ভূমিমন্ত্রী ও শিক্ষা উপমন্ত্রীর প্রতিশ্রæতি : ভূমি ও শিক্ষা খাতে আনা হবে বৈপ্লবিক পরিবর্তন

রবিবার, ১৩ জানুয়ারি ২০১৯

চট্টগ্রাম অফিস : নিজ নিজ মন্ত্রণালয়ের স্বচ্ছতা-জবাবদিহিতা এবং বৈপ্লবিক পরিবর্তনকে আরো গতিশীল করার প্রতিশ্রæতি দিয়েছেন ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ ও শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল। চট্টগ্রামের এই দুই সংসদ সদস্য দুটি মন্ত্রণালয়ে দায়িত্ব পাওয়ার পর প্রথম চট্টগ্রামে আসার পর সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে এ প্রতিশ্রæতি দেন।

জাবেদ বলেছেন, ‘আমি এসেছি সম্মানের জন্য। দুর্নীতি যেদিন স্পর্শ করবে সেদিন হবে আমার শেষ দিন। যে কেউ প্রশ্ন করলে জবাব দিতে বাধ্য থাকব’। এদিকে নওফেল বলেছেন, ‘পাঠ্যপুস্তকে সা¤প্রদায়িকীকরণ দেশের জন্য বিপজ্জনক, তাই শিক্ষাক্ষেত্রে ধর্মনিরপেক্ষ কারিকুলাম অত্যন্ত প্রয়োজন’। গতকাল শনিবার সকালে ব্যারিস্টার নওফেল নগরীর ষোলশহরের চশমা হিলে তার পৈত্রিক বাড়িতে এবং ভূমিন্ত্রী জাবেদ চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবে সাংবাদিকদের সঙ্গে পৃথক মতবিনিময় সভায় এই প্রতিশ্রæতি দেন।

আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারির মধ্যে ভূমি মন্ত্রণালয়সহ দেশের সব ভূমি অফিসের কর্মকর্তা-কর্মচারীসহ সংশ্লিষ্ট সবার স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তির হিসাব দাখিলের নির্দেশ দিয়ে ভূমিমন্ত্রী জাবেদ বলেন, সংসদ নির্বাচনের সময় আমার হিসাব জমা দিয়েছি। মন্ত্রণালয় থেকে শুরু করে দেশের সব জেলা, উপজেলা, ইউনিয়ন ভূমি অফিসের সব কর্মকর্তা-কর্মচারীর সম্পদের হিসাব জমা দেয়ার জন্য এখনই মৌখিক নির্দেশ দিচ্ছি। মন্ত্রণালয়ে গিয়েই অফিস অর্ডার বা নোটিস ইস্যু করব। নিজেকে দুর্নীতির ঊর্ধ্বে রাখার ঘোষণা দিয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘আমি এসেছি সম্মানের জন্য। দুর্নীতি যেদিন স্পর্শ করবে সেদিন হবে আমার শেষ দিন। যে কেউ প্রশ্ন করলে জবাব দিতে বাধ্য থাকব। আমি সবার সেবক হিসেবে থাকতে চাই।’ মন্ত্রী তার মন্ত্রণালয়ের সকল পর্যায়ের সমস্যা নিরসনসহ ভূমি সংশ্লিষ্ট কার্যক্রমে দুর্নীতি রোধ এবং মানুষের হয়রানি বন্ধে ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানান। পাশাপাশি বিভিন্ন ভূমি অফিসে সাধারণ মানুষের সেবা পেতে যাতে কোনো দুর্ভোগ পোহাতে না হয় সে জন্য ‘সারপ্রাইজ ভিজিট’সহ অন্যান্য প্রশাসনিক কাজও অব্যাহত থাকবে বলে জানান এই মন্ত্রী।

তিনি বলেন, ভূমি খাতে বৈপ্লবিক পরিবর্তন আনব। কর্ণফুলীর দুই পাড়ের সব অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ হবে। কাউকে ছাড় দেয়া হবে না। সারা দেশের ভূমি অফিসগুলোতে স্বচ্ছতা আনতে সিসিটিভির আওতায় আনা এবং ভয়েস রেকর্ডারের ব্যবস্থা করার কথা জানান তিনি। এ ছাড়া চট্টগ্রামের সাংবাদিকদের আবাসন সংকট নিরসনে নতুন সরকারি জমি বরাদ্দ দেয়ার কথাও জানান মন্ত্রী।

এদিকে সকালে নগরীর চশমা হিলের বাসভবনে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল পাঠ্যপুস্তকে সা¤প্রদায়িকীকরণ দেশের জন্য বিপজ্জনক মন্তব্য করে বলেন, শিক্ষা ক্ষেত্রে অসা¤প্রদায়িক ও ধর্মনিরপেক্ষ কারিকুলাম অত্যন্ত প্রয়োজন। পাশাপাশি ধর্মীয় শিক্ষার মানোন্নয়নও দরকার। এতে সমাজে অস্থিতিশীলতা সৃষ্টি হবে না। বাংলাদেশের সংবিধান ধর্মনিরপেক্ষ রাষ্ট্র গঠনে আমাদের শিক্ষা দেয়। আওয়ামী লীগ ধর্মনিরপেক্ষ রাজনৈতিক আদর্শে বিশ্বাস করে। হিন্দু-মুসলমান-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান প্রত্যেকেই যার যার ধর্মীয় অনুশাসন মেনে চলবে। পাঠ্যপুস্তকে সা¤প্রদায়িকীকরণ বা বিভাজন সৃষ্টি এবং কোমলমতি শিশুদের মানসিকতায় এ বিভাজন ঢুকিয়ে দেয়ার ফলে দীর্ঘমেয়াদে সমাজের স্থিতিশীলতা নষ্ট হবে। পাঠ্যপুস্তক থেকে প্রগতিশীল লেখকদের গল্প-কবিতা বাদ দেয়া প্রসঙ্গে নওফেল বলেন, ‘যারা এই কাজ করেছিলেন, তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। আমরা এখন থেকে সতর্ক থাকব, যাতে এই ধরনের কার্যকলাপ আর না হয়।’

পিইসি-জেএসসি পরীক্ষার আদৌ প্রয়োজন আছে কিনা- এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, পিইসি পরীক্ষা একটা পাবলিক পরীক্ষায় পরিণত হয়ে গেছে। এখন এটা কিভাবে নিরসন করা যায়, সেই চেষ্টা করা হচ্ছে। তবে প্রাইমারি স্কুল লেভেলের একটা সার্টিফিকেটেরও প্রয়োজন আছে। জমির অপ্রতুলতার কারণে নতুন সরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান না করে এতিহ্যবাহী বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোকে সরকারিকরণ করার চেষ্টা করা হবে বলে নওফেল মন্তব্য করেন। অধিক শিক্ষার্থীর চাপ সামলাতে দুই শিফটে পাঠদানের ব্যবস্থা করার পরামর্শও এসেছে তৃণমূল থেকে। নামি-দামি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোর প্রতি অভিভাবকদের নির্ভরশীলতা কমাতে প্রান্তিক এলাকার শিক্ষাঙ্গনে লেখাপড়ার মান বৃদ্ধিতে যোগ্যতাসম্পন্ন শিক্ষক নিয়োগ ও প্রশিক্ষণ কার্যক্রম জোরদার করার ওপরও গুরুত্ব দেন নওফেল।

মতবিনিময় সভাসমূহে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এম এ সালাম, চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের সভাপতি কলিম সরওয়ার ও সাধারণ সম্পাদক শুকলাল দাশ, সাবেক সভাপতি আলী আব্বাস, চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি নাজিমউদ্দিন শ্যামল ও সাধারণ সম্পাদক হাসান ফেরদৌস, চট্টগ্রাম উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি গিয়াস উদ্দিন প্রমুখ।

এই জনপদ'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj