মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের পরিণতি নিয়ে সংশয় : ৮০০ কোটি ডলার খরচের পরও প্রস্তুত নয় আফগান বিমানবাহিনী

শনিবার, ১২ জানুয়ারি ২০১৯

কাগজ ডেস্ক : আফগানিস্তানের বিমানবাহিনীকে গড়ে তোলার জন্য যুক্তরাষ্ট্র প্রায় ৮০০ কোটি ডলার খরচ করেছে। কিন্তু এখনো দেশটির বিমানবাহিনী প্রত্যাশা অনুযায়ী সক্ষম হয়ে উঠতে পারেনি। এমন অবস্থায় মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প দেশটি থেকে সেনা প্রত্যাহারের যে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তার পরিণতি নিয়ে সংশয় ব্যক্ত করেছেন সংশ্লিষ্টরা। যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক সংবাদপত্র নিউইয়র্ক টাইমস লিখেছে, আফগান বিমানবাহিনীর বৈমানিকরা এখনো তাদের দেয়া যুদ্ধবিমান ব্যবহার করে যথাযথভাবে বোমা হামলা করতে পারছেন না। নিউইয়র্ক টাইমস তাদের একটি অভিজ্ঞতার কথা উল্লেখ করেছে। প্রশিক্ষণের সময় একজন আফগান সমন্বয়কের তত্ত্বাবধানে লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত হানার চর্চা করছিলেন আফগান বৈমানিকরা। এ-২৯ বিমান থেকে লক্ষ্যবস্তু হিসেবে রাখা একটি ট্রাকে বোমাবর্ষণ করার কথা। বোমাটি ট্রাকের কয়েক গজ দূরে বিস্ফোরিত হয়। পর্যবেক্ষণে থাকা মার্কিন সেনা কর্মকর্তা উচ্ছ¡সিত হয়ে বলে ওঠেন, ‘একদম জায়গায় আঘাত করেছে।’ কিন্তু নিউইয়র্ক টাইমসের সাংবাদিক লিখেছেন, কয়েক গজ দূরে সেই বোমাটি বিস্ফোরিত হওয়ার আগের প্রচেষ্টাগুলোতে বিমান থেকে ছোড়া বোমাকে লক্ষ্যবস্তুর বেশ দূরে বিস্ফোরিত হতে দেখা গেছে। তবে ২০১৩-১৪ সাল পর্যন্ত আফগানিস্তানে বিমানবাহিনীর প্রশিক্ষক হিসেবে কাজ করা অবসরপ্রাপ্ত ব্রিগেডিয়ার জেনারেল জন ই মিচেল মন্তব্য করেছেন, ৬০ থেকে ৬৫ শতাংশ নিখুঁত হতে পারলেই আমি সেটাকে অনেক ভালো মনে করব। কাজটা কতটা কঠিন সে বিষয়ে আপনাদের বাস্তবানুগভাবে চিন্তা করতে হবে।

এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প আফগানিস্তান থেকে মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত ঘোষণা করেছে।

দূরের জানালা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj