সিলেট প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন : পাশবিক নির্যাতনকারীদের গ্রেপ্তার ও শাস্তির দাবি

রবিবার, ১৩ জানুয়ারি ২০১৯

সিলেট ব্যুরো : বালাগঞ্জ উপজেলার দেওয়ান বাজার ইউনিয়নের শিওরখাল মহিলা মাদরাসার ৭ম শ্রেণির ছাত্রীকে পাশবিক নির্যাতনকারী সব অপরাধীদের দ্রুত গ্রেপ্তার এবং তাদের সর্বোচ্চ শাস্তি দাবি করেছেন তার মা জয়তেরা বিবি। গতকাল শনিবার সিলেট প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ দাবি জানান। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন মেয়ের বাবা ও স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতা আতিকুল ইসলাম। লিখিত বক্তব্য পাঠ করার সময় কান্নায় আবেগ আল্পুত হয়ে পড়েন নির্যাতিতা মেয়েটির বাবা ও মা।

মা জয়তেরা বিবি বলেন, আমার অপ্রাপ্ত বয়স্ক মেয়েকে গত ২২ নভেম্বর সন্ধ্যায় শিওরখাল গ্রামের আমাদের বাড়ির বারান্দা থেকে তুলে নিয়ে যায় আব্দুল আহাদ (২৫) ও আজই মিয়াসহ (৩২) আরও অন্তত ৪ জন। তুলে নিয়ে গিয়ে তার ওপর বর্বর পাশবিক নির্যাতন চালায়। ঘটনার পরে তাকে রক্তাক্ত শরীরে অজ্ঞান অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। পরক্ষণে তার জ্ঞান ফিরে এলে তার ওপর নির্যাতনকারী ধর্ষক হিসেবে শিওরখাল গ্রামের আব্দুল করিমের ছেলে আব্দুল আহাদ ও আইয়ুব উল্লার ছেলে আজই মিয়ার কথা জানায়। রাতেই সংকটাপন্ন অবস্থায় সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তাকে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসা এবং পরীক্ষা-নিরীক্ষা সম্পন্ন হয়।

তিনি বলেন, হাসপাতালের রিপোর্টেও গণধর্ষণের প্রমাণ মিলেছে। ঘটনার পরদিন গত ২৩ নভেম্বর আমার স্বামী আতিকুল ইসলাম বাদী হয়ে বালাগঞ্জ থানায় একটি মামলা (নম্বর ০৮) দায়ের করেন। ঘটনার সঙ্গে জড়িত এবং এলাকার চিহ্নিত অপরাধী আব্দুল আহাদ ও আজই মিয়াসহ অজ্ঞাত ৪ জনকে আসামি করা হয়েছে। পরে পুলিশি অভিযান চালিয়ে ২৪ নভেম্বর তাদের দুজনকে গ্রেপ্তার করে। কিন্তু ঘটনার প্রায় দুই মাস পার হলেও জড়িত অন্য আসামিরা গ্রেপ্তার হয়নি।

ঘটনার প্রতিবাদে বিভিন্ন কর্মসূচিতে স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসার শিক্ষক-শিক্ষার্থী, আইনজীবী, মানবাধিকার কর্মী, সাংবাদিক, সুশীল সমাজের প্রতিনিধিসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক সংগঠনের নেতারা অংশগ্রহণ করেন। ঘটনার পর বিশেষ করে যুক্তরাজ্যে অনুষ্ঠিত প্রতিবাদ সমাবেশে বিশিষ্ট মিডিয়া ব্যক্তিত্ব আহমেদ উস সামাদ চৌধুরী জেপি, মানবাধিকার কর্মী আকলিমা বিবিসহ প্রবাসী কমিউনিটি নেতারা প্রতিবাদ জানান এবং জড়িত সব অপরাধীদের গ্রেপ্তার ও সর্বোচ্চ শাস্তির দাবি জানান। সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে নির্যাতিতা মেয়েটির বাবা জানান, সরকারদলীয় স্থানীয় কিছু নেতাকর্মীর শেল্টারে পুলিশ অন্য আসামিদের গ্রেপ্তার করছে না। এমনকি বশির নামে এক আসামি এলাকায় এলে পুলিশকে দ্রুত সংবাদ দেয়া হলে রহস্যজনক কারণে আসামিকে গ্রেপ্তার না করে তারা চলে যায়।

সংবাদ সম্মেলনে জয়তেরা বিবি সব অপরাধীদের গ্রেপ্তার ও তাদের শাস্তি নিশ্চিত করার ব্যাপারে মামলার যথাযথ তদন্ত এবং ন্যায়বিচার পাওয়ার স্বার্থে সব মহলের আন্তরিক সহযোগিতা চেয়েছেন। বিশেষ করে সিলেট-৩ আসনের সংসদ সদস্য মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী, সিলেটের বিভাগীয় কমিশনার, সিলেটের জেলা প্রশাসক, সিলেটের পুলিশ সুপারসহ বাংলাদেশ সংশ্লিষ্ট সবর সর্বাত্মক সহযোগিতা কামনা করেন তারা।

এই জনপদ'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj