মুক্তিপণ দাবি : ছয়দিনেও উদ্ধার হয়নি অপহৃত শিশু দীপা

রবিবার, ১৩ জানুয়ারি ২০১৯

কাগজ প্রতিবেদক, বরিশাল : নগরীর কলেজ রোড এলাকা থেকে ৬ দিন আগে অপহরণ করা সাড়ে ৩ বছরের শিশু দীপা রানীকে উদ্ধার করতে পারেনি পুলিশ। তবে মুক্তিপণ দাবি করায় সন্দেহভাজন ৪ জনকে আটক করে কারাগারে পাঠিয়েছে পুলিশ। অপহৃত শিশু দীপার বেঁচে থাকা না থাকা নিয়ে সংশয়ের মধ্যে রয়েছেন তার বাবা-মা। পুলিশের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে দীপাকে উদ্ধারের জন্য তাদের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা কোতোয়ালি মডেল থানার এসআই সাইদুল ইসলাম বলেন, অপহরণ ও মুক্তিপণের খবর জানার পর থেকেই পুলিশ অপহরণকারীদের আটক ও শিশু দীপাকে উদ্ধারের জন্য তৎপর রয়েছে।

ইতোমধ্যে দীপার বাবার মোবাইল ফোনে ৪০ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবিকারীদের মধ্যে ৪ জনকে আটক করা হয়েছে। তারা হলো- নগরীর কলেজ রোড এলাকার বাসিন্দা মো. রাসেল, তার ভাই সজীব এবং একই এলাকার ফারুক হোসেন ও আসাদুল হক। শিশু দীপা রানীকে অপহরণের তার বাবার মোবাইলে ৪০ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবির কথা স্বীকার করলেও অপহরণের কথা স্বীকার করেনি আটককৃতরা।

দীপা রানীর নিখোঁজ হওয়ার খবর মাইকে শুনে আটককৃতরা লোভে পরে মুক্তিপণ দাবি করেছিল বলে জানিয়ে এসআই সাইদুল ইসলাম আরো বলেন, ওই ৪ জনকে অধিক জিজ্ঞাসাবাদের জন্য রিমান্ডের আবেদন করা হয়েছে।

এদিকে ঘটনার ৬ দিন অতিবাহিত হলেও অপহৃত দীপা রানীকে উদ্ধার করতে না পারায় নির্বাক হয়ে পরেছেন তার মা-বাবা। দীপার বাবা নগরীর কাউনিয়া এলাকার একটি মিষ্টির দোকানের কর্মচারী বিনয় সমাদ্দার বলেন, গত ৬ জানুয়ারি সকাল ১০টার দিকে তার মেয়ে দীপা ঘরের সামনে বসে খেলা করছিল।

কিছুক্ষণ পর থেকে তাকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না। অনেক খোঁজাখুঁজির পর এলাকায় মাইকিং করে নিখোঁজ হওয়ার বিষয়ে থানায় সাধারণ ডায়েরি করা হয়।

তিনি আরো জানান, ঘটনার দিন দুপুরে একটি অপরিচিত নম্বর থেকে তার (বিনয় সমাদ্দার) নম্বরে কল আসে। অপর প্রান্তে থাকা ব্যক্তি নিজের নাম-পরিচয় গোপন রেখে দীপাকে ফিরে পেতে ৪০ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে। এ সময় টাকা না পেলে শিশু দীপা রানীকে হত্যার হুমকি দেয়া হয়।

সারাদেশ'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj