বঙ্গ রাখাল : ছোট্টকালে স্বপ্ন ছিল অভিনেতা হব

বুধবার, ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

কাগজ প্রতিবেদক : শুদ্ধ মানুষের সন্ধানে বাঙলার পথে-প্রান্তরে স্বপ্ন কিংবা জাগরণে চষে বেড়ানো যুবকের নাম বঙ্গ রাখাল। ছোট্টকালে তার স্বপ্ন ছিল অভিনেতা হবেন। পরে স্বপ্ন দেখলেন গাজীর গায়েন কিংবা কীর্তনীয়া হবেন। কিন্তু স্বপ্নবাজদের কোনো স্বপ্ন যে ফেলনা নয়। তাইতো অবশেষে হয়ে উঠেছেন ‘একের ভিতর বহু’।

বহুমাত্রিক সৃজনশীল তরুণ বঙ্গ রাখালের পৈত্রিক নিবাস গোলকনগর হলেও জন্ম তার ঝিনাইদহের ভাটই গ্রামের নানাবাড়িতে। নানা ছিলেন গ্রাম্য গল্পকথক। মা মাজেদা বেগমের ছিল গানের সুমিষ্ট গলা। আর সংস্কৃতিমনা বাবা গোলাম রসূল তাকে বলতেন, পারবে লালনের মতো গান লিখতে?

পরিবারের এই তাড়নাই বালক রাখালকে লেখায় নিমগ্ন করে। অন্তমিলের ছড়া দিয়ে শুরু, এর পর কবিতা, গল্প, কাব্যনাট্য, প্রবন্ধ, গবেষণা ইত্যাদি। তারুণ্যেই পাণ্ডিত্যের ঠিকরে পড়া আলোয় উজ্জ্বল তার প্রকাশিত প্রবন্ধগ্রন্থ ‘সংস্কৃতির দিকে ফেরা’, ‘লোক মানুষের গান ও আত্ম অন্বেষণ’ এবং ‘মানবতাবাদী লালন ও জীবন অন্বেষণ’।

আত্মা-পরমাত্মার গভীর বোধ কবিকে বিমোহিত করে। তাইতো গহীন গোপনে মহাত্মা লালনের সহজ পথের সন্ধান করে চলেছেন। কবির জীবন আর কর্মের মূলমন্ত্র- ‘এমন সমাজ কবে সৃজন হবে, জাত-পাত, ছোট-বড়, ধনি-গরিব, শোষক-শোষিতের ব্যবধান নাহি রবে’। আর এপথেই চলছে কবির সমস্ত সৃজনশীলতা। ‘পাগলা কানাই ও তার তত্ত্ব দর্শন’ গ্রন্থেও রয়েছে সেই পরিচয়।

শেষ পাতা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj