দুপচাঁচিয়ায় অটোরাইস মিলের বর্জ্যে দূষিত হচ্ছে পানি

রবিবার, ১৩ জানুয়ারি ২০১৯

আজিজুল হক, দুপচাঁচিয়া (বগুড়া) থেকে : দুপচাঁচিয়া উপজেলার চৌমুহনীতে একটি অটোমেটিক রাইস মিলের বর্জ্যে ইরামতি খাঁড়ির পানি মিশমিশে কালো রং ধারণ করে বিষাক্ত হয়ে উঠেছে। ফলে এলাকার কৃষককুলসহ সাধারণ মানুষ নৈমিত্তিক কাজে এ পানি ব্যবহার করতে না পেরে চরম দুর্ভোগে পড়েছে। সেই সঙ্গে পরিবেশ হচ্ছে দূষিত। এ ব্যাপারে সম্প্রতি উপজেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটির মাসিক সভায় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের সিদ্ধান্ত হয়েছে।

দুপচাঁচিয়া উপজেলা সদর থেকে প্রায় ৫ কিলোমিটার পশ্চিমে গোবিন্দপুর ইউনিয়নের বগুড়া-নওগাঁ মহাসড়কের পাশে চৌমুহনী বাসস্ট্যান্ডের অদূরে স্থানীয় মোকলেছার ও ইদ্রিস আলীর ভাই ভাই অটো রাইস মিলটি অবস্থিত। মিলটির বর্জ্য অপসারণে বা সংরক্ষণের কোনো ব্যবস্থা না করেই মিলটি চালু করে। এক পর্যায় মিলের বর্জ্য অপসারণের জন্য মিল থেকে ইরামতি খাঁড়ি পর্যন্ত পাকা ড্রেন নির্মাণ করে। এই ড্রেন দিয়ে প্রতিদিন মিলের দুর্গন্ধময় ও দূষিত বর্জ্য প্রভাবিত হয়ে ইরামতি খাঁড়ির পানিতে গিয়ে মিশছে। এই দূষিত পানির সঙ্গে মিশে মিশমিশে কালো রং ধারণ করছে। আশপাশের গ্রামগুলোর কৃষকরা যে কোনো মৌসুমে ফসল চাষ করতে আগে এই খাঁড়ির পানি ব্যবহার করতো। কিন্তু এখন খাঁড়ির পানি ব্যবহারের অনুপোযোগী হওয়ায় তা ব্যবহার করতে না পাড়ায় বিড়ম্বনার শিকার হচ্ছে। এ ছাড়াও মিলের ছাই দিয়ে ইরামতি খাঁড়ি ভরাট হওয়ার ফলে পানি প্রবাহে বিঘ্ন ঘটছে। এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ইউএনও এস এম জাকির হোসেন ইতোপূর্বে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে উক্ত রাইস মিলে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করে। এর কিছু দিন পর আবারো খাঁড়ি ভরাট করে দখলের কাজ শুরু হয়। যা অব্যাহত রয়েছে।

সারাদেশ'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj