কনজ্যুমার ইলেক্ট্রনিকস শো ২০১৯ : আকর্ষণীয় সব পণ্য ও প্রযুক্তি

রবিবার, ১৩ জানুয়ারি ২০১৯

প্রযুক্তি বিশ্বের অন্যতম বড় আয়োজন কনজ্যুমার ইলেক্ট্রনিকস শো ২০১৯। এই আয়োজনে বিশ্বের নামকরা প্রযুক্তি পণ্য নির্মাতা প্রতিষ্ঠানগুলোর পাশাপাশি অংশ নিয়েছে বিভিন্ন স্টার্টআপও। প্রযুক্তিভিত্তিক নতুন নতুন পণ্য ও উদ্ভাবন এখানে বিশ্বের সামনে তুলে ধরছে প্রতিষ্ঠানগুলো। সা¤প্রতিক বছরগুলোতে স্মার্টফোনের পাশাপাশি কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা এবং রোবটও এই আয়োজনের একটি অন্যতম বড় অংশ হিসেবে আবির্ভূত হয়েছে। ছোট-বড় প্রায় সব প্রতিষ্ঠানও আনুষ্ঠানিকভাবে তাদের উদ্ভাবন বাজারে ছাড়ার আগে এখান থেকে সবার সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দেয়। এ বছর সিইএসে অন্যতম আকর্ষণ হিসেবে ছিল ভাঁজযোগ্য স্মার্টফোন এবং কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা। এর বাইরে এবারের সম্ভাব্য আরো কিছু পণ্য ও প্রযুক্তির খবর নিয়ে আজকের আয়োজন-

ুকৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা

এ বছর কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা নিয়ে কনজ্যুমার ইলেক্ট্রনিকস শোতে হাজির হয়েছে অন্তত ষাটটি প্রতিষ্ঠান। দৈনন্দিন জীবনে ব্যবহৃত বিভিন্ন পণ্যে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার ব্যবহার নিয়ে চমক দেখিয়েছে এ প্রতিষ্ঠানগুলো। অর্থাৎ ইন্টারনেট অব থিংস বা আইওটির বড় চমকও ছিল এবার।

বড় পর্দার টিভি

সিইএসের প্রতি আয়োজনেই টিভি নিয়ে কোনো না কোনো চমক থাকেই। ব্যতিক্রম হয়নি এবারো। ৪কে নিয়ে মাতামাতি শেষে এবার দেখা মিলেছে ৮কে প্রযুক্তির। স্যামসাং, সনি, এলজি, তোশিবা, শার্প প্রভৃতি প্রতিষ্ঠান তাদের সর্বশেষ উদ্ভাবিত টেলিভিশন প্রযুক্তি নিয়ে হাজির হয়েছে লাস ভেগাসে। এছাড়া এবার ৮০ ইঞ্চির বড় পর্দার টিভির দেখাও মিলেছে। এ ছাড়া ইমেজ কোয়ালিটি আগের থেকে উন্নত করার জন্য এইচডিআর এবং মাইক্রোএলইডি টিভিও দেখাও গেছে।

গতি পাবে ফাইভজি

কয়েক বছর ধরেই আলোচনায় আছে ফাইভজি। ইতিমধ্যেই বিশ্বের বিভিন্ন স্থানে পরীক্ষামূলকভাবে ফাইভজি নেটওয়ার্ক চালু করা হয়েছে। এ বছরের মধ্যেই আরো কিছু স্থানে আনুষ্ঠানিকভাবে ফাইভজি প্রযুক্তি চালু করা হবে। এ ছাড়া ফাইভজি সমর্থিত স্মার্টফোনও বাজারে আসবে চলতি বছরেই। এবারের কনজ্যুমার ইলেক্ট্রনিকস শো থেকে চিপ নির্মাতা প্রতিষ্ঠানগুলো তাদের ফাইভজি চিপ নিয়ে গবেষণা ও উদ্ভাবনের খবর দিয়েছে। এ ছাড়া ফাইভজি সমর্থিত ডিভাইসের বিষয়েও জানা গেছে এখানে। দেখা মিলেছে পারে ফাইভজি স্মার্টফোনেরও।

স্মার্ট স্পিকার ও ভার্চুয়াল অ্যাসিস্ট্যান্ট

অ্যামাজনের অ্যালেক্সা এবং গুগলের ভয়েস অ্যাসিস্ট্যান্টের উপর ভিত্তি করে বিভিন্ন পণ্য সা¤প্রতিক বছরগুলোতে বাজারে এসেছে। এসব পণ্য গত বছর দুয়েক ধরেই সিইএসের অন্যতম আকর্ষণ হিসেবে ছিল। এছাড়া টিভিতে অ্যালেক্সা যুক্ত করার জন্য বর্তমানে কাজ করছে অ্যামাজন। এর বাইরে আরো বিভিন্ন পণ্যে ভয়েস অ্যাসিস্ট্যান্ট যুক্ত করার জন্য কাজ করছে প্রতিষ্ঠান দুটি। সিইএসে এসব প্রযুক্তির সর্বশেষ আপডেট পাওয়া গেছে।

ইলেকট্রিক ও স্বয়ংক্রিয় গাড়ি

এবারের অন্যতম আকর্ষণ ছিল ইলেকট্রিক গাড়ি ও চালকবিহীন গাড়ি। এরই মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রের রাস্তায় পরীক্ষামূলকভাবে চলছে চালকবিহীন গাড়ি। এ ছাড়া পণ্যবাহী ড্রোন, রোবট ও ইলেকট্রিক স্কেটবোর্ড রয়েছে আলোচনায়। ইলেকট্রিক স্কুটারও জনপ্রিয়তা পাচ্ছে উন্নত দেশগুলোতে। এ সবকিছুই এখনো আলোচনায় রয়েছে।

আলোচনায় চীন

এবারের আয়োজনে চীন যে আলোচনায় ছিল তাতে কোনো সন্দেহ নেই। যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে বাণিজ্য যুদ্ধে অনেক প্রযুক্তি পণ্য নির্মাতা প্রতিষ্ঠানই বিপাকে পড়েছে। অ্যাপলের মতো প্রতিষ্ঠানও বেশ নাকানি চুবানি খেয়েছে এরই মধ্যে।

তাই এবার অনেক প্রতিষ্ঠানেরই নজর ছিল চীনা প্রতিষ্ঠানগুলোর দিকে। তাদের নতুন উদ্ভাবিত প্রযুক্তি কী এবং এর বিপরীতে নতুন কী আনা যায়, তা মাথায় রেখে ছিল মার্কিন প্রতিষ্ঠানগুলো। সূত্র: ইন্টারনেট

:: নাজমুল হক ইমন

ডট নেট'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj