাবা ভাই-ভাতিজারা। পথে দুর্ঘটনার কবলে পড়ে আমার বাবা ও মা মারা গেছে।

মিরসরাই ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের কর্মকর্তা রবিউল আজম রবিন জানান, গতকাল (মঙ্গলবার) ভোরে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের মিরসরাইয়ের হাদিফকিরহাট এলাকায় একটি কাভার্ডভ্যানের পেছনে ধাক্কা দিলে মাইক্রোবাসটি আটকে যায়। পরে মাইক্রোবাসটিতে আগুন ধরে গেলে ঘটনাস্থলে ৩ জন মারা যায়।

এই জনপদ'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj