কংগ্রেশনাল প্যানেলের হুঁশিয়ারি : রাশিয়া, চীনের বিরুদ্ধে যুদ্ধে হারতে পারে যুক্তরাষ্ট্র

শনিবার, ১৭ নভেম্বর ২০১৮

কাগজ ডেস্ক : যুক্তরাষ্ট্র জাতীয় নিরাপত্তা ও সামরিক সংকটে রয়েছে এবং রাশিয়া বা চীনের বিরুদ্ধে যুদ্ধে হেরে যেতে পারে। বুধবার মার্কিন কংগ্রেসের একটি সর্বদলীয় প্যানেলের পক্ষ থেকে এই হুঁশিয়ারির কথা জানানো হয়েছে। ফরাসি বার্তা সংস্থা এএফপি এ খবর জানিয়েছে। এই প্যানেলে রয়েছেন বেশ কয়েকজন সাবেক ডেমোক্র্যাট ও রিপাবলিকান কর্মকর্তা। কংগ্রেস প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের জাতীয় প্রতিরক্ষা কৌশল খতিয়ে দেখার জন্য জাতীয় প্রতিরক্ষা কৌশল কমিশনকে দায়িত্ব দেয়া হয়। কমিশন তাদের প্রতিবেদনে জানায়, মার্কিন সামরিক বাহিনীর বাজেট কমানো এবং সামরিক সুবিধা হ্রাস করার ফলে চীন ও রাশিয়ার মতো স্বৈরাচারী দেশগুলো যুক্তরাষ্ট্রের শক্তি খর্ব করতে কাজ করছে।

কমিশন জানায়, মার্কিন সামরিক বাহিনীর একাধিপত্যের মেরুদণ্ড বৈশ্বিক প্রভাব ও জাতীয় নিরাপত্তা বিপজ্জনক মাত্রায় রয়েছে। প্রতিবেদনে আরো বলা হয়েছে, এই শতাব্দীতে যুক্তরাষ্ট্রের বিদ্রোহ দমন নীতিতে মনোযোগ কেন্দ্রীভূত করার কারণে অন্যান্য যুদ্ধক্ষেত্র, যেমন- ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা, সাইবার ও মহাকাশ এবং সাবমেরিন যুদ্ধে পিছিয়ে দিয়েছে। চীন ও রাশিয়ার মতো যোগ্যতর প্রতিদ্ব›দ্বীর বিরুদ্ধে লড়াইয়ের পরিকল্পনা ও সামরিক অভিযানের অনেক দক্ষতা দুর্বল হয়েছে। এই প্রবণতা যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় প্রতিরক্ষার জন্য সংকট তৈরি করেছে।

মার্কিন প্রতিরক্ষা দপ্তরের দুর্বলতা সম্পর্কে প্রতিবেদনে ‘প্রশ্নবিদ্ধ অনুমান ও দুর্বল পর্যালোচনার ওপর নির্ভর করা’র কথা উল্লেখ করা হয়েছে। এতে আরো উল্লেখ করা হয়েছে, এর ফলে আরও বিপজ্জনক পৃথিবীতে যুক্তরাষ্ট্র কীভাবে সংকট মোকাবেলা করবে সেই গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্নের জবাব স্পষ্ট। পরবর্তী সংঘাতে যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক বাহিনী বড় ধরনের হতাহত ও সম্পদের ক্ষতির মুখে পড়তে পারে। চীন বা রাশিয়ার বিরুদ্ধে যুদ্ধে জয় পাওয়া কষ্টকর হবে অথবা হেরেও যেতে পারে যুক্তরাষ্ট্র।

যুক্তরাষ্ট্রের চলতি বছরের প্রতিরক্ষা বাজেট ৭০০ বিলিয়ন ডলারের বেশি। এটা রাশিয়া ও চীনের যৌথ প্রতিরক্ষা বাজেটের তুলনায় বেশি। এরপরও কমিশনের দাবি, এই বাজেট স্পষ্টতই অপর্যাপ্ত। তাই কমিশন সুপারিশ করেছে প্রতি বছর প্রতিরক্ষা খাতে ৩-৫ শতাংশ বাজেট বৃদ্ধির জন্য।

দূরের জানালা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj